২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

দলবদলে চমকের অপেক্ষা...

দলবদলে চমকের অপেক্ষা...
  • ঠিকানা পাল্টাতে পারেন রোবেন, লেভানডোস্কি, সানচেজ, ইব্রাহিমোভিচরা

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ আসছে জানুয়ারির দলবদলের মৌসুমে চমকের পর চমক দেখতে পারে ফুটবলবিশ্ব। দিন যতই ঘনিয়ে আসছে গুঞ্জন ও আলোচনার ডালপালা ততই জোরালো হচ্ছে। ইতোমধ্যে চাউর হয়েছে সময়ের দুই সেরা তারকা লিওনেল মেসি ও ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো স্পেন ছাড়তে পারেন! এমনকি নেইমারও ছাড়তে পারেন বার্সিলোনা।

এমন গুঞ্জনের কয়েকদিন পর খবর রটেছে, জার্মান পরাশক্তি বেয়ার্ন মিউনিখ থেকে ঠিকানা বদল করতে পারেন হল্যান্ডের তারকা অ্যারিয়েন রোবেন ও পোল্যান্ডের রবার্ট লেভানডোস্কি। মেসি ও রোনাল্ডোর মতো এদেরও নতুন স্থান হতে পারে ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগে। সাম্প্রতিক সময়ে যে আভাস, তাতে ভবিষ্যতে ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগে তারকার হাট বসতে যাচ্ছে। গুঞ্জনের আংশিক সত্য হলেও ভাঙ্গন ধরবে রিয়াল মাদ্রিদ ও বার্সিলোনায়। আর ইপিএল হবে আরও জমজমাট ও উপভোগ্য।

জানুয়ারির দলবদলে ডাচ তারকা রোবেনের ইংলিশ ক্লাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে যাওয়ার সম্ভাবনা বেশ জোরালো মনে হচ্ছে। ডেইলি মিরর জানাচ্ছে, ম্যানইউর বর্তমান কোচ লুইস ভ্যান গাল স্বদেশী তারকাকে দলে ভেড়াতে ইচ্ছুক। এর আগেও ভ্যান গালের শিষ্য ছিলেন রোবেন। এবার নতুন করে ফের জুটিবদ্ধ হতে পারেন রোবেন-ভ্যান গাল। রোবেনের সঙ্গে মিউনিখ ছেড়ে ওল্ডট্র্যাফোর্ডে আসতে পারেন আরেক সুপারস্টার রবার্ট লেভানডোস্কি। দুর্দান্ত ধারাবাহিকতা প্রদর্শন করে চলা পোলিশ এই তারকার দিকে তীক্ষè দৃষ্টি রেখেছেন ভ্যান গাল। ধারণা করা হচ্ছে এই গোলমেশিনকেও দলে নেয়ার চেষ্টায় আছে রেড ডেভিলসরা।

স্প্যানিশ ক্লাব বার্সিলোনায় সময় মন্দ যায়নি অ্যালেক্সিস সানচেজের। তবে শেষ পর্যন্ত নুক্যাম্পে নিজেকে স্থায়ী করতে পারেননি চিলিয়ান ফরোয়ার্ড। বর্তমানে খেলছেন ইংলিশ ক্লাব আর্সেনালে। আসছে দলবদলে ফের তার ঠিকানা বদল হতে পারে। শোনা যাচ্ছে গানার্স তারকাকে দলে ভেড়াতে পারে স্প্যানিশ পরাশক্তি রিয়াল মাদ্রিদ। তবে ওয়েম্বলি থেকে বার্নাব্যুতে যেতে সানচেজকে অনেক কাঠখড় পোহাতে হতে পারে বলে ইঙ্গিত দিয়েছে আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যম।

