১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

স্থানীয় নির্বাচন একতরফা করতেই গণগ্রেফতার ॥ রিপন

স্টাফ রিপোর্টার ॥ ৫ জানুয়ারির জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মতো একতরফা স্থানীয় সরকার নির্বাচন করতেই বিরোধীদলের নেতাকর্মীদের গণগ্রেফতার করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন বিএনপির মুখপাত্র ও আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন। বৃহস্পতিবার দুপুরে নয়াপল্টন বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন। এদিকে দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে এক আলোচনা সভায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অব) হাফিজউদ্দিন আহমেদ বলেন, জিয়ার মাজার সরানোর দুঃসাহস দেখালে তা সর্বশক্তি দিয়ে প্রতিহত করা হবে।

রিপন বলেন, সারাদেশে নতুন করে গণগ্রেফতার শুরু হয়েছে। বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীদের বাড়িঘর তল্লাশি করা হচ্ছে। গত ক’দিনে প্রায় তিন সহস্রাধিক নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তিনি বলেন, প্রশাসন ও আইন প্রয়োগকারী সংস্থা বিভিন্ন সময়ে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে আসছিল। তা সত্ত্বেও আমরা দলের পুনর্গঠনের প্রক্রিয়া অব্যাহত রাখার এক পর্যায়ে হঠাৎ করে যৌথ অভিযানের নামে সারাদেশে নেতাকর্মীদের ধরপাকড় শুরু করেছে। বিএনপির কাউন্সিলের প্রস্তুতি বাধাগ্রস্ত করতে এবং আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনে বিরোধীদলের নেতাকর্মীরা যাতে নির্বাচনী প্রচার কাজে বের হতে না পারে সেজন্যই এ ধরনের অভিযান চালানো হচ্ছে । তিনি বলেন, মিয়ানমারের সামরিক জান্তা থেইন চেইনের মতো দেশের বর্তমান সরকারও একদিন উপলব্ধি করতে পারবে গণতন্ত্রই একমাত্র মুক্তির পথ।

আসাদুজ্জামান রিপন বলেন, দেশের সঙ্কটময় অবস্থায় সরকার হঠাৎ করেই স্থানীয় সরকার নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন ও দলীয় প্রতীকে নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত নিয়ে একটি বিল জাতীয় সংসদে উত্থাপন করেছে। যে সংসদ ৫ জানুয়ারির বিনা ভোটের নির্বাচনে গঠিত হয়েছিল এবং যার ১৫৪ জন সদস্যই বিনা ভোটে নির্বাচিত হয়েছেন। আমরা আগেও বলেছি দলীয় প্রতীকে স্থানীয় সরকার নির্বাচন হলে সমাজ আরও বিভাজিত হয়ে পড়বে এবং রাজনীতির বাইরে যেসব সমাজসেবী এসব নির্বাচনে অংশ নিতেন তাদের অংশগ্রহণ আর সম্ভব হবে না।

জিয়ার মাজার সরানোর দুঃসাহস দেখালে সর্বশক্তি দিয়ে প্রতিহত করা হবে- হাফিজ ॥ সরকারের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বিএনপির ভাইস-চেয়ারমান মেজর (অব) হাফিজ উদ্দিন আহমেদ বলেছেন, জিয়ার মাজার সরানোর মতো দুঃসাহস দেখালে তা সর্বশক্তি দিয়ে প্রতিহত করা হবে। বৃহস্পতিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে জাতীয়তাবাদী সাংস্কৃতিক দল ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এই হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন।

সরকারকে উদ্দেশ্য করে হাফিজ উদ্দিন আহমেদ বলেন, দৃষ্টিনন্দন জিয়ার মাজারটি জনগণের হৃদয়ে স্থান করে নিয়েছে। তাই লুই কানের নক্সার কথা বলে এ মাজার সরানোর মতো দুঃসাহস দেখাবেন না। তিনি বলেন, স্বাধীনতার মূলমন্ত্র ছিল গণতন্ত্র কিন্তু তা আজ নির্বাসিত। আজ সরকার গণতন্ত্রকে সম্পূর্ণভাবে হরণ করেছে। নিষ্ঠুর এ সরকার চায় কারাগারে বিএনপির নেতারা ধুঁকে ধুঁকে মৃত্যুবরণ করুক। তবে খালেদা জিয়া লন্ডন থেকে ফিরে এসে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের জন্য এবার যে আন্দোলনের ডাক দেবেন সে আন্দোলন রাজপথে থেকে সরকারের মরণ ঘণ্টা বাজিয়ে দেবে।

আয়োজক সংগঠনের সভাপতি জাহাঙ্গীর শিকদারের সভাপতিত্বে এ আলোচনা সভায় আরও বক্তব্য রাখেন- বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান, দলের সহ-তথ্যগবেষণা সম্পাদক হাবিবুর রহমান হাবিব, জাসাসের সহ-সভাপতি রফিকুল ইসলাম রফিক প্রমুখ।