২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

নিকলীতে কবিরাজের ভুল চিকিৎসায় কিশোরের মৃত্যু

নিজস্ব সংবাদদাতা, কিশোরগঞ্জ ॥ জেলার নিকলীতে কবিরাজের ভুল চিকিৎসায় ইমন মিয়া (১২) নামে এক কিশোরের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনার পর অভিযুক্ত তুরুক কবিরাজ (৪৫) পলাতক রয়েছে। পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে বৃহস্পতিবার দুপুরে ময়নাতদন্তের জন্য জেলা হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। এ ব্যাপারে নিহতের বাবা বাদী হয়ে অভিযুক্ত কবিরাজের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

পুলিশ ও সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, নিকলী সদরের খালিশার হাটি গ্রামের হেলাল উদ্দিনের ছেলে ইমন মিয়া তিনদিন আগে বাড়ির পাশে নদীতে মাছ ধরার সময় টেংরা মাছ কাটা পুটালে অসুস্থ হয়ে পড়ে। পরে তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার উন্নত চিকিৎসার জন্য জেলা হাসপাতালে যাওয়ার পরামর্শ দেন। কিন্তু ইমনের বাবা তাকে জেলা হাসপাতালে ভর্তি না করে বাড়িতে নিয়ে যায়। বুধবার সন্ধ্যায় ইমনের স্বাস্থ্যের অবস্থা অবনতি ঘটে।

নিহতের বাবা হেলাল উদ্দিন জানান, ছেলের অসুস্থতার খবর পেয়ে রাতে উপজেলার ষাটধার গ্রামের মৃত শুক্কুর আলীর ছেলে হোসেন আলী ওরফে তুরুক কবিরাজ (৪৫) বাড়িতে আসেন। এ সময় কবিরাজ ইমনকে দেখে উপরি (জ্বীন) ধরেছে মন্তব্য করে তাৎক্ষণিকভাবে সুস্থ করে তুলতে পারবেন বলে তাকে জানায়। পরে তুরুক কবিরাজ লম্বা কচুর ডগায় সরিষার তেল মেখে জোরপূর্বক ইমনের দুই নাকে প্রবেশ করালে ঘটনাস্থলেই ইমনের মৃত্যু হয় বলে তিনি জানান।

খবর পেয়ে নিকলী থানার ইনচার্জ একেএম মাহবুবুল আলম সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থল গিয়ে কবিরাজের ব্যবহৃত কচুর ডগা, তেল, ঔষধ ও ডাক্তারের ব্যবস্থাপত্র উদ্ধার করেন। এ ঘটনার পর অভিযুক্ত কবিরাজ পলাতক রয়েছে এবং নিহতের বাবা বাদীয় হয়ে থানায় মামলা দায়ের করেছেন বলে ওসি জানান।