২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

জঙ্গীবাদ দমনে বিশেষ গুরুত্ব দিয়ে ভারত বাংলাদেশ সচিব পর্যায়ের বৈঠক আজ

বিশেষ প্রতিনিধি ॥ সন্ত্রাসবাদ দমন, সীমান্ত উত্তেজনা প্রশমন ও সীমান্তরক্ষী বাহিনীর অনুপ্রবেশ রোধসহ বিভিন্ন বিষয়ে বাংলাদেশ ও ভারতের সচিব পর্যায়ের প্রথম দিনের বৈঠক শেষ হয়েছে। চূড়ান্ত বৈঠকের আগে সোমবার এ প্রস্তুতি বৈঠক করেছে দু’পক্ষের জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপ। আজ মঙ্গলবার বসবে সচিব পর্যায়ের চূড়ান্ত বৈঠক। প্রস্তুতিমূলক বৈঠকে নির্বাচিত বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে চূড়ান্ত বৈঠকটিতেই। সূত্র বলছে, বিভিন্ন ইস্যুতে আলোচনার পর মঙ্গলবারের বৈঠকে দু’পক্ষের মধ্যে কিছু সিদ্ধান্ত ও চুক্তি হবে।

সোমবার রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপের আনুষ্ঠানিক বৈঠকটি হয়। দুপুর দুটায় শুরু হওয়া এ বৈঠক চলে বিকেল সাড়ে পাঁচটা পর্যন্ত। অবশ্য, অনানুষ্ঠানিক আলোচনা চলে সন্ধ্যা পর্যন্ত।

বৈঠকে বাংলাদেশের পক্ষে নেতৃত্ব দেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব আবু হেনা মোঃ রহমাতুল মুমিন। ভারতের পক্ষে নেতৃত্ব দেন দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব এম এ গণপতি। বাংলাদেশের পক্ষে অংশ নেয় ১৫ সদস্যের প্রতিনিধি দল। আর ভারতের পক্ষে অংশ নেয় ১২ সদস্যের প্রতিনিধি দল। শুরুতে এ বৈঠকে যোগ দেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. মোঃ মোজাম্মেল হক খান এবং ভারতের কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র সচিব রাজীব মেহর্ষি। পরে বৈঠক চলাকালে বিকেল তিনটায় ভারতের স্বরাষ্ট্র সচিব বাংলাদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের সঙ্গে সাক্ষাত করেন। এ সময় বিএসএফ মহাপরিচালক ডিকে পাঠক ও ভারতীয় হাইকমিশনার পঙ্কজ শরণ উপস্থিত ছিলেন। অবশ্য, বৈঠক শেষে কেউই সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেননি।

জয়েন্ট ওয়ার্কিং গ্রুপের বৈঠক সূত্র জানায়, সন্ত্রাসবাদ মোকাবেলা, অনুপ্রবেশ রোধ, সীমান্ত উত্তেজনা প্রশমন, চোরাচালান বন্ধসহ পনেরোটিরও বেশি বিষয় চূড়ান্ত বৈঠকের জন্য নির্ধারণ করা হয়।

বৈঠকের এক পর্যায়ে যুগ্ম-সচিব শফিকুর রহমান জানান, বিজিবি-বিএসএফ যেন সীমান্ত থেকে অভ্যন্তরে অনুপ্রবেশ না করে, সীমান্তে যেন উত্তেজনা সৃষ্টি না হয়- এসব মিলিয়ে প্রায় ১৫ বিষয় চূড়ান্ত বৈঠকের জন্য নির্ধারণ করা হয়েছে।