এদিকে ফরাসী ক্লাব প্যারিস সেইন্ট-জার্মেইন ছেড়ে ইংলিশ প্রিমিয়ার লীগে নাম লেখানোর গুঞ্জন রটেছে জ¬াতান ইব্রাহিমোভিচের। তবে সুইডিশ সুপারস্টার এমন সম্ভাবনার কথা উড়িয়ে দিয়েছেন। ইব্রা বলেন, আমার ইংল্যান্ডে যাওযার সম্ভাবনা নেই। এই সময় আসতে অনেক দেরি। তিনি আরও বলেন, আমি পিএসজিতেই অনেক সুখে আছি। আমার চুক্তির মেয়াদ এখনও আছে। আশা করছি এটা বাড়বে। ইব্রা বলেন, আমি এখানে (পিএসজি) উপভোগ করছি। প্রতিটি দিন মাঠ ও মাঠের বাইরে উপভোগ্য সময় কাটাচ্ছি। আমি সর্বোচ্চ পর্যায়ে খেলছি। এখানেই আমার ক্যারিয়ার শেষ করার ইচ্ছা আছে।

ইব্রার এমন পিএসজি প্রীতির কারণও আছে। কেননা এই ক্লাবের হয়েই মাসখানেক আগে গৌরবময় রেকর্ড গড়েছেন তিনি। ফরাসী লীগ ওয়ানের ম্যাচে অলিম্পিক মার্শেইয়ের বিরুদ্ধে দুই গোল করে এই কৃতিত্ব গড়েন সুইডিশ তারকা। ইতালিয়ান ক্লাব এসি মিলান থেকে ২০১২ সালে পিএসজিতে নাম লেখান ইব্রাহিমোভিচ। ফ্রান্সের শীর্ষ ক্লাবটির হয়ে এখন পর্যন্ত ১১৫ গোল করেছেন গত ৩ অক্টোবর ৩৪ বছরে পা রাখা এই ফরোয়ার্ড। এর আগে পিএসজির হয়ে সর্বোচ্চ ১০৯টি গোলের রেকর্ড ছিল পেড্রো পলেটার। ২০০৩ থেকে ২০০৮ সাল পর্যন্ত পিএসজিতে খেলেন পর্তুগালের এই ফুটবলার। অথচ এর কয়েক মাস আগেই ইব্রা বেয়ার্ন মিউনিখে খেলার ইচ্ছার কথা জানিয়েছিলেন। এক সাক্ষাতকারে পেশাদার ক্যারিয়ারের ইতি টানার আগে সেখান থেকে জার্মান ক্লাব বেয়ার্নে খেলার আকাক্সক্ষার কথা জানান ইব্রা। ওই সময় ইব্রার পিএসজি ছাড়ার গুঞ্জন শোনা যায়। সাবেক বার্সিলোনা তারকার ইচ্ছা মিউনিখের ক্লাবটিতে খেলা। সাক্ষাতকারে সে সময় ইব্রাহিমোভিচ বলেন, আমি ক্যারিয়ার শেষ করার আগে বুন্দেসলীগায় খেলতে আগ্রহী। এক্ষেত্রে বেয়ার্নের হয়ে খেলার ইচ্ছাটাই বেশি। আমার সামনে এখনও সময় আছে। মনে হয় একদিন তাদের হয়ে মাঠে নামতে পারব।

আমি যদি জার্মানে পাড়ি দিই সেক্ষেত্রে বেয়ার্নের হয়ে খেলার সর্বোচ্চ চেষ্টা করব। তারা বিশ্বের সেরা পাঁচটি ক্লাবের মধ্যে অন্যতম। অবশ্য পেপ গার্ডিওলা বেয়ার্ন মিউনিখের কোচ থাকা অবস্থায় ইব্রার ইচ্ছা পূরণ হবে কিনা তা বলা মুশকিল। কেননা এই স্প্যানিশ কোচের অধীনে বার্সায় খেলার সময় দুজনের সম্পর্কটা বেশ শীতল ছিল। এ কারণেই ক্যাটালানদের হয়ে মাত্র এক মৌসুম (২০০৯-১০) খেলেই ন্যুক্যাম্প ছাড়তে হয় ইব্রাকে। সে সময় ধারে যোগ দিয়েছিলেন ইতালিয়ান ক্লাব এসি মিলানে। মিলান হয়ে ২০১২ সাল থেকে খেলছেন পিএসজির হয়ে।