২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আল কায়েদার চেয়েও ভয়াবহ আইএস

ইসলামিক স্টেট (আইএস) আল কায়েদার মতো দলগুলোকে ছাড়িয়ে গিয়ে আধুনিক সময়ের সবচেয়ে ভয়াবহ সন্ত্রাসী সংগঠনে পরিণত হচ্ছে। এর মতবাদের প্রতি বিশ্বজুড়ে সমর্থন, স্বল্প ব্যয়ে বেশি প্রভাব সৃষ্টির কৌশল এবং সদস্য সংখ্যা বৃদ্ধির ফলে আইএস আল কায়েদার চেয়েও বড় হুমকি হয়ে দেখা দিয়েছে। শুক্রবার প্যারিসে সংঘটিত হামলা ফ্রান্সে ইতোপূর্বে চালানো হামলা এবং বিভিন্ন দেশে কর্মী নিয়ে চালানো বিক্ষিপ্ত হামলা আগামী দিনগুলোতে সম্ভাব্য হামলার বিরুদ্ধে সতর্ক হতে ভারতের প্রতি সংকেত স্বরূপ। খবর হিন্দু অনলাইনের।

ভারতীয় সংস্থাগুলো কোন অত্যাসন্ন হুমকির সম্ভাবনা নাকচ করে দিলেও দেশে নতুন কায়দায় আইএস ধরনের হামলা ঘটার উচ্চ সম্ভাবনা রয়েছে। আর এর অর্থ এই যে, স্থানীয় অভাব-অভিযোগের আইএসের প্রচারণায় স্থান পাওয়ার সম্ভাবনার বিরুদ্ধে রাজনৈতিক এস্টাবলিশমেন্টকে সজাগ থাকতে হবে। বিভাজনমূলক ও পশ্চাৎমুখী কথাবার্তা-প্রভাবিত নতুন রাজনৈতিক পরিবেশে মূলধারার বাইরের গোষ্ঠীগুলো এরই মধ্যে বিস্তৃতি পাচ্ছে।

আইএস আল কায়েদার মতো বড় হামলার প্রস্তুতি না নিলেও তাৎক্ষণিক লক্ষ্য খিলাফত প্রতিষ্ঠা এবং শিয়া ও অন্য সংখ্যালঘুদের নির্মূল করার দিকে দৃষ্টি দিয়েছে। কিন্তু এটি অনেক দেশেই বহুসংখ্যক অনুসারী সৃষ্টি করতে পেরেছে। এর অর্থ হলো এটি এখন এক হিংসাশ্রয়ী বিশ্ব মতবাদ।

মুর্শিদাবাদে কালীপূজায় নরবলি!

ভারতের মুর্শিদাবাদের ইছাপুরদিয়ারে রবিবার সকালে সুভাষ ম-ল (১০) নামে এক স্কুলবালকের মাথা বিচ্ছিন্ন করা মৃতদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তার বাড়ি থেকে প্রায় পাঁচ শ’ মিটার দূরে এক কলাবাগানের ভেতর লাশ পাওয়া যায়। ছেলেটি শনিবার সন্ধ্যায় কালীপূজা দেখতে গিয়েছিল। নিহত ছেলেটির বাড়ি মুর্শিদাবাদের জিয়াগঞ্জ ব্লকের নশিপুর পঞ্চায়েতের জাফরাগঞ্জদিয়ারে। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।

পুলিশের ধারণা, শনিবার গভীর রাতে খুনের ঘটনাটি ঘটেছে। ঘটনাস্থলে চাপ চাপ রক্ত পড়েছিল। অন্য কোথাও খুন করে দেহ কলাবাগানে ফেলে রাখা হয়েছে। বলি দেয়ার আশঙ্কাও উড়িয়ে দিচ্ছেন না তদন্তকারী পুলিশ কর্মকর্তারা। মুর্শিদাবাদের পুলিশ সুপার সি সুধাকর বলেন, খুনের কারণ স্পষ্ট নয়। মাথা কাটার ধরন দেখে পুরো ঘটনায় তন্ত্র-সাধনার যোগ থাকার সম্ভাবনা উড়িয়ে দেয়া যাচ্ছে না। পরে ঘটনাস্থলে পুলিশ কুকুর নিয়ে তদন্ত পরিচালনা করে। তবে সন্দেহজনক কিছু পাওয়া যায়নি।

নীল জামা, নীল জিন্সের প্যান্ট, সাদা স্পোর্টস জুতো পরা অবস্থায় একটি মৃতদেহ উপুড় হয়ে পড়ে থাকতে দেখে এলাকার লোকজন। পরনের পোশাক দেখে পরিবারের সদস্যরা মৃতদেহ শনাক্ত করেন। দুই ভাইয়ের মধ্যে ছোট সুভাষ।