১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

জঙ্গীবাদ দমনে মওদুদের দুই প্রস্তাব

স্টাফ রিপোর্টার ॥ জঙ্গীবাদ ও সন্ত্রাসবাদ দমনে সরকারের উদ্দেশে দুটি প্রস্তাব দিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ। এর একটি হচ্ছে- অবিলম্বে অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে দেশে গণতান্ত্রিক পরিবেশ ফিরিয়ে আনা এবং দ্বিতীয়টি হচ্ছে- সব গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক দলকে ঐক্যবদ্ধ করে সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ দমন করা। শনিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে ‘বিপ্লব ও সংহতি দিবস’ উপলক্ষে বিএনপি আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

মওদুদ বলেন, সরকার যদি এই দুই প্রস্তাব অনুসরণ করে তাহলে দেশে সন্ত্রাস ও জঙ্গীবাদ থাকবে না। কিন্তু গণতান্ত্রিক শক্তিগুলোকে দুর্বল করে দিলে উগ্রবাদ ও জঙ্গীবাদীরা সুযোগ নেবে। তিনি বলেন, সত্যিকার অর্থে সরকার যদি সন্ত্রাস দমন করতে চায়, তাহলে দেশে গণতান্ত্রিক পরিবেশ ফিরিয়ে আনুক। বিএনপি ও সব গণতান্ত্রিক দল সহযোগিতা করবে।

ব্যারিস্টার মওদুদ বলেন, দেশব্যাপী পৌর নির্বাচন সামনে রেখে আওয়ামী লীগ নিজেদের রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হাসিলের জন্য যৌথ অভিযানের নামে বিএনপির হাজার হাজার নেতাকর্মীকে গ্রেফতার করছে। সরকারের এই নীতি অত্যন্ত ভুল। এটা বন্ধ না করলে ভয়ঙ্কর পরিস্থিতির সৃষ্টি হবে। বিদেশী নাগরিক, ব্লগার ও পুলিশ হত্যা এবং বিশিষ্ট নাগরিকদের হত্যার হুমকির নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে তিনি বলেন, সরকার গণতান্ত্রিক শক্তিগুলোকে দুর্বল ও নিঃশেষ করে দেয়ার চেষ্টা করছে। কিছু বিপথগামী ও উগ্রবাদীরা এ সুযোগ গ্রহণ করে এ নৈরাজ্যবাদ পরিস্থিতির সৃষ্টি করেছে। এ জন্য সরকারকে দায়ী করতে চাই। মওদুদ বলেন, নিজেদের ক্ষমতায় টিকিয়ে রাখতে এবং অন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সমর্থন লাভের জন্য এ ভয়ঙ্কর পথ বেছে নিয়েছে সরকার। আমি সরকারের কাছে আহ্বান জানাইÑ আপনারা এ ভয়ঙ্কর পথ বর্জন করুন।

মওদুদ বলেন, জিয়াউর রহমান দেশে গণতন্ত্র ফিরিয়ে এনেছিলেন। সেই গণতন্ত্র আমরা হারিয়ে ফেলেছি। আমরা আবার সেই গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনার আন্দোলন করছি। জিয়ার আদর্শে উদ্বুদ্ধ হয়ে আমরা জাতীয়তাবাদী দল গঠন করেছিলাম। তিনি বলেন, বিএনপি একটি উদার গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক দল। আমরা স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় উদ্বুদ্ধ একটি রাজনৈতিক দল। আমরা শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা হস্তান্তরে বিশ্বাসী। যেকোন ধরনের জঙ্গীবাদ ও সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে আমরা। কিন্তু বর্তমান সরকার মিডিয়ার মাধ্যমে মিথ্যার আশ্রয় নিয়ে বিএনপিকে একটি জঙ্গীবাদী দল হিসেবে চিহ্নিত করার চেষ্টা করছে, একই সঙ্গে বিএনপির ভাবমূর্তি নষ্ট করার চেষ্টা করছে।

আলোচনা সভায় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব) আ স ম হান্নান শাহ্ বলেন, ৭ নবেম্বরের চেতনা ধারণ করে সব কুচক্রী মহলের ষড়যন্ত্র প্রতিহত করতে হবে। বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার আন্দোলন জোরদার করতে হবে। সবাইকে আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে। সুশাসন কায়েম করতে হবে।

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেনÑ বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান, যুগ্মমহাচিব ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন, যুবদলের সভাপতি এ্যাডভোকেট মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, মহিলা দলের সভাপতি নূরে আরা সাফা, স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র সহসভাপতি মুনির হোসেন, ছাত্রদলের যুগ্মসাধারণ সম্পাদক কাজী আসাদুজ্জামান আসাদ, কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব) সৈয়দ মুহাম্মদ ইব্রাহিম, অধ্যাপক মোস্তাহিদুর রহমান প্রমুখ।