১২ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রায়ের পর রাকিবের পরিবার আতঙ্কে, থানায় জিডি

স্টাফ রিপোর্টার, খুলনা অফিস ॥ খুলনার চাঞ্চল্যকর শিশু রাকিব (১২) হত্যা মামলার রায় ঘোষণার পর থেকে আতঙ্কিত বোধ করায় রাকিবের পিতা নুরুল আলম বৃহস্পতিবার পরিবারের সদস্যদের নিরাপত্তা চেয়ে খুলনা থানায় একটি জিডি করেছেন। এদিকে খুলনার বিচারিক আদালতের ন্যায় হাইকোর্টেও রাকিব হত্যা মামলা পরিচালনার জন্য বাংলাদেশ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থাকে ক্ষমতা অর্পণ করেছেন মামলার বাদী রাকিবের পিতা নুরুল আলম। তিনি বৃহস্পতিবার এ সংক্রান্ত ওকালতনামা প্রদান করেছেন। বাংলাদেশ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থার মহাসচিব এ্যাডভোকেট সিগমা হুদা হাইকোর্টে বাদী পক্ষের মামলা পরিচালনা করবেন বলে জানা গেছে।

নির্মম হত্যাকা-ের শিকার শিশু রাকিবের পরিবারের পক্ষ থেকে জানানো হয়, গত ৮ নবেম্বর খুলনা মহানগর দায়রা জজ আদালতে রাকিব হত্যার রায় ঘোষণার পর থেকে অপরিচিত-অজ্ঞাতনামা কিছু ব্যক্তি মামলার বাদী নুরুল ইসলাম, তার স্ত্রী লাকি বেগম (৩৬) এবং মেয়ে রিমিকে (৯) বাড়ির আশপাশে ও চলাফেরার পথে ফলো করছে। মামলার বিচারকার্য চলাকালে কয়েক ব্যক্তি বাদীর মেয়ে রিমিকে আদালত চত্বর থেকে অপহরণের চেষ্টা করে। অজ্ঞাত ব্যক্তিরা সন্দেহজনকভাবে রাকিবের বাবাসহ অন্যদের অনুসরণ করায় পরিবারের সদস্যদের ক্ষতি হতে পারে বলে তারা আশঙ্কা করছে। যে কারণে মামলার বাদী রাকিবের পিতা নুরুল আলম বৃহস্পতিবার খুলনা থানায় একটি জিডি করেছেন। জিডি নং ৮৪৬, তারিখ ১২/১১/২০১৫ ইং।

এদিকে শিশু রাকিবের পরিবারের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার দাবি জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন বাংলাদেশ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থার জাতীয় কমিটির সদস্য ও খুলনা জেলা শাখার সভাপতি এ্যাডভোকেট আব্দুল মালেক, সাধারণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট এসআর ফারুক, সংস্থার খুলনা জেলা সমন্বয়কারী এ্যাডভোকেট মোঃ মোমিনুল ইসলাম, পিএফ মোঃ আজিজুর রহমান।

উল্লেখ্য, বিচারিক আদালত, খুলনা মহানগর দায়রা জজ আদালতে বাদী পক্ষকে আইনগত সহায়তা প্রদান করেছে বাংলাদেশ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থা। মামলার বিচারকার্য শেষে আসামি মোঃ শরিফ (৩০) এবং আসামি মোঃ মিন্টু খানকে (৩০) মৃত্যুদণ্ড প্রদান করেন এবং আসামি বিউটি বেগমকে (৪৮) খালাস প্রদান করে আদালত।