২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

এডিবি তিন বছরে ৫শ’ কোটি ডলার দেবে

  • সংবাদ সম্মেলনে ভাইস প্রেসিডেন্ট

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ আগামী তিন বছরে বাংলাদেশে ৫০০ কোটি ডলার অর্থায়ন করবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংক (এডিবি)। ঢাকায় সফররত এডিবির ভাইস প্রেসিডেন্ট ওয়েনচাই চ্যাং রবিবার এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান। তিনি বলেছেন, প্রবৃদ্ধি বাড়াতে আঞ্চলিক যোগাযোগ বাড়ানোর ওপর জোর দেয়া উচিত। বাংলাদেশ বেশ কয়েকটি খাতে অগ্রগতি সাধন করেছে। তবে উচ্চ প্রবৃদ্ধি অর্জনে আরও বেশ কিছু সংস্কার কার্যক্রম হাতে নিতে হবে। এ জন্য যোগাযোগ, প্রযুক্তি, শিক্ষা ও স্বাস্থ্য সেবায় এডিবি তাদের সহায়তা বাড়াবে।

রবিবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে এডিবির বাংলাদেশ কার্যালয়ে এই সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এতে সংস্থাটির কান্ট্রি ডিরেক্টর কাজুহিকো হিগুচি, মিডিয়া কর্মকর্তা গোবিন্দবার উপস্থিত ছিলেন।

এ সময় ওয়েনচাই চ্যাং বলেন, দেশে বর্তমানে রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা বিরাজ করছে। তবে ব্যক্তি খাতের বিনিয়োগ, অবকাঠামো উন্নয়ন, বিদ্যুত খাত, স্থানীর সরকার শক্তিশালীকরণ ও জনগোষ্ঠীর মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা নিশ্চিতকরণসহ অনেক চ্যালেঞ্জ রয়ে গেছে। এই অবস্থায় বিনিয়োগে বিভিন্ন পলিসি ও নীতি সহায়তা এবং রেগুলেটরি ফ্রেমওয়ার্কে কিছুটা পরিবর্তন আনতে হবে।

তিনি বলেন, সামনের দিনগুলোতে বাংলাদেশ কি করতে চায় তা স্পষ্ট। এ জন্য সপ্তম পঞ্চ বার্ষিকী পরিকল্পনা নিয়েছে। এখানে বিনিয়োগের বড় একটি লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। এটি কিভাবে অর্জন করবে তার জন্য অবশ্যই একটি কর্মপরিকল্পনা নিয়েছে সরকার। তবে এডিবি বাংলাদেশে প্রবৃদ্ধি ও উন্নয়নে আরও সহায়তা বাড়াবে।

এডিবির কর্মকর্তা জানান, বাংলাদেশে এডিবির অর্থায়ন বাড়ছে। আগামী তিন বছরের জন্য ব্যবসা পরিকল্পনা করা হয়েছে। সেই পরিকল্পনা অনুযায়ী আগামী তিন বছরে ৫০০ কোটি ডলার এখানে বিনিয়োগ করবে এডিবি। তিনি বলেন, বাংলাদেশে ব্যক্তি খাতের বিনিয়োগের অবস্থা খুবই খারাপ। চলমান ৬ বা সাড়ে ৬ শতাংশের প্রবৃদ্ধির ধারা থেকে বেরিয়ে আসতে হলে বিনিয়োগ অবশ্যই বাড়াতে হবে। কিন্তু এক্ষেত্রে অবকাঠামোসহ অন্যান্য সমস্যা থাকাকালীন তা অর্জন কঠিন। এ অবস্থায় বিদ্যুত, গ্যাস ও জ্বালানি এবং দক্ষ জনশক্তি গড়ার পেছনে জোর দিতে হবে।