২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

আইএস নির্মূলে ॥ রুশ-ফরাসী যৌথ অভিযান

  • ভূমধ্যসাগরে যুদ্ধজাহাজ মস্কভাকে ফরাসী নৌবাহিনীর সঙ্গে কাজ করার নির্দেশ

ইসলামিক স্টেটের (আইএস) বিরুদ্ধে লড়াই ফ্রান্সের সঙ্গে যৌথভাবে অংশ নেবে রাশিয়া। উভয় দেশেরই প্রায় একই রকম জঙ্গী হামলার টার্গেট হওয়ার অভিজ্ঞতা থাকায় জিহাদী গ্রুপটির বিরুদ্ধে দেশ দুটি এখন একসঙ্গে যুদ্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। দুই দেশের প্রেসিডেন্ট বিষয়টি স্পষ্ট করে জানিয়েছেন। খবর এএফপি, এক্সপ্রেস ও ডেইলি মেইল অনলাইনের।

সিরিয়ার বৃহত্তম শহর আলেপ্পোতে মঙ্গলবার আইএসের অবস্থান লক্ষ্য করে রুশ ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানোর পর রুশ প্রেসিডেন্ট ভøাদিমির পুতিন ও ফরাসী প্রেসিডেন্ট ফ্রাঁসোয়া ওলাঁদের পক্ষ থেকে আইএসের যৌথভাবে লড়াইয়ের ঘোষণাটি আসে। দু’নেতার মধ্যে এদিন টেলিফোনে কথা হয়। এর কয়েক ঘণ্টা আগে মস্কো আনুষ্ঠানিকভাবে স্বীকার করে যে, গত মাসে মিসর থেকে রাশিয়াগামী রুশ বিমানটি আইএসের হামলায় বিধ্বস্ত হয়েছিল। মঙ্গলবার বিকেলে সংবাদ সম্মেলনে রুশ প্রতিরক্ষামন্ত্রী সের্গেই শোইগু জানান, সিরিয়ার ইদলিব, আলেপ্পো ও রাকায় আইএসের অবস্থান লক্ষ্য করে রাশিয়া ক্রুজ মিসাইল হামলা চালিয়েছে। রাকা আইএসের রাজধানী হিসেবে বিবেচনা করা হয়ে থাকে। এর আগে পুতিন রুশ বিমান ধ্বংসকে একটি সন্ত্রাসী কাজ অ্যাখ্যা দিয়ে এর সঙ্গে জড়িতদের ‘খুঁজে’ বের করে ‘শাস্তি’ দেয়ার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন। তিনি বোমা হামলায় জড়িতদের বিষয়ে খবর দিতে পারলে ৩ কোটি ৩০ লাখ পাউন্ড পুরস্কার দেয়ার ঘোষণা দেন।

৩০ সেপ্টেম্বর সিরিয়ায় রাশিয়া সামরিক অভিযান শুরুর পর মঙ্গলবার মস্কো প্রথম বারের মতো এ বিষয়ে ওয়াশিংটনের সঙ্গে তথ্য বিনিময় করেছে। যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা দফতর পেন্টাগন বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। পেন্টাগনের মুখপাত্র পিটার কুক বলেছেন, ‘রাশিয়ার আমাদের সঙ্গে যে তথ্য বিনিময় করেছে তা পেশাদারীমূলক। যেন আমাদের বিমান ওই এলাকায় থাকলে আমরা সমম্বয় করে নিতে পারি।’ কুক বলেন, রুশ বাহিনী সিরিয়ায় বেশ কয়েক স্থানে আঘাত হেনেছে। সিরিয়ায় রাশিয়ার আইএস বিরোধী অভিযান নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের বরাবরই আপত্তি ছিল। যুক্তরাষ্ট্র বলে আসছে, মস্কোর এ পদক্ষেপ আইএসকে দুর্বল করার চেয়ে সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদের হাতকেই শক্তিশালী করবে। অভিযান নিয়ে মস্কোর তথ্য বিনিময় সত্ত্বেও ওয়াশিংটনের অবস্থান পরিবর্তন হবে না বলে কুক জানিয়ে দেন।

শুক্রবার রাতে প্যারিসের ছয়টি জায়গায় একযোগে চালানো বন্দুক হামলার ১৩২ জন নিহত হওয়ার পর ফ্রান্স জঙ্গীগ্রুপ আইএসকে নিশ্চিহ্ন করার প্রত্যয় ব্যক্ত করে। আইএস নির্মূল অভিযানে অংশ নিতে ওলাঁদ যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া ও ইউরোপীয় মিত্রদের প্রতি আহ্বান জানান। মঙ্গলবার রাতে সিরিয়ার রাকা শহরে ফরাসী বিমান বাহিনী আক্রমণ জোরদার করে। এতে ১০টি বিমান অংশ নেয় বলে ফরাসী প্রতিরক্ষামন্ত্রী নিশ্চিত করেছেন।

ভূমধ্যসাগরে অবস্থানরত যুদ্ধজাহাজ মস্কভাকে পুতিন ফরাসী নৌবাহিনীর সঙ্গে কাজ করার নির্দেশ দিয়েছেন। এছাড়া সিরিয়ার খ্রিস্টান অধ্যুষিত সাদাদ শহরে রাশিয়া প্যারামিলিটারি বাহিনী পাঠাচ্ছে বলে খবর পাওয়া গেছে। এর আগে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি বলেছিলেন, মার্কিন নেতৃত্বাধীন সামরিক অভিযানের ফলে আইএস এখন ক্রমাগত নিজেদের দখলে রাখা ভূখ-গুলো হারাচ্ছে। ‘তিনি বলেন আমরা এ বিষয়ে মিত্রদের সঙ্গে তথ্য বিনিময় করছি। আমি নিশ্চিত যে, আগামী কয়েক সপ্তাহে তারা আরও দুর্বল হয়ে পড়বে।’ আইএসের আরবী নাম উল্লেখ করে কেরি বলেন, ‘আমরা যত ভূখ- দখল করবো দায়েশ নিজেদের দখলে রাখা সেই পরিমাণ ভূমি হারাবে।’