২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

অবশেষে আলোচিত সেই ম্যাচ আজ ॥ বাংলাদেশ বনাম অস্ট্রেলিয়া

রুমেল খান ॥ কম ব্যবধানে হেরে সম্মানজনক হার, নাকি অসাধারণ খেলে ড্র করা? একদিকে চারবার ফিফা বিশ্বকাপের মূলপর্বে খেলা এশিয়ার ‘নতুন শক্তি’ পরাক্রম অস্ট্রেলিয়া (ফিফা র‌্যাঙ্কিং ৬০)। অন্যদিকে কখনও বিশ্বকাপের মূলপর্বে না খেলা দক্ষিণ এশিয়ার অন্যতম ফুটবল শক্তি বাংলাদেশ (ফিফা র‌্যাঙ্কিং ১৮০)। ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব এবং এএফসি এশিয়ান কাপের বাছাইপর্বের ম্যাচে (গ্রুপ ‘বি’) এই দুটি দল আজ পরস্পরকে মোকাবেলা করতে দেখা যাবে। সেটা বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে বিকেল সাড়ে ৫টায়।

গত ৩ সেপ্টেম্বর এ্যাওয়ে ম্যাচে পার্থে অস্ট্রেলিয়ার কাছে ৫-০ গোলে ধরাশায়ী হয়েছিল বাংলাদেশ। তখন এই দুই দলের র‌্যাঙ্কিং ছিল যথাক্রমে ৬১ ও ১৭০। দুই মাস পর দেখা যাচ্ছে সকারুরা যেন র‌্যাঙ্কিংয়ে একধাপ উন্নতি করেছে, তেমনি গ্রুপেও শীর্ষ দুই দলের মধ্যে আছে। ৫ ম্যাচে ৪ জয় ও ১ হারে ১২ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে তারা (এক পয়েন্ট বেশি নিয়ে তাদের ওপরে জর্দান, তাদের কাছেই একমাত্র হারটি অস্ট্রেলিয়ার)। পক্ষান্তরে ৬ ম্যাচে ৫ হার ও ১ ড্রয়ে ১ পয়েন্ট নিয়ে পাঁচ দলের মধ্যে তলানিতে আছে বাংলাদেশ। উল্লেখ্য, বিশ্বকাপ বাছাইপর্বে ঘরের মাঠে আজ বাংলাদেশের শেষ ম্যাচ।

র‌্যাঙ্কিংয়ে অস্ট্রেলিয়ার চেয়ে যোজন ব্যবধানে পিছিয়ে বাংলাদেশ। তাই আজকের ম্যাচে অস্ট্রেলিয়াই পরিষ্কার ফেবারিট। পক্ষান্তরে বাংলাদেশের হারানোর কিছুই নেই। বরং প্রতিপক্ষের মাটিতে কিছুটা হলেও চাপের মুখে থাকবে সকারুরাই। তারপরও এটা ফুটবল। এখানে অনেক কিছুই ঘটতে পারে। রক্ষণাত্মক খেলে প্রতি-আক্রমণে যাওয়াটাই কৌশল হবে মামুনুলবাহিনীর। সোমবার বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে বাংলাদেশ দল অনুশীলন করলেও অস্ট্রেলিয়া দল করেনি। অনুশীলনের কাজটা তারা সিঙ্গাপুরেই সেরে এসেছে!

বাংলাদেশ দলের কোচ ফ্যাবিও লোপেজ সোমবার ম্যাচপূর্ব এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘অস্ট্রেলিয়া এশিয়ার এক নম্বর দল। তাদের অনেক ভালমানের খেলোয়ার রয়েছে যারা ইউরোপে বিভিন্ন লীগে খেলে। তাই এই ম্যাচে আমরা অবশ্যই আন্ডারডগ।’ তিনি আরও যোগ করেন, ‘এটা ঠিক, সর্বশেষ ম্যাচে আমরা তাজিকিস্তানে গিয়ে তাদের বিরুদ্ধে খেলে বাজেভাবে হেরেছি। তবে ঘরের মাঠে আমরা চেষ্টা করব অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে ভাল খেলে তাদের রুখে দিতে।’

দলীয় সহ-অধিনায়ক জামাল ভুঁইয়া বলেন, ‘আমাদের হারানোর কিছু নেই । আমরা ভয় পাচ্ছি না। তারা আমাদের চেয়ে সবদিক দিয়েই অনেক এগিয়ে। আমাদের একটাই লক্ষ্য ভাল খেলা।’

সোমবার সিঙ্গাপুর থেকে বিশেষ বিমানে করে সন্ধ্যা ৬টায় পৌঁছে অস্ট্রেলিয়া জাতীয় ফুটবল দল। সেখান থেকে তারা সরাসরি চলে যায় গুলশানের একটি হোটেলে। সেখানেই তারা রাত সাড়ে ৯টায় ম্যাচপূর্ব সংবাদ সম্মেলনে অংশ নেয়।

অস্ট্রেলিয়ার কোচ এ্যান্ডে পোস্তেকোগলু বলেন, ‘আমরা এখানে আসার আগে সিঙ্গাপুরে বিরতি নিয়ে সেখানে অনুশীলন করে এসেছি। জয়ের ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী। তবে বাংলাদেশের মাটিতে খেলা বলে অবশ্যই তাদের সমীহ করেই খেলবো।’

উল্লেখ্য, সম্প্রতি নিরাপত্তার অজুহাত দেখিয়ে বাংলাদেশ সফর বাতিল করে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল। তারই জের ধরে বেঁকে বসে অস্ট্রেলিয়ার ফুটবল দলও। শুধু তাই নয়, ফিফা এবং এএফসির কাছে বাংলাদেশে না খেলার জন্য আবেদনও করে তারা। কিন্তু ফিফা তাদের এ রকম প্রস্তাব নাকচ করে দেয়। ফলে যথাসময়েই অনুষ্ঠিত হচ্ছে বহুল আলোচিত এই ম্যাচটি।

ফিফা বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচ খেলতে অস্ট্রেলিয়া ফুটবল দলের বাংলাদেশে আসার কথা ছিল গত শনিবার রাতে। কিন্তু আসার ঘোষণা দিয়েও তারা যথাসময়ে আসেনি। শুধু তাই নয়, তারা যে যথাসময়ে আসবে না সেটা বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনকেও (বাফুফে) জানায়নি। বরং বাফুফেই নিজ উদ্যোগে এফএফএ’র সঙ্গে যোগাযোগ করে বিষয়টি জানতে পারে। অবস্থাটা এমনই মনে হয়েছে, বাফুফে জানতে না চাইলে হয়তো এফএফএ জানাতোই না!

সে যাই হোক, সকারুরা মর্মে মর্মে অনুধাবন করছে ফিফা কি জিনিস। শুরুতে বাংলাদেশে আসতে না চাইলেও ফিফার ধমকে তারা লেজ গুটিয়ে এবং অনেক জল ঘোলা করে অবশেষে বাংলাদেশে এসেছে। এখন দেখার বিষয় আজ অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে কেমন ফল করে বাংলাদেশ।