২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

মেসির ছায়া থেকে বেরিয়ে আসছেন নেইমার!

মেসির ছায়া থেকে বেরিয়ে আসছেন নেইমার!

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ মৌসুমের প্রথম এল ক্ল্যাসিকো আসন্ন। শনিবার রাতে স্প্যানিশ লা লিগার ম্যাচে মুখোমুখি হওয়ার অপেক্ষায় দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদ ও বার্সিলোনা। তবে ম্যাচটিকে ঘিরে আয়োজকরা নিয়েছে বাড়তি নিরাপত্তা। সম্প্রতি ফ্রান্সের প্যারিসে ভয়াবহ সন্ত্রাসী হামলার পর সবখানেই বিরাজ করছে আতঙ্ক। নির্বিঘেœ ম্যাচ আয়োজন করতে তাই নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে দেয়ার পরিকল্পনা করা হয়েছে সান্টিয়াগো বার্নাব্যু স্টেডিয়াম।

প্যারিসে সিরিজ হামলার জের ধরে পুরো বিশ্বজুড়েই সতর্ক অবস্থান বিরাজ করছে। বিশ্ব ক্রীড়াঙ্গনও এর বাইরে নয়। এল ক্ল্যাসিকোকে ঘিরে স্পেনের শীর্ষ নিরাপত্তা কর্মকর্তারা বুধবার মিলিত হয়ে সম্ভাব্য ঝুঁকি নিয়ে আলোচনা ও নিজেদের করণীয় ঠিক করেছেন। যদিও এল ক্ল্যাসিকো ম্যাচ নিয়ে নতুন করে কোন শঙ্কার কথা শোনা যায়নি। তবে প্যারিসের সন্ত্রাসী হামলায় এবার প্রেক্ষাপটটা স্বাভাবিকভাবেই কিছুটা ভিন্ন। এ প্রসঙ্গে স্পেনের সর্বোচ্চ ক্রীড়া পরিষদের সভাপতি মিগুয়েল কারডেনাল বলেছেন, বার্নাব্যুতে ম্যাচ বাতিলের কোন কারণ এই মুহূর্তে নেই। যদিও প্রয়োজন হলে আমাদের বাধ্য হয়ে সেটা করতে হবে।

অতীতে রিয়াল মাদ্রিদ ও বার্সিলোনার ম্যাচ ঘিরে সর্বোচ্চ যে ঝুঁকি ছিল, তা হলো সমর্থকদের নিয়ে। এখানে সন্ত্রাসী হামলা নিয়ে কোন শঙ্কা ছিল না। বুধবারের আলোচনাটি এমন এক সময় অনুষ্ঠিত হয়েছে যার দুইদিন আগে নিরাপত্তার কারণে ব্রাসেলসে স্পেনের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক প্রীতিম্যাচ বাতিল করে বেলজিয়ান ফুটবল এ্যাসোসিয়েশন। তবে কারডেনাল জানিয়েছেন বেলজিয়ামের পরিস্থিতি ভিন্ন। স্পেনে শনিবারের ম্যাচটি উপভোগের জন্য আমরা সমর্থকদের জন্য সম্ভাব্য সেরা নিরাপত্তাই নিশ্চিত করেছি। মর্যাদার এল ক্ল্যাসিকো দেখতে গ্যালারিতে প্রায় ৮০ হাজার দর্শক থাকবে। এ ছাড়া সারাবিশ্বে লাখ লাখ মানুষ এই ম্যাচ দেখতে টেলিভিশনের পর্দায় চোখ রাখবে। নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা প্রসঙ্গে স্পেনের স্বরাষ্ট্র উপমন্ত্রী ফ্রান্সিসকো মার্টিনেস বলেন, প্রায় ১ হাজার পুলিশ থাকবে, যা স্বাভাবিক সময়ে এ ধরনের ম্যাচের জন্য থাকা পুলিশের দ্বিগুণ। এ ছাড়াও ১ হাজার ৪০০ বেসরকারী নিরাপত্তারক্ষী থাকবে। এর সঙ্গে থাকবে নগর পুলিশ।

