১৩ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ঢাকার মঞ্চে গাইবেন দুই বাংলার শিল্পী অনুপম-ন্যান্সি-পারভেজ

  • সংস্কৃতি সংবাদ

স্টাফ রিপোর্টার ॥ কলকাতায় ২০১০ সালে সৃজিত মুখার্জির ‘অটোগ্রাফ’ চলচ্চিত্রে ‘আমাকে আমার মতো থাকতে দাও’ গানটি গেয়ে আলোড়ন ফেলে দিয়েছিলেন শিল্পী অনুপম রায়। এরপর আর পেছনে তাকতে হয়নি এই সৃজনশীল শিল্পীকে। নিজেই গান লেখা, সুর করা ও গাওয়া তাঁর এখন সহজাত প্রবৃত্তি। ‘চলো পাল্টাই’ সিনেমায় তাঁর ‘বাড়িয়ে দাও’সহ বেশ কয়েকটি গান জনপ্রিয়তা পায়। তবে তাঁর জনপ্রিয়তার বৃহস্পতি শুরু হয় ‘বাইশে শ্রাবণ’ চলচ্চিত্রের মাধ্যমে। এরপর কলকাতার অনেক ছবির গান লিখেছেন, গেয়েছেন ও সুর করেছেন তিনি। এ বছর সুজিত সরকারের ‘পিকু’ (অমিতাভ বচ্চন, দীপিকা পাড়ুকোন, ইরফান খান) ছবির মাধ্যমে বলিউডে সঙ্গীত পরিচালক হিসেবে অভিষেক হয়েছে তাঁর। ভারতের বাংলা ভাষার সমসাময়িক উদীয়মান তরুণ গায়ক, গীতিকার এবং সুরকারদের মধ্যে অন্যতম অনুপম রায়। আগামী ২৩ নবেম্বর বসুন্ধরা ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সেন্টারের আইসিসি অডিটরিয়ামে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে শিল্পী অনুপম রায়ের গানের অনুষ্ঠান। এতে গাইবেন বাংলাদেশের জনপ্রিয় শিল্পী ন্যান্সি ও পারভেজ। ‘দুই বাংলার গান’ শীর্ষক ধারাবাহিক কনসার্টের প্রথম এ আয়োজনের শিরোনাম ‘ক্যাচ অনুপম রায় লাইভ ইন ঢাকা।’ ধারাবাহিক কনসার্টটির উদ্যোক্তা অন্তর শোবিজ। এগুলোর টিকেট অনলাইনে বিক্রি করবে সহজ ডটকম।

কনসার্ট উপলক্ষে রাজধানীর এক রেস্টুরেন্টে বুধবার সকালে সংবাদ সম্মেলন হয়। এতে অন্তর শোবিজ ও সহজ ডটকম উভয় পক্ষের মধ্যে কনসার্টের চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন অন্তর শোবিজ লিমিটেডের চেয়ারম্যান স্বপন চৌধুরী, সহজ ডটকমের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মালিহা এম কাদির, শিল্পী পারভেজসহ অনেকে। সংবাদ সম্মেলনটি ছিল মূলত অনলাইন টিকেট প্ল্যাটফর্ম সহজ ডটকমের সঙ্গে অন্তর শোবিজের চুক্তি স্বাক্ষরের অনুষ্ঠান।

শুরুতে বক্তব্য রাখেন অন্তর শোবিজ লিমিটেডের চেয়ারম্যান স্বপন চৌধুরী। তিনি বলেন, দেশের অধিকাংশ বড় বিনোদনমূলক অনুষ্ঠানের আয়োজনে অন্তর শোবিজের সুনাম রয়েছে। ইতিপূর্বে আমরা বলিউডের কিং শাহরুখ খানকেও এদেশে এনেছিলাম। এবার দুই বাংলার ভাল শিল্পী নিয়েই আমাদের ধারাবাহিক এ আয়োজন। দুই বাংলার গান- এমন ভাবনা আমার অনেকদিনের। আমাদের দেশের শ্রোতাদের দারুণ পরিবেশে গান শোনার সুযোগ খুব কম। এর আগে অনুষ্ঠানগুলোতে ব্যাপক জনসমাগম দেখে আমরা মুগ্ধ, শ্রোতাদের কাছে আমরা দায়বদ্ধ। একইসঙ্গে আমরা বাংলা গানের দারুণ সব শ্রোতাও তৈরি করতে চাই। আপনারা জানেন, কলকাতার শিল্পী অনুপম রায় এখন কতটা জনপ্রিয়। তিনি নিজেই গান লেখেন, সুর করেন এবং গান গান। সব কিছুকে ছাপিয়ে যায় অনুপম রায়ের স্টেজ পারফর্মেন্স। আমাদের দেশে গানের ক্ষেত্রে ন্যান্সি ও পারভেজের নাম সর্বাগ্রে। তাই আমরা চেষ্টা করছি দুই বাংলার শিল্পীদের নিয়ে বিশেষ এ আয়োজনটিকে সবার কাছে তুলে ধরতে।

