২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ব্যবসায়ীদের দখলে নগরীর ফুটপাথ

মামুন-অর-রশিদ, রাজশাহী ॥ রাজশাহী নগরীর ফুটপাথ এখন প্রায় বেদখল হয়ে গেছে। ক্রমেই এসব ফুটপাথ দখল করে পসরা বসিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। ফুটপাথ দখল করে চলছে খাবার হোটেল। চুলা জ্বলছে রাস্তার ওপর। ফুটপাথ থেকে সরতে সরতে একেবারে রাস্তার ওপর এসে জ্বলছে চায়ের চুলা। পা রাখার জায়গা নেই ফুটপাথে। কোথাও হোটেল, কোথাও চুল কাটার সেলুন, আবার কোথাও সংগঠনের কার্যালয় সবই রয়েছে ফুটপাথে।

রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন (রাসিক) সূত্রে জানা গেছে, নগরীতে ৩২০ কিলোমিটার বড় রাস্তা রয়েছে। এই রাস্তার পাশ দিয়ে ২৪ কিলোমিটার টাইলস দিয়ে বাঁধানো ফুটপাথ রয়েছে। নগরীর শিরোইল বাস টার্মিনাল এলাকায় রাস্তার দক্ষিণ পাশে ফুটপাথের ওপর প্রায় ৫০টি দোকান রয়েছে। এগুলোর মধ্যে বেশিরভাগ পুরনো কাপড়ের দোকান। দক্ষিণ পাশে ভাতের হোটেল, চুল কাটার সেলুন থেকে শুরু করে একটি বিভিন্ন সংগঠনের কার্যালয়ও গড়ে উঠেছে।

বুধবার ওই এলাকায় গিয়ে ফুটপাথের ওপরের কার্যালয়টির কোন সাইনবোর্ড পাওয়া যায়নি। পাশেই ভাতের হোটেল। এ হোটেলের মালিকের নাম মোহাম্মদ সাকিল। তিনি নিজের বাসের একজন স্টাফ দাবি করে বলেন, এখন অসুস্থ, তাই হোটেল খুলে বসেছেন। কেউ তাঁকে কিছু বলেনি। একই এলাকার উত্তর পাশে পুরনো কাপড়ের সারি সারি দোকান। মিঠু নামের এক কাপড় ব্যবসায়ী বলেন, তাঁরা এখানে দীর্ঘদিন ধরে ব্যবসা করছেন। কোন ভাড়া লাগে না। চাঁদাও লাগে না। শুধু ‘বড় অফিসার’ এলে তুলে দেয়া হয়। চলে গেলেই আবার বসতে পারেন।

রাজশাহী রেশম বোর্ডের পূর্ব ও পশ্চিম পাশের দেয়াল ঘেঁষে নির্মিত ফুটপাথগুলো কোনদিনই দখলমুক্ত হয় না। পূর্ব পাশটা থাকে মৌসুমি ব্যবসায়ীদের দখলে। কয়েক মাস ধরে চলে আমের ব্যবসা হয়। তারপর জুতা-স্যান্ডেল থেকে শুরু করে হরেক রকমের জিনিসের দোকান বসে। উত্তর দিকে বরাবরই পুরনো কাপড় ও ফলমূলের দোকান বসে। তবে সবচেয়ে নাজুক অবস্থা নগরীর ব্যস্ততম সাহেব বাজার এবং রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের সামনে আর লক্ষ্মীপুর এলাকার রাস্তার। সাহেব বাজারের রাস্তার দুই পাশের ফুটপাথ ছেড়ে ব্যবসায়ীরা রাস্তার ওপর তাদের দোকান মেলে বসেন। অবশ্য তাঁদের কাছ থেকে সিটি কর্পোরেশন রীতিমতো প্রতিদিন খাজনা আদায় করে বলে জানালেন ব্যবসায়ীরা। আর রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ফুটপাথ বেশিরভাগ দখলে থাকে মৌসুমি ব্যবসায়ী আর ভাড়ায় চালিত মাইক্রোবাস চালকদের দখলে। নগরীর কাদিরগঞ্জ ও নিউমার্কেট ঘেঁষেও ফুটপাথ সারাক্ষণ থাকে বিভিন্ন ব্যবসায়ীদের দখলে। ফলে পথচারীরা এসব ফুটপাথ দিয়ে চলাচল করতেই পারে না।

যোগাযোগ করা হলে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশনের প্রধান প্রকৌশলী আশরাফুল হক বলেন, ব্যবসায়ীরা কৌশলে ফুটপাথে বসে। শীঘ্রই তাদের উচ্ছেদ অভিযান শুরু হবে।