১৩ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সাফল্যই নারীর অনুপ্রেরণা

সাফল্যই নারীর অনুপ্রেরণা
  • সেরেনা উইলিয়ামস

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ টেনিস কোর্টে অপ্রতিরোধ্য সেরেনা উইলিয়ামস। কোর্টের বাইরেও মাঝে মাঝে ঝলক দেখাতে দেখা যায় আমেরিকান টেনিস তারকাকে। তবে বছরের শেষ বিশ্রামের সময়টা র‌্যাম্পে হেঁটেই কাটালেন তিনি। সোমবার হাঁটলেন ২০১৫ গ্ল্যামার ওমেন অব দ্য ইয়ার এ্যাওয়ার্ডের লাল গালিচায়। যা নিউ ইয়র্কের কারনেগি হলে অনুষ্ঠিত হয়েছিল। সেরেনা উইলিয়ামস ছাড়াও এই এ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন আমেরিকার জাতীয় দলের ফুটবলার এ্যাবি ওয়ামবাখ, হোপ সোলো এবং এ্যালেক্স মরগানের মতো তারকারা।

তবে এ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানে সবারই নজর কুড়িয়েছেন সেরেনা উইলিয়ামস। নিজের প্রিয় ডিজাইন করা কালো রঙের পোশাক পড়ে লাল গালিচায় হাঁটেন তিনি। আর তাতেই মুগ্ধ করেন ভক্ত-অনুরাগীদের। পরবর্তীতে এ্যাওয়ার্ড অনুষ্ঠানের বেশ কিছু ছবি নিজের ইন্সটাগ্রামে পোস্টও করেছেন সেরেনা। অনুষ্ঠানের শেষে এক সাক্ষাতকারে নিজের সাফল্যের রহস্য সম্পর্কে কথা বলেন তিনি। শুধু তাই নয়, একজন নারীর সাফল্য অন্যদের জন্য অনুপ্রেরণাদায়ক হওয়া উচিত বলেও মন্তব্য করেছেন আমেরিকান কিংবদন্তি। এ বিষয়ে সেরেনা উইলিয়ামস বলেন, ‘প্রতিটি মহিলার সাফল্যই অন্য নারীদের জন্য অনুপ্রেরণাদায়ক হওয়া উচিত। আমাদের একে অপরের সহযোগিতায় এগিয়ে আসা উচিত। এটা নিশ্চিত করতে হবে যে আমি খুবই সাহসী, শক্তিশালী এবং দয়ালু সর্বোপরি একজন মানবিক।’

আমেরিকান টেনিসের জীবন্ত কিংবদন্তি সেরেনা উইলিয়ামস। অসাধারণ পারফর্মেন্সের সৌজন্যে নিজেকে নিয়ে গেছেন ইতিহাসের সোনালি পাতায়। সুদীর্ঘ ক্যারিয়ারে জিতেছেন ২১ গ্র্যান্ডসøাম। চলতি বছরের শেষ মেজর টুর্নামেন্ট ইউএস ওপেনের সেমিফাইনালে না হারলে ‘ক্যালেন্ডার সøাম’ জয়ের অবিস্মরণীয় রেকর্ডটাও হয়ে যেত তার। তবে টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে থেকেই মৌসুম শেষ করছেন সেরেনা উইরিয়ামস। শুধু তাই নয়, দীর্ঘদিন পর র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ দশে উঠে এসেছেন তার বড় বোন ভেনাস উইলিয়ামসও। সপ্তাহের শেষে ঝুনহাই মাস্টার্সের শিরোপা জেতার পুরস্কার হিসেবেই যুক্তরাষ্ট্রের টেনিস তারকা ভেনাস সর্বশেষ প্রকাশিত ডব্লিউটিএ বিশ্ব র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ দশে উঠে এসেছেন তিনি। ১১তম স্থান থেকে চার ধাপ উপরে উঠে তিনি এখন সাত নম্বরে অবস্থান করছেন। আর এর মাধ্যমে দীর্ঘদিন পরে ছোট বোন সেরেনার সঙ্গে শীর্ষ দশে নিজের জায়গা করে নিতে পারায় রোমাঞ্চিত ভেনাস।

১৯৯৫ সালে ৩৮ বছর বয়সে মার্টিনা নাভ্রাতিলোভা ডব্লিউটিএ র‌্যাঙ্কিংয়ে শীর্ষ দশজনের মধ্যে জায়গা পাওয়ার পরে সবচেয়ে বেশি বয়সী খেলোয়াড় হিসেবে এবার স্থান করে নিলেন ৩৫ বছর বয়সী ভেনাস। ২০০২ সালের ফেব্রুয়ারিতে সর্বশেষ ডব্লিউটিএ র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ স্থানে নিজেকে আসীন করেছিলেন পাঁচবারের উইম্বল্ডন, দুইবারের ফ্ল্যাশিং মিডোর বিজয়ী ভেনাস। ছোট বোন ভেনাস অবশ্য বেশ কিছুদিন ধরেই এক নাম্বার স্থানটা নিজের কাছে রেখেছেন। ৯,৯৪৫ রেটিং পয়েন্ট নিয়ে ৩৪ বছর বয়সী সেরেনা এখনও বিশ্ব টেনিস র‌্যাঙ্কিংয়ের এক নাম্বার তারকা। বেশ খানিকটা পিছিয়ে ৬০৬০ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রোমানিয়ার সিমোনা হালেপ।