২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

দু’দিন পিছিয়ে অস্ট্রেলিয়া ফুটবল দল আসছে সোমবার সন্ধ্যায়

  • ১৭ নবেম্বর বিশ্বকাপ বাছাই ম্যাচ বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচ খেলতে বাংলাদেশ সফর নিয়ে তামাশা করার শেষ ধাপটিও সম্পন্ন করে ফেললো ফুটবল ফেডারেশন অব অস্ট্রেলিয়া (এফএফএ)। শনিবার রাতে আসার ঘোষণা দিয়েও তারা যথাসময়ে আসেনি। শুধু তাই নয়, তারা যে যথাসময়ে আসবে না সেটা বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনকেও (বাফুফে) জানায়নি। বরং বাফুফেই নিজ উদ্যোগে এফএফএ’র সঙ্গে যোগাযোগ করে বিষয়টি জানতে পারে। অবস্থাটা এমনই মনে হয়েছে, বাফুফে জানতে না চাইলে হয়তো এফএফএ জানাতোই না!

যাই হোক, বিশ্বকাপ ও এএফসি এশিয়ান কাপের বাছাইপর্বের ম্যাচ খেলতে আগামী সোমবার ৬টায় বিশেষ চার্টার্ড বিমানযোগে ঢাকায় আসছে অস্ট্রেলিয়া জাতীয় ফুটবল দল। ১৭ নবেম্বর বিকেল সাড়ে ৫টায় বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ দলের মুখোমুখি হবে তারা।

এ প্রসঙ্গে বাফুফের সাধারণ সম্পাদক আবু নাইম সোহাগ বলেন, ‘শুক্রবার অস্ট্রেলিয়ার একাধিক জাতীয় দৈনিকের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে এবং এফএফএ’র-ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আমরা জানতে পারি অস্ট্রেলিয়া ফুটবল দলের বাংলাদেশে আসার এরাইভাল সিডিউলটি পরিবর্তন হয়েছে। সেটা জানার সঙ্গে সঙ্গেই শুক্রবার সেই লিঙ্কগুলো তাদের কাছে অফিসিয়ালি জানতে চাই শনিবার রাতে ১০টা ৪০ মিনিটে তাদের যে আসার সিডিউলটি ছিল সেটিতে কোন পরিবর্তন আছে কিনা । যদি থেকে থাকে তবে তারা যেন বিষয়টি অফিসিয়ালি নিশ্চিত করার জন্য অনুরোধ জানাই। সেই প্রেক্ষিতে আজ সকালে (শনিবার) একটি চিঠি পাই যেখানে তারা অফিসিয়ালি নিশ্চিত করে অস্ট্রেলিয়া ফুটবল দলটি ১৬ তারিখে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করবে।’

জানা গেছে, ফ্লাইট সিডিউল বা কোন্ এয়ারলাইন্সে আসছে সেগুলোর বিস্তারিত প্রথমে কিছুই লিখে পাঠায়নি এফএফএ! তাদের এ ধরনের অপেশাদার আচরণের পরও বাফুফের পক্ষ থেকে দ্বিতীয়বার যোগাযোগ করা হলে তারা দুপুরে আরেকটি চিঠি দিয়ে বাফুফেকে নিশ্চিত করে জানায় তারা সোমবার সন্ধ্যায় আসছে। সে অনুযায়ী তাদের বাংলাদেশে আগমন, অভ্যর্থনা জানানো, তাদের গতিবিধি, যাতায়াত, হোটেল রিজার্ভ, নিরাপত্তা ... সবকিছুই তদারকি করবে বাফুফে।

বাংলাদেশে দেরিতে আসার কারণ হিসেবে এফএফএ বাফুফের কাছে ব্যাখ্যা দিয়েছে। তারা বলেছে তাদের খেলোয়াড়রা যেহেতু ইউরোপের বিভিন্ন দেশ থেকে অস্ট্রেলিয়া জাতীয় দলের হয়ে খেলতে এসেছেন তাই তাদের মধ্যে একটা ভ্রমণক্লান্তি ছিল। এর মধ্যে গত ১২ নবেম্বর কিরগিজস্তানের সঙ্গে তাদের একটি হাই কোয়ালিটির কঠিন ম্যাচ ছিল। তাই ওই ম্যাচটির ঠিক পরপরই দীর্ঘ ভ্রমণ করে বাংলাদেশে আসতে গেলে তাদের খেলোয়াড়দের রিকভারি করার সময়টা মিলবে না। সেই চিন্তা থেকেই দলের কোচের পরামর্শে ১৬ তারিখ ঢাকায় আসার সিদ্ধান্ত নেয় তারা।

তবে ফিফার নিয়ম অনুযায়ী যে কোন আন্তর্জাতিক ম্যাচের পূর্বেই দুটি আনুষ্ঠানিকতা সারতে হয়। একটি হল ম্যাচে অংশগ্রহণকারী দুই দলকে অংশ নিতে হবে ম্যাচ-পূর্ব সংবাদ সম্মেলনে, অপরটি ম্যাচ কো-অর্ডিনেশন মিটিং। এ দুটো বিষয়ে তারা কিভাবে অংশ নেবে? যেহেতু ১৭ নবেম্বর ম্যাচ। তারা আসছে ১৬ নবেম্বর সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায়।

এ বিষয়ে বাফুফের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘ম্যাচ-পূর্ব সংবাদ সম্মেলন এবং কো-অর্ডিনেশন মিটিংটি কবে কোথায় হবে সে বিষয়ে আমরা একক সিদ্ধান্ত নিতে পারি না। আগামীকাল (আজ) ইরান থেকে যে ম্যাচ কমিশনার আসছেন (অমিত জামালি) তার সঙ্গে এবং ফিফার সঙ্গে আলোচনা করে আমরা আশা করছি আগামীকালের (আজ) মধ্যে এ বিষয়গুলো নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেব।’