১২ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

দর বৃদ্ধির সর্বোচ্চ সীমায় তিন কোম্পানির লেনদেন

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ সপ্তাহের তৃতীয় কার্যদিবসে সার্কিট ব্রেকার বা দর বৃদ্ধির সর্বোচ্চ সীমা স্পর্শ করে লেনদেন করেছে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত জেড ক্যাটাগরির তিন কোম্পানি। কোম্পানিগুলো হলো: তাল্লু স্পিনিং, মডার্ন ডাইং এবং রহিমা ফুড। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে এ তথ্য জানা যায়।

তাল্লু স্পিনিং ॥ পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ‘ জেড’ ক্যাটাগরির কোম্পানি তাল্লু স্পিনিং। মঙ্গলবার এ শেয়ারের সার্কিট ব্রেকারে সর্বনিম্ন সীমা ছিল ১৪.৪০ টাকা এবং সর্বোচ্চ ১৭.৬০ টাকা। এই দিনে কোম্পানিটির শেয়ার দর ১৭.৬০ টাকায় স্পর্শ করাতে তা সার্কিট ব্রেকারের আওতায় চলে আসে।

মঙ্গলবার কোম্পানিটির পরিচালনা পর্ষদের সভা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু অনিবার্য কারণবশত সেটি স্থগিত করা হয়েছে। একইভাবে কোম্পানিটির ১৪ নবেম্বর প্রথম প্রান্তিকে ঘোষণা করতে অনুষ্ঠিতব্য সভাও স্থগিত করা হয়েছে। কোম্পানিটির আর্থিক প্রতিবেদন বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে, কোম্পানিটির প্রথম প্রান্তিকের লোকসানের তুলনায় দ্বিতীয় প্রান্তিকে লোকসান বাড়লেও কোম্পানি তৃতীয় প্রান্তিকে তার পরিমাণ কমিয়ে এনেছে। আর বার্ষিক প্রতিবেদনে তার ধারাবাহিকতা রক্ষা করলে কোম্পানিটি হয়তো লাভের মুখ দেখতে পারে। এই আশায় শেয়ারটির প্রতি বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ বেড়েছে। এমনটাই মনে করছেন বাজার সংশ্লিষ্টরা।

কোম্পানিটি প্রথম প্রান্তিকে শেয়ার প্রতি লোকসান করেছে ০.১২ টাকা, দ্বিতীয় প্রান্তিকে ০.২৫ টাকা এবং তৃতীয় প্রান্তিকে এর পরিমাণ কমে দাঁড়িয়েছে ০.১৬ টাকা। গত বছর কোম্পানিটি বিনিয়োগকারীদের কোন লভ্যাংশ প্রদান করেনি এবং তার আগের বছর ১৫ শতাংশ বোনাস লভ্যাংশ প্রদান করেছিল। কোম্পানিটির শেয়ার দর ১০ শতাংশ বা ১.৬০ টাকা বেড়েছে। এই সময় প্রতিষ্ঠানটির শেয়ার দর ১৬.২০ টাকা থেকে ১৭.৬০ টাকা পর্যন্ত ওঠানামা করে সর্বশেষ ১৭.৬০ টাকায় লেনদেন হয়। এর মোট ১ লাখ ১৬ হাজার ৮১টি শেয়ার ১১৭ বার হাত বদল হয়। যার বাজার মূল্য ১ কোটি ১৬ লাখ ৮১ হাজার টাকা।

মডার্ন ডাইং ॥ বস্ত্রখাতের এবং ‘ জেড’ ক্যাটাগরির কোম্পানি মডার্ন ডাইং এন্ড স্ক্রীন প্রিন্টিং লিমিটেড। মঙ্গলবার কোম্পানিটির শেয়ার দর ১০ শতাংশ বা ১২.৩০ টাকা বেড়েছে। এইদিন সার্কিট ব্রেকারে কোম্পানির শেয়ার দরের সর্বনিম্ন সীমা ছিল ১১০.৭০ টাকা এবং সর্বোচ্চ ১৩৫.৩০ টাকা। এই দিনে কোম্পানিটির শেয়ার দর ১৩৫.৩০ টাকায় স্পর্শ করাতে তা সার্কিট ব্রেকাররের আওতায় চলে আসে।

সদ্য প্রকাশিত কোম্পানির প্রথম প্রান্তিকের আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটি লোকসান থেকে মুনাফায় ফিরেছে। এই কারণেই এই শেয়ারে বিনিয়োগকারীদের এত আগ্রহ বলে মনে করছেন বাজার সংশ্লিষ্টরা। কোম্পানিটি গত বছর প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই১৪- সেপ্টেম্বর১৪) শেয়ার প্রতি লোকসানে ছিল ০.৫৪ টাকা। আর এ বছর প্রথম প্রান্তিকে (জুলাই ১৫- সেপ্টেম্বর ১৫) শেয়ার প্রতি আয় হয়েছে ০.৩৫ টাকা। ইতিমধ্যে কোম্পানিটি ৩০ জুন ২০১৫ সমাপ্ত অর্থবছরের জন্য ১০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছে।

রহিমা ফুড ॥ ১৯৯৭ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হওয়া ‘ জেড’ ক্যাটাগরির খাদ্য ও আনুষঙ্গিক খাতের কোম্পানি রহিমা ফুডস। মঙ্গলবার এ কোম্পানির সার্কিট ব্রেকার সর্বনিম্ন সীমা ছিল ৩২.৪০ টাকা এবং সর্বোচ্চ ৩৯.৬০ টাকা। এই দিনে কোম্পানিটির শেয়ার দর ৩৯.৬০ টাকায় স্পর্শ করাতে তা সার্কিট ব্রেকারের আওতায় চলে আসে। সর্বশেষ প্রকাশিত তৃতীয় প্রান্তিকের (জানুু১৫-মার্চ১৫) আর্থিক প্রতিবেদন অনুযায়ী কোম্পানিটি শেয়ার প্রতি লোকসানের পরিমাণ অর্ধেকে নামিয়ে এনেছে। এ জন্যই বিনিয়োগকারীরা এ শেয়ারে আগ্রহী হচ্ছে বলে অনেকেই মনে করেন।