১৬ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রিয়াল ছাড়ার পাঁয়তারা

  • অতশী রহমান

হলোটা কি ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর? সান্টিয়াগো বার্নাব্যুতে নাকি কিছুতেই মন বসাতে পারছেন না বর্তমান ফিফা সেরা ফুটবলার। এ কারণেই হয়ত প্রায়শই বলে বেড়াচ্ছেন, রিয়াল মাদ্রিদ ছাড়তে পারেন। সাম্প্রতিক সময়ে বেশ কয়েকবার এমন ইঙ্গিত দিয়েছেন রিয়াল মাদ্রিদের পর্তুগীজ সুপারস্টার।

জোর গুঞ্জন, ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড কিংবা তাদেরই নগরপ্রতিদ্বন্দ্বী ম্যানচেস্টার সিটিতে যোগ দিতে পারেন সি আর সেভেন। সংবাদ মাধ্যমের দাবি সে রকমই। কিন্তু এসবকে উড়িয়ে দিয়েছেন স্বয়ং সিআর সেভেন। বরং একটা পর্যায়ে এসে যুক্তরাষ্ট্রে ক্যারিয়ার গড়ার কথা ভাবছেন রিয়াল মাদ্রিদের এই পর্তুগীজ সুপারস্টার। এ বিষয়ে বিশ্ব ফুটবলের সেরা এই তারকা নিজেই জানিয়েছেন, ‘অবশ্যই যুক্তরাষ্ট্রে খেলার কথা ভাবছি।’ মাদ্রিদে রোনাল্ডোর দীর্ঘমেয়াদী অবস্থান করার অর্থ হচ্ছেÑ ফরাসী চ্যাম্পিয়ন প্যারিস সেইন্ট জার্মেইন এবং সাবেক ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে যোগ দেয়ার বিষয়ে যে গুঞ্জন ওঠেছে সেটি অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। ফলে ৩০ বছর বয়সী রোনাল্ডোর ক্যারিয়ারের শেষ সময় কাটানোর জন্য সম্ভাব্য স্থান হবে যুক্তরাষ্ট্রের ঘরোয়া ফুটবল লীগ এমএলএস।

তবে জোর গুঞ্জন আছে, পিএসজি নতুন ঠিকানা হতে পারে রোনাল্ডোর। গত সপ্তাহে চ্যাম্পিয়ন্স লীগে রিয়াল মাদ্রিদ-পিএসজি ম্যাচ হয়েছে। পিএসজি কোচ লরেন্ট ব্লাঙ্ক ওই ম্যাচের এক পর্যায়ে কানে কানে কী যেন বলেন রোনাল্ডোকে। ব্যস, তাতেই দুইয়ে দুইয়ে চার মিলিয়ে রোনাল্ডোর পরের ঠিকানা প্যারিসেই দেখে ফেলছেন অনেকে! আসলেই সেটা হবে কি না, এখনই বলার উপায় নেই। তবে থিয়াগো সিলভা কিন্তু মনে করছেন, রোনাল্ডোর পরের ঠিকানা পিএসজিই হচ্ছে। ব্লাঙ্ক-রোনাল্ডোকে কী বলেছিলেন, সেটা দুজনই ভাল বলতে পারবেন। তবে ব্লাঙ্ক ওই ঘটনার দু’দিন পর রহস্যটা আরও বাড়িয়ে দিয়ে জানিয়েছেন, দু’জনের আলাপের বিস্তারিত প্রকাশ্যে বলতে চান না। এর মধ্যেই রোনাল্ডো আবার বলেছেন, রিয়ালে কত দিন থাকবেন সেটি নিশ্চিত করে বলতে পারছেন না। পিএসজি ডিফেন্ডার থিয়াগো সিলভা সেই গুঞ্জনের পালে আরও জোর হাওয়া দিয়েছেন। বলেন, ‘আমার মনে হয় রোনাল্ডো আসবে। আমি জানি না ব্লাঙ্কের সঙ্গে ওর ওই ম্যাচের পর কী কথা হয়েছে। কারণ তিনি এ নিয়ে কিছু বলেননি। কিন্তু আমি আশা করি, ইতিবাচক কথাই হয়েছে।

পিএসজি কয়েক বছর ধরেই ফরাসী লীগ ওয়ানে ছড়ি ঘোরাচ্ছে। এখন চ্যাম্পিয়ন্স লীগটাকেই তারা পাখির চোখ করছে। সে জন্য রোনাল্ডোর মতো খেলোয়াড় যে দরকার, সিলভা সেটিই মনে করিয়ে দিয়েছেন, ‘রোনাল্ডো বিশ্বের সেরা খেলোয়াড়। ও এখানে এলে দলের সবাই খুশি হবে। পিএসজিরও চ্যাম্পিয়ন্স লীগ জিততে গ্রেটদের দরকার।’ তিনি আরও বলেন, ‘সে তো ফ্রেঞ্চ খুব ভাল বলে, বোধ হয় আমার চেয়েও ভাল। আসার পর অন্তত প্রচার মাধ্যমের সঙ্গে কথা বলতে কোন অসুবিধা হবে না।’

ইতোমধ্যেই আন্দ্রে পিরলো, ডেভিড ভিয়া, ফ্রাঙ্ক ল্যাম্পার্ড, স্টিভেন জেরার্ড, কাকা এবং স্যাভেস্টেইন জিওবিনকোর মতো ইউরোপের নামী-দামী ফুটবল তারকারা ক্যারিয়ারের শেষ সময়টুকু কাটানোর জন্য বেছে নিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রকে। রোনাল্ডোও অনুসরণ করতে পারেন তাদের। তিনবারের ফিফা বর্ষসেরার খেতাব জয়ী এই ফুটবল তারকা এফএইচএম ইউকে সংস্করণকে বলেন, ‘আমি বিশ্বের যে কোন স্থানের কোন লীগের দরজাই বন্ধ করছি না। অন্তত একটি বছর এমএলএসে নিশ্চিতভাবে কাটানোর কথা ভাবছি। আমি সব সময় বলে আসছি সেখানে বসবাস ও খেলার সম্ভাবনার কথা।’ চলতি মৌসুমে দুর্দান্ত সময় কাটাচ্ছেন রোনাল্ডো।