এদিকে রিয়ালের বিরুদ্ধে বার্সার খেলা নিয়ে এখনও ধোয়াশা চলছে। বার্সিলোনার উরুগুয়ের ফরোয়ার্ড লুইস সুয়ারেজ এ প্রসঙ্গে বলেন, সে (মেসি) খেলবে কি খেলবে না সেটা কোচের ব্যাপার। চিকিৎসকদের কথা এবং সে নিজে কেমন অনুভব করছে, তার ওপর খেলা নির্ভর করছে। কিন্তু অনুশীলনে তাকে বেশ ফুরফুরে দেখাচ্ছে। তারপরও এটা যে ধরনের চোট, তাতে ভবিষ্যতের জন্য ঝুঁকিটা থেকেই যায়। সুয়ারেজ আরও বলেন, সব ম্যাচেই মেসি পার্থক্য গড়ে দেয়ার মতো খেলোয়াড়। ক্ল্যাসিকোয় সে সবসময়ই অনেক বড় প্রভাব রাখে। কিন্তু আমাদেরও দেখতে হবে যে সে কতটুকু তৈরি।

আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমের বিশ্লেষণে উঠে এসেছে, মেসির ছায়া থেকে ক্রমশই নিজেকে সরিয়ে আনছেন নেইমার। সাম্প্রতিক সময়ে ব্রাজিলিয়ান অধিনায়কের দুর্দান্ত পারফর্মেন্সই এমন সাক্ষ্য দিচ্ছে। এটা ঠিক রেকর্ড টানা চারবারের ফিফা বর্ষসেরা ফুটবলারের সঙ্গে খেলে নেইমার সত্যিই নিজেকে অনেক পরিণত করেছেন। মাঠে মেসির সঙ্গে তার দারুণ বোঝাপড়া। মাঠের বাইরেও দুজনের সম্পর্ক অনেক ভাল। তবে বার্সিলোনায় শুরু থেকেই যেন মেসির ছায়ায় ঢাকা পড়েছিলেন নেইমার। যদিও এখন অনেক ফুটবলবোদ্ধার ধারণা, ধীরে ধীরে দলের সবচেয়ে বড় তারকার ছায়া থেকে বেরিয়ে আসতে শুরু করেছেন ২৩ বছর বয়সী এই ব্রাজিলিয়ান তারকা।

ফুটবলে দীর্ঘদিন ধরে চলা মেসি-রোনাল্ডোর আধিপত্যও ভেঙ্গে দেয়ার ইঙ্গিত দিচ্ছেন নেইমার। এবারের লা লিগায় এখন পর্যন্ত ১১ গোল নিয়ে তিনি এখন সর্বোচ্চ গোলদাতা। দুই গোল কম করে সুয়ারেজ আছেন দ্বিতীয় স্থানে। রোনাল্ডোর গোল আটটি। গত ছয় মৌসুম স্প্যানিশ লীগের সেরা গোলদাতার পুরস্কার মেসি ও রোনাল্ডো (দুজনই তিনবার করে) ভাগ করে নিলেও এবার নেইমারের ঔজ্জ্বল্যে অন্য কিছুর ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে। গত মৌসুমে বার্সিলোনার ঐতিহাসিক দ্বিতীয় ট্রেবল জয়ে বিশাল অবদান রাখায় এবারের বর্ষসেরা ফুটবলারের পুরস্কার মেসির হাতে ওঠার সম্ভাবনাই বেশি। তবে দ্বিতীয় বা তৃতীয় স্থান নেইমার পেতে পারেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। অদূর ভবিষ্যতে হয়তো মেসির ছায়া থেকে বেরিয়ে ফুটবলের সেরা পুরস্কারও পেয়ে যেতে পারেন ব্রাজিলের এই সুপারস্টা।

অবশ্য আপাতত এই চিন্তা মাথা থেকে সরিয়ে নেইমার ও বার্সিলোনাভক্তরা ‘এল ক্ল্যাসিকো’র দিকে তাকিয়ে আছেন। মেসির অনুপস্থিতিতে রিয়ালের মাঠে নেইমার যেন জ্বলে ওঠেন, সেই প্রার্থনাই হয়তো করছেন ক্যাটালান সমর্থকরা।