২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

‘টি২০ বিশ্বকাপেই মূল ফোকাস’

‘টি২০ বিশ্বকাপেই মূল ফোকাস’
  • বাংলাদেশ অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজা

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ আগামী বছর মার্চ-এপ্রিলে ভারতে হবে টি২০ বিশ্বকাপ। এ বিশ্বকাপ নিয়েই মূল ফোকাস আছে বাংলাদেশ দলের। এখন থেকেই বিশ্বকাপ নিয়ে ভাবতে চায় বাংলাদেশ। এজন্য সেরা কম্বিনেশনটাও তৈরি করে ফেলতে চায়। প্রথম টি২০ দিয়ে আজ জিম্বাবুইয়ের বিপক্ষে দুই ম্যাচের টি২০ সিরিজ শুরু হচ্ছে। এ সিরিজেই কম্বিনেশন ঝালিয়ে দেখতে চায় বাংলাদেশ। অধিনায়ক মাশরাফি বিন মর্তুজাই বৃহস্পতিবার এমনটি জানিয়েছেন। সংবাদ সম্মেলনে মাশরাফির বলা কথাগুলোই সারসংক্ষেপে তুলে ধরা হচ্ছে-

* টি২০তে সাফল্য প্রসঙ্গ-

মাশরাফি বিন মর্তুজা ॥ অবশ্যই, এটা সত্যি কথা। টি২০তে আমরা এখনও অতটা সফল নই। আর এটাও সত্যি যে তিন ওয়ানডে জেতার পর আমাদের আত্মবিশ্বাস ভাল থাকবে। আর আমরা মাঠে চেষ্টা করব সেই আত্মবিশ্বাস বয়ে নিয়ে যেতে। নিতে পারলে ফল আমাদের পক্ষে থাকবে আশা করি।

* কম্বিনেশন প্রসঙ্গ-

মাশরাফি ॥ সামনে যদি তাকাই, আমাদের এশিয়া কাপ আছে সামনে, এরপর টি২০ বিশ্বকাপ। একটাই সময়, যা করার এখনই করতে হবে। এরপর বিপিএল আছে, তারপর এশিয়া কাপ আছে। আগে-পরে অনুশীলন করব। সেরা কম্বিনেশন ঠিক করার চেষ্টা করছি আমরা। সেদিক থেকে বললে প্রস্তুতি এখন থেকেই শুরু করতে হবে। আমাদের প্রথম লক্ষ্য, আমার মতে সেরা কম্বিনেশনটা কেরি করা। কারণ এরপর আমাদের ওই সুযোগটা নাই কিছু খেলে কম্বিনেশন প্রস্তুত করা। জেতা তো অবশ্যই গুরুত্বপূর্ণ। তবে আরও গুরুত্বপূর্ণ কম্বিনেশন ঠিক করতে পারা।’

* রেজাল্ট প্রসঙ্গ-

মাশরাফি ॥ টি২০ এমন খেলা যে আগে থেকে অনুমানের সুযোগ নেই। সবসময় আক্রমণে থাকতে হয়। রক্ষণের জায়গা নেই। সেখানে ১-২টা উইকেট পড়ে গেলে বা যে কোন কিছু হলে, বড় দল ছোট দলের পার্থক্য কমে আসে। তবে সেটা নেতিবাচক ভাবনা আমি মনে করি। ইতিবাচকভাবে যদি ভাবি, আমরা ভাল খেলছি, সেটা যদি ধরে রাখতে পারি, পরিকল্পনা যেমন থাকে সেসব যদি বাস্তবায়ন করতে পারি, আশা করি সমস্যা হবে না।

