২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

দুই দেশের বন্দী বিনিময় প্রাধান্য পাবে

  • বাংলাদেশ-ভারত স্বরাষ্ট্র সচিব পর্যায়ে বৈঠক কাল

শংকর কুমার দে ॥ বাংলাদেশের কারাগারে আটক ভারতের মাফিয়া ডন দাউদ ইব্রাহিমের ভাতিজা আব্দুর রউফ দাউদ মার্চেন্ট, ভারতীয় আসিফ রেজা কমান্ডো ফোর্সের নেতা মুফতি ওবাদুল্লাহ ওরফে আবু জাফরসহ ছয়জনকে ফিরিয়ে দেয়ার জন্য অনুরোধ জানাচ্ছে ভারত। ভারতের কারাগারে আটক বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব সালাহউদ্দিন আহমেদ, একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলার আসামি জঙ্গী সংগঠন হুজির নেতা দুই সহোদর মুরসালিন ও মুত্তাকিন, পুরস্কার ঘোষিত টপটেরর সুব্রত বাইন, মৃত্যুদ-াদেশপ্রাপ্ত আসামিসহ শতাধিক বন্দীকে ফিরিয়ে দেয়ার অনুরোধ জানাচ্ছে বাংলাদেশ। স্বরাষ্ট্র সচিব পর্যায়ে সোমবার ঢাকায় অনুষ্ঠিতব্য বৈঠকে এ বিষয়ে অনুরোধ জানানোসহ দুই দেশের কারাগারে আটক বন্দীদের তালিকা হস্তান্তর করে ফেরতদানের অনুরোধ জানানো হতে পারে। বাংলাদেশের কারাগারে বন্দী উলফা নেতা অনুপ চেটিয়াকে ভারতের কাছে হস্তান্তরের চব্বিশ ঘণ্টার মধ্যেই ভারত তাদের কারাগারে বন্দী নারায়ণগঞ্জের সাত খুনের অন্যতম আসামি নূর হোসেনকে বাংলাদেশের কাছে হস্তান্তরের মধ্য দিয়ে বন্দী প্রত্যর্পণ চুক্তির সফল বাস্তবায়নের পর্যায়ে দুই দেশের মধ্যে স্বরাষ্ট্র সচিব পর্যায়ের বৈঠক অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। মাথায় হেলমেট, পরনে খাকি রংয়ের প্যান্ট, সাদা-কালো স্ট্রাইপের গেঞ্জি, বাম হাতে নীল রংয়ের ঘড়ি, হ্যান্ডকাফ পরিহিত নূর হোসেনকে নারায়ণগঞ্জ আদালতে আনা-নেয়ার সময় স্বজনদের ফাঁসি চাই দাবিতে সেøাগান, ঘৃণাভরা জুতো নিক্ষেপ, জনতার ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়ার মধ্যেও বিপুলসংখ্যক আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতে বন্দী অবস্থায় তার রহস্যময় হাসি অনেক অজানা প্রশ্নের জন্ম দিয়েছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল শনিবার রাজধানীর বিজ্ঞান ও শিল্প গবেষণাগার মিলনায়তনে এক অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, নারায়ণগঞ্জের সাত খুনে সেখানকার প্রভাবশালী আওয়ামী লীগ নেতা শামীম ওসমান যদি জড়িত থাকেন তাকেও কোন প্রকার ছাড় দেয়া হবে না।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, সোমবার ঢাকায় বাংলাদেশ ও ভারতের স্বরাষ্ট্র সচিব পর্যায়ের যে বৈঠক অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে তাতে বাংলাদেশের পক্ষে নেতৃত্ব দেবেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. মোঃ মোজাম্মেল হক খান ও ভারতের পক্ষে নেতৃত্ব দেবেন দেশটির কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র সচিব রাজীব মেহঋষি। এই বৈঠকে বাংলাদেশের কারাগারে আটক ভারতের মাফিয়া ডন দাউদ ইব্রাহিমের ভাতিজা আব্দুর রউফ দাউদ মার্চেন্ট, ভারতীয় আসিফ রেজা কমান্ডো ফোর্সের নেতা মুফতি ওবাদুল্লাহ ওরফে আবু জাফর, মাওলানা মনসুর আলী হাবিবুল্লাহ ও মাওলানা এমাদুল্লাহসহ ছয় বন্দীকে ফেরত চাইতে পারে ভারত। ভারত সেই সঙ্গে বাংলাদেশের কারাগারে আটক বন্দীদের একটি তালিকা দিয়ে তাদের ফেরত পাঠানোর অনুরোধ জানাতে পারে। বাংলাদেশের বিভিন্ন কারাগারে আটক ভারতের মুম্বাইয়ের অপরাধ জগতের মাফিয়া ডন দাউদ ইব্রাহিমের ভাতিজা আব্দুর রউফ দাউদ মার্চেন্ট ও ছয় জঙ্গী নেতাকে ফেরত চাওয়ার জন্য তালিকা তৈরি করেছে ভারত। এদের মধ্যে দাউদ মার্চেন্ট মুম্বাইয়ে সঙ্গীত পরিচালক গুলশান কুমার হত্যা মামলার যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত আসামি। এদের বাকি পাঁচজন হলেনÑ জাহিদ শেখ ও আরিফ হুসাইন, ভারতীয় আসিফ রেজা কমান্ডো ফোর্সের নেতা মুফতি ওবাদুল্লাহ ওরফে আবু জাফর, মাওলানা মনসুর আলী হাবিবুল্লাহ ও মাওলানা এমাদুল্লাহ। এ ছয়জন বিভিন্ন মামলায় জামিনও পেয়েছেন। কিন্তু পুলিশের বিশেষ শাখার (এসবি) আটকাদেশে তারা এখন কারাগারে বন্দী রয়েছেন। কয়েকদিন আগে দাউদ মার্চেন্টকে জামিনে মুক্তি দেয়া হয়েছিল। ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে জামিনে মুক্তি পাওয়ার পর পুলিশের বিশেষ শাখা আটকাদেশ দিয়ে জেলগেটের সামনে থেকে তাকে আবারও গ্রেফতার করে বন্দী করে রেখেছে। এছাড়াও বর্ধমানের খাগড়াগড়ে বোমা বিস্ফোরণে জড়িত জেএমবির জঙ্গীদের মধ্যে যারা দুই দেশেই ফেরার বা পলাতক আছে তাদের বিষয়টিও আলোচনায় প্রাধান্য দেয়া হতে পারে।

