২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কর্ণফুলী ইন্স্যুরেন্সকে ৯ লাখ টাকা জরিমানা

অর্থনৈতিক প্রতিবেদক ॥ বীমা আইন লঙ্ঘন করায় কর্ণফুলী ইন্স্যুরেন্সকে ৯ লাখ টাকা জরিমানা করেছে বীমা উন্নয়ন ও নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষ (আইডিআরএ)। সোমবার আইডিআরএ এক পাঠানো বিজ্ঞপ্তিতে তা জানানো হয়েছে। বীমা আইন, ২০১০ এর ১৮(৩) ধারা এবং দি ইন্স্যুরেন্স রুলস ১৯৫৮ এর ৪৪ হতে ৫১ ধারা লঙ্ঘনের কারণে কর্ণফুলী ইন্স্যুরেন্সকে নয় লাখ টাকা জরিমানা করেছে আইডিআরএ। সম্প্রতি কর্ণফুলী ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির সঙ্গে শুনানি অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত শুনানিতে সভাপতিত্ব করেন আইডিআরএ চেয়ারম্যান এম. শেফাক আহমেদ একচ্যুয়ারি। এছাড়া কর্তৃপক্ষের সদস্য মোঃ কুদ্দুস খান, সুলতান-উল-আবেদীন মোল্লা এবং মোঃ মুরশিদ আলম ও কর্তৃপক্ষের পরিদর্শন দলের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এছাড়া কর্ণফুলী ইন্স্যুরেন্সের মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ হাফিজউল্লাহ্, লোকাল শাখা ব্যবস্থাপক এ এইচ এম আনোয়ার নেওয়াজ খান, মীর শাহজাহান করিব (জিএম) এবং মোঃ শফিকুল ইসলাম (এসিসট্যান্ট ম্যানেজার) উপস্থিত ছিলেন। আইডিআরএর পরিদর্শন দল গত সেপ্টেম্বরে কর্ণফুলী ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির লোকাল শাখা পরিদর্শন করে। পরিদর্শন কালে দৈবচয়নের ভিতিত্তে তাদের মানি রিসিড, ব্যাংক ডিপোজিট সিøপ, ব্যাংক স্টেটমেন্ট, কাভারনোট ও পলিসি পরীক্ষা করে বাকি ব্যবসার প্রমাণ পাওয়া যায়।

জানা যায়, বীমা আইন, ২০১০ এর ১৮ (৩) ধারা এবং দ্য ইন্স্যুরেন্স রুলস, ১৯৫৮ এর ৪৪ হতে ৫১ ধারা লঙ্ঘন করত বাকি ব্যবসার প্রমাণ পাওয়া যায়। এ সময় কর্ণফুলী ইন্স্যুরেন্স কোম্পানির পক্ষে উপস্থিত মুখ্য নির্বাহী কর্মকর্তা এবং সংশ্লিষ্ট শাখা ব্যবস্থাপক বাকি ব্যবসা করার বিষয়টি স্বীকার করেন।

উন্নয়ন পরিকল্পনা বাস্তবায়নে জাতীয় সমন্বয় কমিটি গঠনের তাগিদ

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ সপ্তম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা বাস্তবায়নে একটি জাতীয় সমন্বয় কমিটি এবং জাতীয় পরিকল্পনা কাঠামো তৈরির তাগিদ দিয়েছে জনপ্রতিনিধি ও সমাজের বিভিন্ন খাতের ব্যক্তিরা। তারা বলেছেন, এই পরিকল্পনা বাস্তবায়নে রাজস্ব আদায়ের পরিধি বৃদ্ধির পাশাপাশি কালোটাকার উৎস বন্ধ করতে হবে। সোমবার বাস্তবায়ন ও চ্যালেঞ্জ : স্থায়িত্বশীল উন্নয়ন লক্ষ্য-২০৩০ এবং ৭ম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা শীর্ষক এক আলোচনায় বক্তারা তাগিদ দেন। জাতীয় সংসদ ভবনের শপথ কক্ষে সুশাসনের জন্য প্রচারাভিযান-সুপ্র এ আলোচনার আয়োজন করে।

এতে জাতীয় পরিকল্পনা ও বাজেট সম্পর্কিত সংসদীয় ককাস ও সংসদীয় সদস্যরা অংশ নেন। সুপ্র’র নির্বাহী বোর্ড সদস্য আবদুল আউয়ালের সঞ্চালনায় সভায় সভাপতিত্ব করেন ড. রুস্তম আলী ফরাজী, এমপি। সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন সংসদীয় ককাসের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হক প্রধান, এমপি, শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সুপ্র’র সাধারণ সম্পাদক মোঃ আরিফুর রহমান। সভায় ধারণাপত্র উপস্থাপন করেন সুপ্র’র পরিচালক এলিসন সুব্রত বাড়ৈ। সভায় বক্তারা বলেন, স্থায়িত্বশীল উন্নয়ন লক্ষ্য ও ৭ম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনায় জনগণের আশা ও আকাক্সক্ষার যথেষ্ট প্রতিফলন ঘটেছে। প্রয়োজন সকল চ্যালেঞ্জ সম্মিলিতভাবে মোকাবেলা করার কৌশল নির্ধারণ ও যথাযথ বাস্তবায়নের কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ। এসডিজি ও ৭ম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনা কার্যকর ও স্বচ্ছভাবে বাস্তবায়নে সংসদের সক্রিয় ভূমিকার জোরালো দাবি তোলা হয়।