* একাদশ প্রসঙ্গ-

মাশরাফি ॥ আমরা এখনও আলোচনা করিনি। সব বিকল্পই আছে, কথা বলছি কাকে কোথায় ব্যবহার করা যায়। সাকিব থাকলে কাজ আরও সহজ হতো। তারপর টপঅর্ডারে বিজয় আছে, লিটন আছে। এমনকি সাব্বিরকেও খেলানো যায়। টি২০ এমন একটি খেলা, ছয় নম্বরে এমন একজন ব্যাটসম্যান লাগে, যে কি না ২০ বলে ৪০ দরকার হলে করে ফেলবে। সবকিছু মাথায় রেখেই কম্বিনেশন করতে হবে। কম্বিনেশনটা বের করা জরুরী। সেটা শুধু একাদশ নয়, ১৫ জনেও। যাতে ঘুরিয়ে-ফিরিয়ে খেলাতে পারি। এমন নয় যে আমরা একটা ম্যাচ জিতেই আছি। সেই জয়ী কম্বিনেশন নিয়ে নামব। ১৫ জনের দিকেও চোখ রাখতে হবে যেন প্রতিপক্ষের শক্তি-দুর্বলতা ভেবে যেন একাদশ সাজাতে পারি, এজন্য কম্বিনেশনটাই বেশি জরুরী। জয় তো অবশ্যই। ক্রিকেটার ধরে নাম বলা কঠিন। কাউকে নিয়ে আলোচনা হয়নি। তিন সিমার নিয়ে আমরা এখন পর্যন্ত সফল হয়েছি। এই বছর বেশির ভাগ ম্যাচই এভাবে জিতেছি। দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে এক ম্যাচে আট ব্যাটসম্যান, এক স্পিনার, দুই সিমার ছিল। আমরা ম্যাচটা হেরেছি। কিন্ত আট ব্যাটসম্যান ও তিন সিমার নিয়ে জিতেছি। প্রতিপক্ষের দুর্বলতা চিন্তা করতে হবে, কিন্তু নিজেদের শক্তির জায়গাটাও ভাবতে হবে।

* সাকিব-সৌম্য-রুবেল-তাসকিনতের ফেরা প্রসঙ্গ-

মাশরাফি ॥ সাকিব সবসময়ই আমাদের গুরুত্বপূর্ণ ক্রিকেটার। সাকিব-সৌম্য স্বয়ংক্রিয় পছন্দ, ওরা যেভাবে খেলছে, সাকিব অনেক দিন থেকে খেলে আসছে। তাসকিন-রুবেল আছে।

তারপরও যেটা বললাম যে সঠিক পজিশনে সঠিক ক্রিকেটার খেলানো, এই কম্বিনেশটার কথা বলছি। চেষ্টা করছি যেন সফল হই। যেহেতু টি২০তে আমরা এখনও তত সফল নই। তার জন্য এই দুটি ম্যাচ খুব সঠিক সময়ে এসেছে। সাকিব না থাকা মানে আরেকজন ক্রিকেটারকে দেখার সুযোগ।

* বিশ্রাম প্রসঙ্গ-

মাশরাফি ॥ সাকিব থাকলে সত্যি কথা শেষ ওয়ানডে হয়ত আমি বিশ্রাম নিতে পারতাম। সাকিব যেহেতু নাই, আমাকে খেলতে হয়েছে। এখন প্রথম টি২০, আমি অবশ্যই খেলছি। শারীরিক অবস্থা, সামলে নিচ্ছি। সাকিব থাকলে কাজটা সহজ হতো অবশ্যই।

* রাব্বিকে সুযোগ দেয়া প্রসঙ্গ-

মাশরাফি ॥ কামরুল ইসলাম রাব্বিকে দেখার সুযোগ অবশ্যই আছে। আবার কম্বিনেশন গড়তে গিয়ে ব্যালেন্স হারিয়ে ফেললে কঠিন হবে। ১৪ জনের সবাইকে প্রস্তুত থাকতে বলা হয়েছে, যে কেউ নামতে পারে।

* ফোকাস প্রসঙ্গ-

মাশরাফি ॥ সামনে বিশ্বকাপ আছে, মূল ফোকাস ওটাই। এশিয়া কাপও। ইমরুলের কথা যদি বলেন, যেভাবে রান করছে, বাংলাদেশ দলের জন্য দারুণ ইতিবাচক। সৌম্য যেভাবে খেলছিল ওর জায়গাটা পাকাই ছিল। ইমরুলও জানে, সৌম্য ফিরলে জায়গা ফিরে পাবে। তারপরও ইমরুল যেভাবে খেলেছে, খুবই ভাল।

আমি বলব না যে সুযোগ নেই। সবারই সুযোগ আছে। টপঅর্ডারে অনেকের সুযোগ আছে। ৫ জন টপঅর্ডারে আছে। অনেক কিছু চিন্তা করতে হবে।