২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

দিনাজপুরে অপহৃত শিশুর লাশ উদ্ধার ॥ ৬ বাড়িতে অগ্নিসংযোগ

স্টাফ রিপোর্টার, দিনাজপুর ॥ দিনাজপুরে মুক্তিপণের দাবিতে অপহৃত ৪ বছরের শিশু পরশকে হত্যা করেছে একদল অপহরণকারী। বিক্ষুব্ধ জনতা ৬ অপহরণকারীর বাড়িতে আগুন ধরিয়ে ভাংচুর করেছে। পুলিশ ২ মহিলাসহ ৭ জনকে আটক করেছে। বৃহস্পতিবার ভোরে ঘোড়াঘাট উপজেলার পৌর কেন্দ্রীয় কবরস্তানের পশ্চিমে লালবাবুর আমবাগান থেকে পুলিশ অপহৃত শিশু পরশের লাশ উদ্ধার করে। জানা যায়, ঘোড়াঘাট পৌর এলাকার কাদিমনগর গ্রামের গার্মেন্টস ব্যবসায়ী কেশব সাহার শিশুপুত্র পরশকে একই গ্রামের জিল্লুর ও মামুন বুধবার বিকেলে পূজা চলাকালীন কালীমন্দির থেকে অপহরণ করে নিয়ে যায়। পরে অপহৃত শিশুর অভিভাবকগন অনেক খোঁজাখুঁজির পর না পেয়ে পুলিশে খবর দেন। এলাকাবাসী বৃহস্পতিবার সকালে অপহৃত শিশুর লাশ দেখতে পেয়ে ঘোড়াঘাট থানায় জানালে পুলিশ শিশুর লাশ উদ্ধার করে। মুক্তিপণ দিতে বিলম্ব হওয়ায় অপহরণকারীরা শিশু পরশকে শ্বাসরোধ ও একটি চোখ তুলে হত্যা করে। নিহত শিশুর লাশ দিনাজপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে দুপুরে ময়নাতদন্তের পর স্বজনের কাছে হস্তান্তর করা হয়। ময়নাতদন্তকারী ডাক্তার দিমেকের ফরেনসিক বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মোঃ আমির আলী জানান, শিশু পরশকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়। ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে পুলিশ বৃহস্পতিবার সকালে ৭ জনকে আটক করে। শিশু পরশের লাশ উদ্ধারের পর বিক্ষিপ্ত জনতা অপহৃতদের ৬টি বাড়িতে অগ্নিসংযোগ ও ভাংচুর করে।

লক্ষ্মীপুরে স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা বিএনপি কর্মীর হাতে নিহত

নিজস্ব সংবাদদাতা, লক্ষ্মীপুর, ১২ নবেম্বর ॥ সদর উপজেলার কাটাখালী গ্রামে জিল্লাল বাহিনীর হামলায় নিহত স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা নূর হোসেন মিঠুর শ্বশুরের জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে বিএনপি নামধারী জিল্লাল বাহিনীর লোকদের হামলায় নিহত হয়েছে। তিনি ছিলেন, লক্ষ্মীপুর পৌর আইডিয়েল ল’ কলেজের দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্র। জানা গেছে, বুধবার সকালে শ্বশুরবাড়ি সংলগ্ন চায়ের স্টল থেকে নিজবাড়ি কাটালী ফেরার পথে জিল্লাল বাহিনীর লোকেরা নূর হোসেন মিঠুকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। স্বজনরা উদ্ধার করে গুরুতর অবস্থায় তাকে সদর হাসপাতালে ভর্তির পর অবস্থার অবনতি ঘটে। পরে ঢাকা নেয়ার নেয়ার পথে রাতে সে মারা যায়। তিনি কুশাখালী ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি বলে সদর উপজেলা সভাপতি শরীফ হোসেন জানিয়েছেন।

গোপালগঞ্জে আট দোকান পুড়ে ছাই

নিজস্ব সংবাদদাতা, গোপালগঞ্জ, ১২ নবেম্বর ॥ কোটালীপাড়ার ঘাঘর বাজারে অগ্নিকা-ে ৮ দোকানঘর পুড়ে গেছে। ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে আরও কয়েকটি দোকানঘর। আগুন নেভাতে গিয়ে আহত হয়েছে অন্তত ১০ জন। এতে কোটি টাকারও বেশি ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করেছে ক্ষতিগ্রস্ত দোকান-মালিকরা। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার বেলা ৩টার দিকে ওই বাজারের জয়নাল মিয়ার একটি লেপ-তোশকের দোকান থেকে অগ্নিকা- শুরু হয়।

নির্বাচিত সংবাদ