পক্ষান্তরে বাংলাদেশও ভারতের কারাগারে আটক বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব সালাহউদ্দিন আহমেদ, একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলার আসামি দুই সহোদর জঙ্গী সংগঠন হুজির নেতা মুরসালিন ও মুত্তাকিন, পুরস্কার ঘোষিত শীর্ষ সন্ত্রাসী (টপটেরর) সুব্রত বাইনসহ শতাধিক বন্দীর তালিকা দিয়ে ফেরত পাঠানোর জন্য অনুরোধ জানানোর প্রস্তুতি নিয়েছে। এছাড়াও আছে টঙ্গীর সাবেক এমপি আহসানউল্লাহ মাস্টার হত্যা মামলায় মৃত্যুদ-াদেশপ্রাপ্ত আসামি দিপু, চট্টগ্রামের শিবির ক্যাডার সাজ্জাদ হোসেন, চরমপন্থী নেতা মুক্তার হোসেন, মিরপুরের শীর্ষ সন্ত্রাসী শাহাদতের অন্যতম সহযোগী নাসির উদ্দিন, খোরশেদ আলম, তৌফিকুল আলম, শাহীন সিকদার, মকবুল হোসেন, ভাগিনা মামুন, এবায়দুল, রসুল আহম্মেদ, আরেফিন, আইজি গেটের কচি, কিলার মুন্না, টপটেরর মোল্লা মাসুদসহ শতাধিক বন্দীর তালিকা ভারতের কাছে হস্তান্তর করা হতে পারে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, অক্টোবর মাসে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় নারায়ণগঞ্জের সাত খুন মামলার আসামি নূর হোসেনসহ ভারতে আটক শতাধিক অপরাধীর নাম উল্লেখ করে একটি চিঠি পাঠিয়েছে। এতে উল্লেখ করা হয়েছে, তালিকাভুক্ত বন্দীরা দুই দেশের সম্পর্ক নষ্ট করার পাঁয়তারা করছে। সীমান্ত এলাকা দিয়ে বাংলাদেশে থাকা সহযোগীদের কাছে অস্ত্র ও মাদকের চালান পাঠাচ্ছে তারা। বাংলাদেশের পক্ষ থেকে চিঠি পাওয়ার পর ভারত সরকারের পক্ষ থেকেও বাংলাদেশের কাছে একটি চিঠি পাঠানো হয়। ভারতের পাঠানো চিঠিতে অনুপ চেটিয়াকে হস্তান্তর করার জন্য অনুরোধ করা হয়। বিশেষ করে ভারতের কারাগারে যেসব বাংলাদেশী অপরাধী আটক আছে তাদের ফেরত দেয়া হবে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, দুই দেশের চিঠি আদান-প্রদানের পর বাংলাদেশ উলফা নেতা অনুপ চেটিয়াকে এবং ভারত নারায়ণগঞ্জের সাত খুনের অন্যতম আসামি নূর হোসেনকে ফেরত পাঠিয়েছে। দুই দেশের দুই বহুল আলোচিত আসামিকে ফেরত পাঠানোর মধ্য দিয়ে সোমবার অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে স্বরাষ্ট্র সচিব পর্যায়ের বৈঠক, যাতে দুই দেশের কারগারে আটক বন্দী বিনিময়ের বিষয় আলোচনায় প্রাধান্য পেতে পারে। দুই দেশের বন্দী বিনিময় ছাড়াও বৈঠকে যেসব বিষয়ে আলোচনা হতে পারে তার মধ্যে রয়েছে দীর্ঘদিন ধরেই বাংলাদেশে অপরাধ করে সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশী অপরাধীদের ভারতে পালায়ন এবং অনুপরূপভাবে ভারতে অপরাধ করে সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে পলায়ন ভারতের অপরাধীদের এমনকি ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে অবস্থান করে শীর্ষ সন্ত্রাসী, জঙ্গী, চোরাচালানিসহ বিভিন্ন অপরাধী বাংলাদেশে অপরাধমূলক কর্মকা- চালিয়ে যাচ্ছে। কয়েক বছর আগেই বাংলাদেশ সরকার ভারতে আত্মগোপনে থাকা বাংলাদেশী অপরাধীদের একটি তালিকা ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে পাঠিয়েছে। এ নিয়ে দুই দেশের মধ্যে একাধিকবার বৈঠক অনুষ্ঠিত ও চিঠি চালাচালি হয়েছে। সোমবার ঢাকায় অনুষ্ঠিতব্য বাংলাদেশ ও ভারত- দুই দেশের সচিব পর্যায়ের অনুষ্ঠিতব্য বৈঠকে দুই দেশের কারাগারে আটক বন্দীদের বিনিময়, বন্দী বিনিময় চুক্তির আলোচনা, বাংলাদেশের অপরাধীদের ফেরত দেয়া, সীমান্ত হত্যা বন্ধ, মাদক চোরাচালান, সন্ত্রাস ও জঙ্গী দমন নিয়ে আলোচনার জন্য প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে।