২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার মহারণ ড্র

ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার মহারণ ড্র
  • বিশ্বকাপ বাছাই ফুটবল, পেশাদার ক্যারিয়ারে প্রথম লাল কার্ড দেখলেন ডেভিড লুইস, এখনও জয় দেখেনি আর্জেন্টিনা

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ফুটবল বিশ্বে দক্ষিণ আমেরিকার দুই পরাশক্তির নাম ব্রাজিল আর আর্জেন্টিনা। রাশিয়া বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে বাংলাদেশ সময় শনিবার মাঠে নেমেছিল দুই দল। আর ফুটবল প্রেমীদের বহুল কাক্সিক্ষত লড়াইয়ে এগিয়ে থেকেও শেষ পর্যন্ত ড্র করে স্বাগতিক আর্জেন্টিনা। লুকাস লিমার গোলে শেষ পর্যন্ত আর্জেন্টিনার বিপক্ষে ১-১ ব্যবধানে ড্র নিয়ে মাঠ ছাড়ে ব্রাজিল। বুয়েন্স আইরেসে নিজেদের মাঠ মনুমেন্টাল স্টেডিয়ামে সেলেসাওদের বিপক্ষে পয়েন্ট ভাগাভাগি করায় ২০১৮ বিশ্বকাপের বাছাইপর্বে এখনও জয়ের মুখ দেখা হলো না আর্জেন্টিনার।

নিজেদের মাটিতে ম্যাচ। ভক্ত-অনুরাগীদের বিপুল সমর্থনÑ এই হিসেবে ফেবারিট ছিল আর্জেন্টিনা। কিন্তু দলের সেরা তারকা লিওনেল মেসি, সার্জিও এ্যাগুয়েরো এবং কার্লোস তেভেজবিহীন এই আর্জেন্টিনার বিপক্ষে এগিয়ে থেকেই মাঠে নেমেছিল ব্রাজিল। কিন্তু সেলেসাওদের বিপক্ষে প্রথমে এগিয়ে যায় স্বাগতিকরাই। ত্রয়ী তারকা না থাকলেও আর্জেন্টিনাকে প্রথমে গোল উপহার দেন ইজিকুয়েল লাভেজ্জি। আর সফরকারীদের হয়ে সমতাসূচক একমাত্র গোলটি করেন লুকাস লিমা।

আর্জেন্টিনার বিপক্ষেই ক্যারিয়ারের প্রথম বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচে মাঠে নামেন ব্রাজিলের অধিনায়ক নেইমার। কোপা আমেরিকায় অশোভন আচরণের কারণে চার ম্যাচের নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী আর্জেন্টিনাকেই ফেরার মঞ্চ হিসেবে পান বার্সিলোনার এই ব্রাজিলিয়ান সুপারস্টার। কিন্তু এদিন নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি তিনি। বরং জেরার্ডো মার্টিনোর আর্জেন্টিনা ম্যাচ শুরুর প্রথম থেকেই অতিথিদের চেপে খেলতে থাকে। ম্যাচের তৃতীয় মিনিটেই লাভেজ্জির বাড়ানো বলে শট নিয়ে গোলের সুযোগ পেয়েছিলেন গঞ্জালো হিগুয়াইন। কিন্তু তাতে গোলের দেখা পাননি তিনি। অবশেষে ম্যাচের ৩৪ মিনিটে প্রথম গোলের দেখা পায় স্বাগতিকরা। ডি মারিয়া বল বাড়িয়ে দেন ডান দিকে থাকা হিগুয়াইনকে। নেপোলির এই ফরোয়ার্ড দারুণ ক্রসে বল বাড়ান লাভেজ্জিকে। এবারে সুযোগকে কাজে লাগিয়ে ব্রাজিলের জালে বল জড়িয়ে দেন লাভেজ্জি।

এর ফলে প্রথমার্ধে ১-০ গোলের ব্যবধানে এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় আর্জেন্টিনা। কিন্তু বিরতির পরই যেন জ্বলে ওঠে কার্লোস দুঙ্গার দল। ম্যাচের ৫৮ মিনিটে সমতায় ফিরে সফরকারীরা। অতিথিদের হয়ে গোল করেন লুকাস লিমা। দানি আলভেসের ক্রস থেকে ডগলাস কস্টার হেড ক্রসবারে লাগলেও ফিরতি বলে গোল করেন লুকাস লিমা। এর দশ মিনিট আগে আরেকটি সুযোগ হাতছাড়া করে আর্জেন্টিনা। ম্যাচের ৪৮তম মিনিটে অতামেন্ডির পাস থেকে এভার বানেগার প্রথম শট ঠেকিয়ে দেন ব্রাজিল ডিফেন্ডার মিরান্ডা। ফিরতি বলে আরেকবার শট নিলেও তা গোলবারে লেগে ফিরে আসে। তারপরও গোল করতে মরিয়া হয়ে ওঠে দুই দল। কিন্তু কেউই আর জালে বল জড়াতে পারেনি। কিন্তু দুর্ভাগ্য ডেভিড লুইজের। ম্যাচের ৮৮ মিনিটে দশ জনের দলে পরিণত হয় ব্রাজিল। লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন সাবেক চেলসির তারকা ফুটবলার ডেভিড লুইস। পুরো ম্যাচ জুড়েই দুর্দান্ত নৈপুণ্য প্রদর্শন করেছেন লুইস। কিন্তু ম্যাচের শেষ মুহূর্তে লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়তে হয় তাকে। আর সুদীর্ঘ পেশাগত ক্যারিয়ারে লাল কার্ড দেখে মাঠ থেকে বের হয়ে যাওয়ার ঘটনা ডেভিড লুইজের এটাই প্রথম।

২০১৮ সালে রাশিয়া বিশ্বকাপের বাছাইপর্বের প্রথম ম্যাচেই হারের লজ্জায় ডোবে জেরার্ডো মার্টিনোর শিষ্যরা। ঘরের মাঠেই ইকুয়েডরের বিপক্ষে ২-০ গোলে হেরে যায় মেসিবিহীন আর্জেন্টিনা। প্যারাগুয়ের বিপক্ষে দ্বিতীয় ম্যাচে গোলশূন্য ড্রয়ে শেষ হয়। এবার তিন নাম্বার ম্যাচটিও ড্র করল তারা। অন্যদিকে চিলির বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে ২-০ গোলে হেরে গেলেও ভেনেজুয়েলাকে ৩-১ গোলে হারিয়ে ঘুরে দাঁড়ায় পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল। এর ফলে বাছাইপর্বের তিন ম্যাচে ৪ পয়েন্ট নিয়ে চতুর্থ স্থানে ব্রাজিল। আর ২ পয়েন্ট নিয়ে নবম স্থানে আর্জেন্টিনা। একমাত্র দল হিসেবে তিন ম্যাচের তিনটিতেই জিতে ৯ পয়েন্ট নিয়ে সবার ওপরে অবস্থান ইকুয়েডরের।

জানিয়ে রাখা ভাল এর আগে নির্ধারিত সূচী অনুযায়ী শুক্রবার হওয়ার কথা ছিল ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার ম্যাচটি। কিন্তু সেদিন প্রবল বর্ষণের কারণে দুই দলের ম্যাচটি আর মাঠেই গড়ায়নি। যে কারণে ২৪ ঘণ্টা পিছিয়ে বাংলাদেশ সময় শনিবার ভোরে অনুষ্ঠিত হয়। আর শেষ পর্যন্ত ড্রয়ে শেষ হয় ম্যাচটি। দক্ষিণ আমেরিকার বাছাইপর্বের অন্যান্য ম্যাচে বলিভিয়া ৪-২ গোলে হারায় ভেনেজুয়েলাকে। এর আগেরদিন ইকুয়েডর ২-১ গোলে হারায় উরুগুয়েকে। আর চিলি-কলম্বিয়ার ম্যাচটিও ১-১ গোলে ড্র হয়। উত্তর আমেরিকার বাছাইপর্বের ম্যাচে মেক্সিকো ৩-০ গোলে হারায় এল সালভাদরকে, কোস্টারিকা ১-০ গোলে জয় তুলে নেয় হাইতির বিপক্ষে, পানামা ২-০ গোলে পরাজিত করে জ্যামাইকাকে এবং ত্রিনিদাদ এ্যান্ড টোবাগো ২-১ গোলে জয় পায় গুয়েতেমালার বিপক্ষে।