১৭ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

১০ বছরে ৭ বার মন্দার মুখে জাপানের অর্থনীতি

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ ১৯৯৬ সালের পর থেকে এখন পর্যন্ত মোট ৭ বার মন্দার মুখে পড়েছে জাপানের অর্থনীতি। যার ফলে বিশ্বের দ্বিতীয় শীর্ষ অর্থনীতির স্থান হারাতে হয়েছে দেশটিকে। অর্থনীতি চাঙ্গা করতে গিয়ে নানা পদক্ষেপ নিয়েও ব্যর্থ জাপানের নীতিনির্ধারকরা।

এক সময় এশিয়ার সবচেয়ে শক্তিশালী অর্থনীতির দেশ বলতে বোঝানো হতো জাপানকেই। পরিচিতি ছিল বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম অর্থনীতি হিসেবেও। কিন্তু গত ২০ বছরে দফায় দফায় মন্দার শিকার হয়ে অর্থনীতির সেই জৌলুস যেন হারাতে বসেছে দেশটি। সেই জায়গা এখন চীনাদের দখলে।

মূলত গত দুই দশকেরও বেশি সময় ধরে চলা মূল্য সংকোচন সমস্যা, বয়স্ক লোকের সংখ্যা বাড়া, বিশ্বমন্দার প্রভাবে রফতানি ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া এবং ২০১১ সালের ভয়াবহ সুনামি- জাপানের এই দুর্দশার জন্য দায়ী। কিন্তু বিক্রয় কর বাড়ানো, সম্প্রসারণশীল মুদ্রানীতি গ্রহণসহ দফায় দফায় নানা উদ্যোগ নিয়েও পরিস্থিতির কোন উন্নয়ন করতে পারেনি নিত্যনতুন প্রযুক্তির উদ্ভাবক দেশটির নীতিনির্ধারকরা। বরং বিক্রয় কর বাড়ানোয় কেনাকাটায় নিরুৎসাহিত হয়ে পড়েছেন জাপানীরা। যার মাসুল গুনতে হচ্ছে দেশটির অভ্যন্তরীণ অর্থনীতিকে। এমনকি বিফলে গেছে বিশ্বব্যাপী অ্যাবেনোমিক্স নীতি হিসেবেই পরিচিতি পাওয়া প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবের নেয়া পদক্ষেপও। আর তার প্রমাণ দেশটির সাম্প্রতিক অবস্থা। গত প্রান্তিকেও জাপানের অর্থনীতি শূন্য দশমিক ৮ শতাংশ সংকুচিত হয়েছে। রফতানি কমায় পণ্য উৎপাদন কমিয়ে দিয়েছে ব্যবসায়ীরা। এমন অবস্থায় শুধু প্রবৃদ্ধি বাড়ানোর দিকে মনোযোগ না দিয়ে শ্রমবাজার পুনর্গঠনসহ মূল সমস্যা উদঘাটনের পরামর্শ বিশ্লেষকদের।

নির্বাচিত সংবাদ