২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

দীপু হাজরার দেশের গানের মিউজিক ভিডিও

সংস্কৃতি ডেস্ক ॥ প্রথমবারের মতো মিউজিক ভিডিও নির্মাণ করলেন জনপ্রিয় নাট্য নির্মাতা দীপু হাজরা। শিশুশিল্পী আতিকা রহমান মম’র গাওয়া ‘শোন শোন বাংলাদেশ শোন’ শিরোনামের দেশের গানের ভিডিওটি নির্মাণ সম্প্রতি শেষ করেছেন। গত এক বছর ধরে দেশের বিভিন্ন জেলার মনোরম লোকেশনে গানটির শূটিং করা হয়েছে। মিউজিক ভিডিওর মডেল হয়েছেন নায়করাজ রাজ্জাক, বরেণ্য সঙ্গীত শিল্পী সাবিনা ইয়াসমিন, সৈয়দ আব্দুল হাদী, ফুটবলার সালাউদ্দিন, এভারেষ্ট বিজয়ী মুসা ইব্রাহিম, অভিনেতা মীর সাব্বির, অপূর্ব প্রমুখ। এছাড়া প্রায় তিন হাজারেরও বেশী মানুষ এতে অংশ নিয়েছেন। ভিডিও গানটির সুর ও সঙ্গীত করেছেন ফরিদ আহমেদ। বিজয় দিবসকে সামনে রেখে আগামী ১ ডিসেম্বর থেকে দেশের সবগুলো টিভি চ্যানেলে গানটি প্রচার শুরু হবে বলে দীপু হাজরা জানিয়েছেন। এ প্রসঙ্গে দীপু হাজরা বলেন, দেশের গানের প্রতি প্রতিটি মানুষেরই দুর্বলতা থাকে। আমিও এর বাইরে নই। দেশের জন্য কিছু করা যায় কিনা সেই তাড়না থেকেই এই প্রচেষ্টা। আতিকা রহমান মম’র বয়স ১২ বছর। আমার ধারণা এই গানটি তার ক্যারিয়ারের টার্নিং পয়েন্ট হবে। আমি ওর মধ্যে যে সম্ভাবনা দেখেছি তাতে আমার মনে হয়েছে, হয়তো ভবিষ্যতে ও একজন বড় মাপের শিল্পী হতে পারে। গানটি নানা আঙ্গিকে, নানা বৈশিষ্টে, নানা বৈচিত্রে নির্মান করার চেষ্টা করেছি। অনেক কষ্টসাধ্য ও ব্যয়বহুল একটি কাজ এটি। ভিডিওতে দেশের যতগুলো আধুনিক প্রযুক্তি আছে আমি তার প্রায় সব কিছুই ব্যবহার করেছি। আশা করছি দর্শকদের কাছে ভিডিওটি ভাল লাগবে।

আরটিভিতে ‘খেয়া’

সংস্কৃতি ডেস্ক ॥ আরটিভিতে প্রচার শুরু হয়েছে নতুন ধারাবাহিক নাটক ‘খেয়া’। আনিসুল হকের রচনায় নাটকটি পরিচালনা করেছেন সকাল আহমেদ। নাটকের বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন, রাইসুল ইসলাম আসাদ, ওয়াহিদা মল্লিক জলি, আল-মুনসুর, আফরান নিশো, তিশা, শর্মিলী আহম্মেদ, এস এম মহসীন প্রমূখ। নাটকটি প্রতি সপ্তাহে তিন দিন সোম, মঙ্গল ও বুধবার রাত ৮-২৯ মিেিনট আরটিভিতে প্রচার হবে। নাটকের গল্পে দেখা যাবে, ৫০ বছর বয়সী আবিদুর রশিদ একজন সাদামাটা ছা-পোষা ভদ্রলোক। ১ ছেলে ও ১ মেয়ে, স্ত্রী ও বৃদ্ধ মাকে নিয়ে ছিমছাম নিম্নমধ্যবিত্ত পরিবার। জীবনে চাওয়া-পাওয়া বলতে এখন তার ছেলে- মেয়ে। পেশা বলতে, ভাগ্যক্রমে পেয়ে যাওয়া একটা দোকান, নাম পারাপার ষ্টোর। একমাত্র মেয়ে খুকু যেমন সুন্দরী, তেমনি মেধাবী, বুদ্ধিমতি। মেয়ে চায়না বাবা এই ব্যাবসা করুক, যে কারণে মাঝে মধ্যেই বাবাকে আঘাত দিয়ে, খোচা দিয়ে কথা বলে ফেলে। পরিশেষে নিজেই কষ্ট পায়, আড়ালে লুকিয়ে লুকিয়ে কাঁদেও। আবিদুর রশিদের এটা পছন্দ না। মানুষ মরলে তার ব্যাবসা। কিন্তু তার তো কিছু করারও নেই, এই দোকান দিয়েই সংসারটা কোনো

রকম চলে।