১৩ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ইউনুসের সিরিজ শেষ করা উচিত ছিল ॥ ওয়াকার

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ আরব আমিরাতে টেস্ট শেষে এখন চার ওয়ানডের সিরিজ খেলছে পাকিস্তান ও ইংল্যান্ড। প্রথম ওয়ানডের ঠিক আগে আচমকাই ওয়ানডে থেকে অবসরের ঘোষণা দেন অভিজ্ঞ ইউনুস খান। দলটির প্রধান কোচ ও সাবেক তারকা ক্রিকেটার ওয়াকার ইউনুস বলেছেন, ‘একটা সিরিজ চলাকালে এভাবে হুট করে অবসর নেয়া হতাশার। ইউনুসের অবশ্যই সিরিজ শেষ করা উচিত ছিল।’ তবে টেস্টের ইউনুসকে নিয়ে নিজের গর্বের কথাও গোপন করেননি। তাকে পাকিস্তান ইতিহাসের অন্যতম সফল ব্যাটসম্যান বলে অভিহিত করেছেন। একই সঙ্গে টেস্ট ক্রিকেটে ইউনুস প্রথম পাকিস্তানী হিসেবে ১০ হাজার রানের ল্যান্ডমার্ক পেরোবেন বলেও মনে করেন কোচ। ওয়াকার বলেন, ‘একটা সিরিজ চলাকালে কারও হুট করে অবসর নেয়াটা দুঃখজনক। ইউনুসের অবশ্যই সিরিজটা শেষ করা উচিত ছিল।’ কোচের এমন মন্তব্যের পর অবশ্য ইউনুসের প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি। ওয়ানডে ছাড়ায় হতাশ হলেও টেস্টের ইউনুস তথা একজন সফল ব্যাটসম্যান হিসেবে তাকে নিয়ে গর্বিত ওয়াকার। কোচ আরও যোগ করেন, ‘শেষ পর্যন্ত তার সিদ্ধান্তটাই শেষ কথা। এর ওপর কারও হস্তক্ষেপ করার অধিকার নেই। আমরাও সেটি চাইব না। আশা করব টেস্টে নির্ভার হয়ে আরও ভাল করবে ইউনুস। ও পাকিস্তান ইতিহাসেরই একজন সেরা ব্যাটসম্যান। যার জন্য ব্যক্তিগতভাবে আমি গর্ববোধ করি। আশাকরি অবসরের আগে প্রথম পাকিস্তানী টেস্টে ১০ হাজার রানের রেডর্ক গড়বে ইউনুস।’ উল্লেখ্য, অবসর প্রসঙ্গে পরিবারকে আরও বেশি করে সময় দেয়া ও ভবিষ্যত প্রজন্মকে জায়গা ছেড়ে দেয়ার কথাই বলেছেন ইউনুস। তার বক্তব্য, ‘ওয়ানডে থেকে অবসরের ঘোষণা দিতে পেরে আমি আনন্দিত। কারণ মাঠ থেকে বিদায় নিতে পারছি! পরিবার, আত্মীয় এবং ঘনিষ্ঠ বন্ধুদের সঙ্গে আলাপ করেই সিদ্ধান্তটা নিয়েছি।’ তিনি আরও যোগ করেন, ‘শ্রষ্ঠার প্রতি কৃতজ্ঞ যে দীর্ঘদিন পাকিস্তানের সেবা করতে পেরেছি। আগেই টি২০ ছেড়েছি। মনে হয়েছে ওয়ানডে ছাড়ার এটাই সঠিক সময়। এতে করে পরিবারকে সময় দিতে পারব। টেস্টে আরও বেশি করে মনোযোগী হতে পারব।’ দেশের প্রতি ভালবাসার কথা জানিয়ে বলেন, ‘ক্রিকেট আমার প্যাশন। ছোটবেলা থেকে এখনো এটিকে সমানভাবে ভালবাসি। ভালবাসি বলেই চালিয়ে যাচ্ছি (টেস্টে)। ১৫ বছরের ওয়ানডে ক্যারিয়ারে সবসময় পাকিস্তানের সাফল্যের জন্য খেলেছি। দলের জয়ে আনন্দটা উপভোগ করেছি।’ ২০০০ সালের ১৩ ফেব্রুয়ারি করাচিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচে ওয়ানডে অভিষেক হয় ইউনুসের। ১৫ বছরের ক্যারিয়ারে ২৬৪ ম্যাচে ৩২ গড়ে মোট ৭,২৪০ রান সংগ্রহ করেছেন। সেঞ্চুরি ৭ ও হাফ সেঞ্চুরি ৪৮টি। ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ ১৪৪ কলম্বোতে ২০০৪ সালে, হংকংয়ের বিপক্ষে ইনিংসটি খেলেছিলেন তিনি।