২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আইজিসিসিতে জয়ন্তর একক আবৃত্তি সন্ধ্যা

আইজিসিসিতে জয়ন্তর একক আবৃত্তি সন্ধ্যা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ গুলশানের ইন্দিরা গান্ধী সাংস্কৃতিক কেন্দ্র মিলনায়তনে সব মিলিয়ে শ্রোতার সংখ্যা ২২ জন। সবাই অধির আগ্রহ নিয়ে বসে আছে কখন শুরু হবে কবিতা পাঠ। দেশের স্বনামধন্য অভিনেতা ও আবৃত্তিকার জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায়ের ভরাট কণ্ঠের আবৃত্তির সঙ্গে শ্রোতাদের অনেকেই আগে থেকে পরিচিত। তবুও অপেক্ষা করা হচ্ছে, আরও যদি কিছু শ্রোতা এসে উপস্থিত হতো আবৃত্তির অনুষ্ঠান ভাল জমবে। কিন্তু অপেক্ষা সত্ত্বেও আর কোন শ্রোতা এসে উপস্থিত না হওয়ায় বাধ্য হয়ে শুরু হলো শিল্পীর একক আবৃত্তি সন্ধ্যা। শনিবার ইন্দিরা গান্ধী সাংস্কৃতিক কেন্দ্র আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে শিল্পী জয়ন্ত চট্টোপাধ্যায় একে একে পাঠ করেন খ্যাতনামা কবিদের কবিতা।

কাজী নজরুল ইসলামের ‘দাও শৌর্য দাও ধৈর্য হে উদার নাথ’ গানটি আবৃত্তির মধ্যদিয়ে শুরু হয় অনুষ্ঠান। পরে জয়ন্ত অনুষ্ঠান সম্পর্কে বলেন, আজ প্রেম, জীবনবোধ, দ্রোহ, মহাকাব্যিক চরিত্র নিয়ে মিশেল করে কবিতা বলব। এরপর আবৃত্তি করেন শক্তি চট্টোপাধ্যায়ের কবিতা ‘আনন্দ ভৈরবী’। শিল্পী জয়ন্ত কথাসাহিত্যিক হুমায়ূন আহমেদের খুব ঘনিষ্ঠ ছিলেন। তাঁর সম্পর্কে তিনি বলেন, ১৩ নবেম্বর হুমায়ূন আহমেদের ৬৭তম জন্মতিথি ছিল। তাঁর সঙ্গে আমার অন্তরঙ্গ বন্ধুত্ব ছিল। তাঁকে নিয়ে আমার লেখা একটি কবিতা পাঠ করছি। পরে নিজের লেখা হুমায়ূন আহমেদকে নিয়ে নিজের লেখা ‘কে’ কবিতাটি আবৃত্তি করেন। এরপর নেলসন ম্যান্ডেলাকে নিয়ে লেখা সুভাষ মুখোপাধ্যায়ের ‘মেজাজ’ কবিতা আবৃত্তি করেন। পরে শিল্পী একে একে আবৃত্তি করেন পুর্ণেন্দু পত্রীর ‘মাধবীর জন্যে’, জয় গোস্বামীর ‘স্নান’ ও ‘মেঘবলিকার জন্যে রূপকথা’, শামসুর রাহমানের ‘প্রেমের পদাবলী’, সুবোধ সরকারের ‘কাদম্বরী দেবী আপনাকে’, মৈয়েত্রী বন্দ্যোপাধ্যায়ের ‘অর্জুন উবাচ’, রবীন্দ্রনাথের ‘আবেদন’ ও ‘কর্ণ কুন্তী সংবাদ (জয়ন্ত ও ডালিয়া আহমেদ), নিজের লেখা প্রেমের কবিতাসহ আরও কয়েকজন খ্যাতিমান কবিদের কবিতা।