২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সমান তালে জবাব দিচ্ছে কিউইরা

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ রানের জবাবে রান, সেঞ্চুরির জবাবে সেঞ্চুরি, ডাবল সেঞ্চুরির জবাবে ডাবল সেঞ্চুরিÑ পার্থ টেস্টে স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়াকে জবাবটা ভালই দিচ্ছে কিউইরা। ৯ উইকেটে ৫৫৯ রানে প্রথম ইনিংস ঘোষণা করে অস্ট্রেলিয়া। জবাবে দ্বিতীয় দিন শেষে ৬ উইকেটে নিউজিল্যান্ডের সংগ্রহ ৫১০ রান। ক্যারিয়ারসেরা ২৩৫ রান নিয়ে ব্যাট করছেন রস টেইলর। ব্যক্তিগত ৭ রানে তার সঙ্গী মার্ক ক্রেইগ। সঙ্গে কেন উইলিয়ামসনের ১৬৬ কিউইদের দারুণ অবস্থানে নিয়ে এসেছে। যেখান থেকে জিততে না পারলেও অন্তত ড্রর চিন্তা করতে পারে ব্রেন্ডন ম্যাককুলামের দল। ওয়াকার চিরায়ত বাউন্সি উইকেটে এমন রান বন্যা অনেকটা অভাবনীয়!

২ উইকেটে ১৪০ রান নিয়ে রবিবার দ্বিতীয় দিনের খেলা শুরু করে নিউজিল্যান্ড। সারাদিন ৮৭ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে আরও ৩৭০ রান যোগ করে অতিথিরা। এক পর্যায়ে ৩ উইকেটে ৩৫২ রান তুলে নেয় তারা। মূলত কেন উইলিয়ামসন ও রস টেইলেরর দুরন্ত পার্টনারশিপই কিউইদের ম্যাচে ফিরিয়ে আনে। তৃতীয় উইকেট জুটিতে ২৬৫ রান যোগ করেন দুজনে। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে যে কোন উইকেট জুটিতে নিউজিল্যান্ডের এটাই সর্বোচ্চ রানের নতুন রেকর্ড। আগের সর্বোচ্চ ছিল নাথান এ্যাস্টল ও এ্যাডাম প্যারোরের। এই পার্থেই ২০০১ সালে অষ্টম উইকেট জুটিতে ২৫৩ রান করেছিলেন তারা। এদিন নেতৃত্বটা দিয়েছেন টেইলর।

অধিনায়ক ব্রেন্ডন ম্যাককুলামকে নিয়ে চতুর্থ উইকেটে মাত্র ১৮ ওভারে করেছেন ৮০ রান। অপর প্রান্তে সঙ্গীরা সাজঘরে ফিরলেও টেইলর ছিলেন অবিচল। অসি বোলারদের চোখের জল, নাকের জলে এক করে ছেড়েছেন তুখোড় এই উইলোবাজ। ৩০৮ বলে ৩৪ চারের সাহায্যে ২৩৫ রান নিয়ে ব্যাটিং করে যাচ্ছেন টেইলর। নেই কোন ছক্কা। বাউন্ডারি দেখেই বোঝা যায় তার ইনিংস কতটা ‘ক্ল্যাসিক্যাল’। ৬৬তম টেস্টে এটি তার ১৩ নম্বর সেঞ্চুরি এবং ক্যারিয়ারসেরা ইনিংস। আগের সর্বোচ্চ ছিল অপরাজিত ২১৭Ñ ডুনেডিনে ২০১৩ সালে করেছিলেন অতিথি ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে। এছাড়া টেইলরের টেস্টে দেড় শতাধিক রানের ইনিংস রয়েছে দুটিÑ ১৫৪* ও ১৫১।

টেইলর ঢাকা পড়লেও ব্যাট হাতে দ্যুতি ছড়িয়েছেন উইলিয়ামসন। জস হ্যাজলউডের বলে মিচেল জনসনের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরার আগে খেলেছেন ক্যারিয়ারের তৃতীয় সর্বোচ্চ ১৬৬ রানের চমৎকার এক ইনিংস। ৪৩তম টেস্টে এটি তার ১২ নম্বর সেঞ্চুরি। মাত্র ২৫ বছর বয়সেই সেঞ্চুরি সংখ্যায় গ্রেট শচীন টেন্ডুলকর ও স্যার ডন ব্রাডম্যানের পেছনে নাম লেখালেন তুখোড় এই উইলোবাজ। ২৫ বছর বয়সে রেকর্ড ১৬ ও ১৩টি করে সেঞ্চরি আছে শচীন ও ব্রাডম্যানের। অবশ্য উইলিয়ামসন ফেরার পর অপর প্রান্তে দ্রুত উইকেট পড়তে থাকে। ২৭ রান করে সাজঘরে ফেরেন অধিনায়ক ম্যাককুলাম। বিজে ওয়াটলিং ১ ও ডগ ব্রেসওয়েল ফেরেন ১২ রান করে। অসিদের হয়ে ২ উইকেট নিয়েছেন মিচেল স্টার্ক।