২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সমাজ ভাবনা

  • এবারের বিষয় ॥ রেলগাড়ি;###;বরিশালে রেলের দেখা!

ইব্রাহীম রাসেল

মায়ের মুখে প্রথম শুনেছি রেলগাড়ির কথা। খুলনা থেকে বাগেরহাট ছিল আমার জীবনে প্রথম রেলযাত্রা। তখন খুলনাতে থাকা হতো। একটা গাড়ি বিকট আওয়াজ তুলে চলছে, জানালায় তাকালে দেখা যায় সব সবুজ সাঁই সাঁই পিছনের দিকে যাচ্ছে, এইটুকু বোধের বয়স তখন। এর পরের জীবন বরিশালে। যে কারণে রেলগাড়ির সাথে সাক্ষাতের সুযোগ ছিল না। যখন একটু বড় হলাম, পাঠ্যবইয়ে কবি শামসুর রাহমানের ‘ট্রেন’ কবিতাটি পড়ে রেলগাড়ির একটা উপলব্ধি পাওয়া। পরিণত বয়সে বাস্তব রেলযাত্রার অভিজ্ঞতা হয় ২০০৫ সালে। ঢাকা থেকে সিলেট। তখন অনুভব করি রেলগাড়ির বৈশিষ্ট্য, যাত্রার মধুরতা। আমরা বরিশালের অধিবাসীরা যা থেকে আজও বঞ্চিত। একটা দীর্ঘ বয়স পার করতে হয় আমাদের রেলযাত্রার বাস্তবিক অভিজ্ঞতা নিতে। নিকটস্থ এমন অনেক পরিচিত বয়োজ্যেষ্ঠ মুখ রয়েছে যাদের আজ অবধি রেলযাত্রার অভিজ্ঞতার সুযোগ হয়নি। কারণ সেই একটাই, বৃহত্তর বরিশালে রেল যোগাযোগ নেই বলে। স্বাধীনতার ৪৪ বছরেও বরিশাল পেল না রেলের দেখা! রেলযাত্রার অভিজ্ঞতা নিতে হলে আমাদের বিশেষ ভাবে উদ্দেশ্য নিয়ে যেসব জেলায় রেল যোগাযোগ আছে সেখানে যেতে হয়। কম সময়ে গন্তব্যে পৌঁছা, যানজটহীন, দ্রুতগামী এমন একটি যোগাযোগ ব্যবস্থা থেকে গোটা দক্ষিণাঞ্চল আজও বঞ্চিত হয়ে আছে।

স্বাধীনতার পর থেকে একটা দীর্ঘ সময়ে আমাদের রেল যোগাযোগের যতটুকু অগ্রগতি হয়েছে তা নিতান্তই নগণ্য। বিশ্বের উন্নত রাষ্ট্রগুলো রেল যোগাযোগ ব্যবস্থার উপর গুরুত্ব দিয়ে তাদের যোগাযোগ ব্যবস্থায় যে বিপ্লব ঘটিয়েছে, আমাদেরও সেই দৃষ্টান্ত থেকে শিক্ষা নিতে হবে। আমাদের রেল মন্ত্রণালয়ের অনেক কাজ করার আছে। বিশেষ করে যাত্রীসেবার মানের দিকে দৃষ্টি দিতে হবে। দুই বৃহৎ উৎসবে যাত্রীরা যে ঝুঁকি নিয়ে যাত্রা করে বিশ্বের আর কোন দেশে এমন দৃষ্টান্ত আছে কিনা আমার জানা নেই। যাত্রীদের এই ঝুঁকিপূর্ণ যাত্রা কমাতে রেল মন্ত্রণালয়ের যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণে আরও আন্তরিক হতে হবে। এছাড়া সিডিউল বিপর্যয়, টিকিট প্রাপ্তির সমস্যা, নির্বিঘœ যাত্রার নিশ্চয়তা ইত্যাদি ক্ষেত্রে কঠোর নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থার দিকে গভীর মনোনিবেশ করতে হবে। আমাদের শহরকেন্দ্রিক যে যানজট সমস্যা, এই সমস্যা সমাধানেও ব্যাপক ভূমিকা রাখতে পারে রেল যোগাযোগ ব্যবস্থা।

তবে বর্তমানে কিছু আশার বাণী হলো- পৃথক একটি মন্ত্রণালয় হয়েছে, নতুন নতুন রেল সড়ক সংযোগ ও বগী সংযোজন হচ্ছে। আর বরিশালবাসী তথা বৃহত্তর দক্ষিণাঞ্চলের মানুষের জন্য আশার বাণী হলো পদ্মা সেতু। এখন সরকারের প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী সুদৃষ্টি নিশ্চিত হলে অচিরেই বরিশাল রেলের দেখা পাবে, এমনটা ভাবতে ভালো লাগছে।

বরিশাল থেকে