সহজ ডটকমের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মালিহা এম কাদির বলেন, দুই প্রতিষ্ঠানের যৌথ আয়োজনে এ ধরনের একটি কনসার্টকে সফলভাবে এগিয়ে নিতে গণমাধ্যমেরও সহযোগিতা প্রয়োজন। তাহলে আরও বড় বড় অনুষ্ঠানের আয়োজন করতে আমাদের সুবিধা হবে। সহজ ডটকম সবসময় নতুন প্ল্যাটফর্ম তৈরিতে আগ্রহী। এই প্রথমবারের মতো আমরা বিনোদনমূলক কোন আয়োজনের সঙ্গে সম্পৃক্ত হলাম। এটা আমাদের অনেক বড় এক পদক্ষেপ। অন্তর শোবিজের সব বিনোদনমূলক আয়োজনের টিকেট এখন থেকে সহজ ডটকমেই পাবেন দর্শক-শ্রোতারা। তিনি জানান, এবার আধুনিক গানের আসরের আয়োজন করলেও আগামীতে আমরা রবীন্দ্রসঙ্গীত, ব্যান্ড ও রক ফেস্টিভ্যালেরও আয়োজন করতে চাই।

সঙ্গীতশিল্পী পারভেজ বলেন, নিঃসন্দেহে এতবড় একটি আয়োজন হতে যাচ্ছে দুটি প্রতিষ্ঠানের সহযোগিতায়। আর এতে আমার মতো একজন শিল্পীকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে গান গাওয়ার জন্য, সত্যিই খুব ভাল লাগছে। দেশে আরও বেশি বেশি করে এ ধরনের আয়োজন হলে আমরা শিল্পীরাও উপকৃত হব এবং শ্রোতারাও ভাল শিল্পীদের গান শুনতে পারবে। সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, বসুন্ধরা ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সেন্টারের আইসিসি অডিটরিয়ামে ২৩ নবেম্বর সন্ধ্যা ৭টায় ‘ক্যাচ অনুপম রায় লাইভ ইন ঢাকা’ কনসার্টের যাবতীয় কাজ ইতোমধ্যে সম্পন্ন করা হয়ে গেছে এবং ০১৭১১৬৬৬১২৯ নম্বরে ফোন করে টিকেটের যাবতীয় সব খবর পাওয়া যাবে। এছাড়া আগামী ২২ নবেম্বরও দ্বিতীয়বারের মতো সংবাদ সম্মেলনের ঘোষণা দেয়া হয়।

শিল্পকলায় “এক শ বস্তা চাল” মঞ্চস্থ ॥ জাতিকে তৈরি করতে শিক্ষা যে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয় তা “এক শ’ বস্তা চাল” মঞ্চ নাটকে তা স্পষ্ট। শিক্ষাকে সাধারণ মানুষের মাঝে পৌঁছে দিতে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি ও ঢাকাস্থ জাপান দূতাবাসের যৌথ উদ্যোগে ২০০৬ সালে এ নাটকের প্রযোজনাটি মঞ্চে আসে। নাটকটি ২০০৮ সালে ইন্টারন্যশনাল থিয়েটার ইনস্টিটিউট (আইটিআই) থেকে ‘উচিমুরা’ এবং ২০১১ সালে জাপানের ‘কোমে হিয়াপ্পিও’ পুরস্কারে ভূষিত হয়। নাটকটির ৭৫তম প্রদর্শনী হয় শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় নাট্যশালার প্রধান মিলনায়তনে বুধবার সন্ধ্যায়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর। বিশেষ অতিথি ছিলেন ঢাকাস্থ জাপান দূতাবাসের রাষ্ট্রদূত মাশাতো ওয়াতানাবে। সভাপতিত্ব করেন শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক লিয়াকত আলী লাকী। স্বাগত বক্তব্য রাখেন একাডেমির নাট্যকলা ও চলচ্চিত্র বিভাগের পরিচালক সারা আরা মাহমুদ এবং শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন নাটকের নির্দেশক নাট্যজন গোলাম সারোয়ার। জাপানী নাট্যকার ইয়াজো ইয়ামামতোর রচনায় নাটকটি অনুবাদ করেছেন অধ্যাপক আব্দুস সেলিম। নাটকটির বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন ফয়েজ জহির, জুনায়েদ ইউসুফ, খুরশিদ, গোলাম শফিক, আবুল কালাম আজাদ সেতু, নুরুজ্জামান রাজা, সিক্ত, জয়িতা, পিয়া, তন্ময়, সুকর্ণ, তাওহীদ ও আজাদ।