২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আমি ভীত নই, মর্মাহত ॥ গিরীশ কারনাড

ভারতে অসহিষ্ণুতা ক্রমেই ছড়িয়ে পড়ছে। এ পরিস্থিতিতে প্রতিনিয়ত খুন হচ্ছে কবি, সাহিত্যিক থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষও। আর এরই ধারাবাহিকতায় এবার খুনের হুমকি পেলেন নাট্যকার, অভিনেতা তথা পরিচালক গিরীশ কারনাড (৭৭)। তবে বৃহস্পতিবার এতে তিনি বিন্দুমাত্র ভীত নন বলে জানিয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন, আমি বিন্দুমাত্র ভীত নই বরং মর্মাহত। খবর এনডিটিভি ও আনন্দবাজার পত্রিকার।

অসহিষ্ণুতার আবহে নতুন সংযোজন হয়েছে কর্নাটককে ঘিরে। টিপু সুলতান স্মরণের অনুষ্ঠান নিয়ে সংঘর্ষে গত কয়েক দিন ধরেই উত্তাল কর্নাটক। নাট্যকার তথা অভিনেতা গিরীশ কারনাডকে কট্টরবাদীদের হুমকি, এম এম কালবুর্গির মতো খুন করা হবে তাকেও। টিপু সুলতানকে স্মরণ করে সভা প্রসঙ্গে রাজ্য সরকারের সমালোচনা করায় আর এক দল মৌলবাদী প্রাণনাশের হুমকি দিল বিজেপি নেতা প্রতাপ সিনহাকেও। কংগ্রেস শাসিত কর্নাটকের রাজ্য সরকার টিপু সুলতানের জন্মজয়ন্তী পালনের আয়োজন করেছে ধুমধাম করে। শুরু থেকেই এর বিরোধিতায় পথে নেমেছে আরএসএস এবং বিশ্ব হিন্দু পরিষদ। কট্টর হিন্দুত্ববাদী এই দুই সংগঠনের দাবি, টিপু সুলতান মৌলবাদী শাসক ছিলেন। তার রাজত্বে হিন্দু ও খ্রিস্টানরা অত্যাচারিত হতেন। টিপু স্মরণ অনুষ্ঠান বাতিল করতে বলে আন্দোলনে নামে সঙ্ঘ পরিবার। বিরোধী দল বিজেপিও সরকারী অনুষ্ঠান বয়কট করেন। মুখ্যমন্ত্রী সিদ্দারামাইয়া অবশ্য বিরোধিতায় কান দেননি। তিনি বলেন, টিপু সুলতান দেশভক্ত ছিলেন। তিনি স্বাধীনতার জন্য সংগ্রাম করেছেন। তাই তাকে স্মরণ করা হচ্ছে। রাজ্য সরকার আয়োজিত অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েছিলেন নাট্যকার তথা অভিনেতা গিরীশ কারনাড। বেঙ্গালুরু কেম্পেগৌড়া আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের নামকরণ অষ্টাদশ শতকের শাসক টিপু সুলতানের নামে হওয়া উচিত বলে জানিয়েছিলেন কারনাড। তার প্রেক্ষিতেই টুইটারে তাকে খুনের হুমকি দেয়া হয়। এরপরই তাকে হত্যার হুমকি দেয়া হয়। এম এম কালবুর্গির যে অবস্থা হয়েছে, গিরীশ কারনাডেরও তাই হবে বলে টুইটারে হুমকি দেয়া হয়। গিরীশ কারনাড এরপর বলেন, তার মন্তব্যে কেউ আঘাত পেয়ে থাকলে তিনি দুঃখিত। তবে খুনের হুমকিতে তিনি একেবারেই ভীত নন।

সাম্প্রদায়িক রাজনীতিই কর্নাটকে বিরূপ পরিস্থিতি সৃষ্টি করেছে বলে জানিয়েছেন কারনাড। তিনি বলেন, এটি সাধারণ মানুষের কাজ নয়। এর নেতৃত্বে রয়েছেন রাজনৈতিক নেতারা। আমি কাউকে আঘাত করার জন্য কোনও মন্তব্য করিনি। আমার কথা কারও খারাপ লাগলে আমি ক্ষমাপ্রার্থী। কিন্তু খুনের হুমকির কথা প্রকাশ্যে আসতেই তিনি বলেন, আসল সমস্যা টিপু সুলতানকে নিয়ে নয়। যা ঘটছে, তা আসলে আমাদের দেশের বর্তমান রাজনৈতিক পরিস্থিতির একটা দৃষ্টান্ত। এর নেতৃতে সাধারণ মানুষ নেই। নেতৃত্ব দিচ্ছেন রাজনৈতিক নেতারা, যাদের বোধবুদ্ধি একটু বেশি বলে আমরা মনে করি। এম এম কালবুর্গির মতো তাকেও খুন করা হবে বলে যে টুইট-হুমকি এসেছে, সে প্রসঙ্গে কারনাড বলেন, সৌভাগ্যবশত আমি ফেসবুক বা টুইটারে নেই। তাই হুমকির কথা আমি জানি না।