২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিরাট কোহলির আক্ষেপ...

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ওয়ানডে সিরিজে সফরকারী দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে তেমন সুবিধা করতে পারেনি স্বাগতিক ভারত। কিন্তু টেস্ট সিরিজে প্রোটিয়াদের ওপর পুরোপুরি নিজেদের নিয়ন্ত্রণ প্রতিষ্ঠা করেছে ভারতীয় দল। প্রথম টেস্টেই মাত্র তিনদিনে জয় তুলে নিয়েছে। কিন্তু দ্বিতীয় টেস্টে দক্ষিণ আফ্রিকাকে মাত্র ২১৪ রানে গুটিয়ে দেয়ার পর বিনা উইকেটে ৮০ রান তুলে সুবিধাজনক পরিস্থিতিতে থাকার পরও তা ড্র হয়ে গেল প্রাকৃতিক বৈরিতায়। মাত্র ৮১ ওভার খেলা হয়েছে এ টেস্টে। যা ভারতের মাটিতে দ্বিতীয় ক্ষুদ্রতম টেস্ট। এরচেয়ে কম ওভার খেলা হয়েছিল এর আগে ১৯৯৫-৯৬ সালে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে চেন্নাই টেস্টে। সেবার মাত্র ৭১.১ ওভার বোলিং হয়েছিল। এবার চারদিনই বৃষ্টির কারণে ভেসে গেছে। খেলা না হওয়াতে দারুণ হতাশ ভারতীয় অধিনায়ক ভিরাট কোহলি। তবে তিনি দাবি করেছেন এতে করে ছন্দে কোন ব্যাঘাত ঘটবে না।

চার টেস্টের সিরিজে ইতোমধ্যেই দুই ম্যাচ শেষ হয়ে গেছে। ভারত এগিয়ে আছে ১-০ ব্যবধানে। আরেকটি টেস্ট জিতলেই সিরিজ নিশ্চিত হয়ে যাবে স্বাগতিকদের। তবে আগেভাগে আরও সুবিধাজনক অবস্থানে যাওয়ার দারুণ সুযোগ ছিল। কিন্তু ব্যাঙ্গালুরুতে ভাল অবস্থানে থাকার পরও বৃষ্টির দাপটে সে সুযোগটা নিতে পারেনি ভারত। এ বিষয়ে কোহলি বলেন, ‘এটা খুবই হতাশাজনক। প্রথম দিনটা আমাদের খুবই ভাল গিয়েছিল, কিন্তু দ্বিতীয় ও তৃতীয় দিনটা খুবই হতাশার ছিল। একটি টেস্ট ম্যাচে ভাল অবস্থান তৈরি করাটা খুব কঠিন কাজ। কিন্তু আমরা সেই পরিস্থিতি তৈরি করে ফেলেছিলাম। আমাদের দারুণ সুযোগ ছিল দক্ষিণ আফ্রিকাকে আরও বড় চাপের মধ্যে ফেলার। কিন্তু এরপর আবহাওয়াটা এমনভাবে পরিবর্তন হয়ে গেল যে আমাদের এর ওপর কোন নিয়ন্ত্রণ আনা সম্ভব ছিল না। এটা যে কোন দলের জন্যই খুব বিরক্তিকর মাঠে আসার পর খেলতে না পারা। যখনই কাভার ওঠানো হয়েছে, আবারও বৃষ্টি এসেছে। চারদিন এভাবেই কেটেছে। আর এটা অনেক বড় হতাশার ব্যাপার।’

কোহলি মনে করেন বৃষ্টি যদি কিছুটা বিরতি দিতো এবং আর দুইদিনও খেলা সম্ভব হতো সেক্ষেত্রে দক্ষিণ আফ্রিকাকে কঠিন চাপে ফেলতে পারতো ভারত। এ বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আমাদের যদি আর মাত্র দুটা দিন ভালভাবে খেলার পরিস্থিতি থাকতো তাহলে ওদের চাপে ফেলতে পারতাম। সেটা চতুর্থদিন থেকে শুরু করে পঞ্চম দিনের শেষ পর্যন্ত হলেও আমরা ইতিবাচক মনোভাব নিয়ে দ্রুত কিছু রান করে তাদের ওপর চাপ প্রয়োগ করতে পারতাম। আমি নিশ্চিত করে বলতে পারছি না যে তাদের আমরা এ সময়ের মধ্যে অলআউট করে দিতাম। কিন্তু আরও দুদিন পেলে অবশ্যই আমরা এগিয়ে থাকতাম।’ টানা চারদিন খেলা না হওয়াতে ক্রিকেটারদেরও বসে থাকতে হয়েছে। এতে করে একটা ছন্দপতন ঘটেছে। কিন্তু কোহলি সেটা মানতে নারাজ। তিনি এ বিষয়ে বলেন, ‘আমি ছন্দে কোন পরিবর্তন আসার কিছু দেখতে পাচ্ছি না। মোহালিতে আমাদের যে মনোভাব ছিল ঠিক সে রকমই আছে। আমরা বিশ্বের এক নর্ম্ব দলের বিরুদ্ধে দারুণ বোলিং করেছি এবং তিন সেশনেই গুটিয়ে দিয়েছি। অথচ ভাল ব্যাটিং সহায়ক উইকেট ছিল সেটা। উইকেটে তেমন কোন বড় ধরনেই সমস্যা ছিল না সেটা আমি নিশ্চিত করে বলতে পারি। কারণ তাদের ইনিংস শেষ হওয়ার পর যেটুকু সময় আমরা পেয়েছিলাম খুব ভাল ব্যাটিং করেছি। সবাই চারদিন প্রস্তুত ছিল খেলার জন্য। তাই আমি মনে করি না বৃষ্টির কারণে খেলা না হওয়াতে ক্রিকেটারদের মনোভাবে কোন পরিবর্তন হয়েছে।’