২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বঙ্গোপসাগরে ডাকাতি, ২২ ট্রলারসহ ৪২ মৎস্যজীবী অপহৃত

সংবাদদাতা, পাথরঘাটা, বরগুনা, ১৯ নবেম্বর ॥ পাথরঘাটা থেকে ৭০ কিলোমিটার দক্ষিণে বঙ্গোপসাগরে মাছধরা ট্রলারে গণডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। এ সময় দস্যুরা জেলে বহরে হামলা চালিয়ে মুক্তিপণের দাবিতে ২২টি মাছধরা ট্রলারসহ ৪২ জেলেকে অপহরণ করে নিয়ে গেছে। বুধবার সকাল থেকে বৃহস্পতিবার সকাল ১০টা পর্যন্ত ডাকাতি চলছিল বলে খবর পাওয়া গেছে। বরগুনা জেলা মৎস্যজীবী সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্কফা এ তথ্য নিশ্চত করেন। অপহৃত ট্রলার ও জেলেদের মধ্যে সহিদ মিয়া ও কবির মিয়া, এফবি মা ট্রলারের নবী হোসেন, এফবি আবদুল্লাহ ট্রলারের তল্লাশি মাঝি, এফবি আরিফ ট্রলারের জাকির মাঝি, এফবি নিল সাগর ট্রলারের মোঃ সামছুল হক, এফবি আনোয়ারার ইদ্রিস মাঝি ও এফবি জুলেখা ট্রলারের মহিবুল্লাহ মাঝির নাম জানা গেছে। বরগুনা জেলা মৎস্যজীবী ট্রলার মালিক সমিতির সভাপতি গোলাম মোস্তফা জানান, বুধবার সকালে পাথরঘাটা থেকে ৫০ কিলোমিটার দক্ষিণে বঙ্গোপসাগরে জেলেরা মাছ ধরার জন্য জাল ফেলে অপেক্ষা করছিলেন। এমন সময় প্রথমে এফবি মা ট্রলারে হামলা চালিয়ে নবী হোসেন, সহিদ মিয়া ও কবির মিয়াকে অপহরণ করে নিয়ে যায় জলদস্যুরা। পরে বুধবার সকাল থেকে বৃহস্পতিবার ভোর পর্যন্ত পৃথক পৃথক হামলা চালিয়ে প্রায় ২২টি ট্রলারসহ ৪২ জেলেকে অপহরণ করে নিয়ে যায় দস্যুরা। জলদস্যুরা বিভিন্ন ট্রলার থেকে ডাল-চাল, মাছ ও জাল, রসদ সামগ্রী লুটে নিয়েছে বলে জানা গেছে।

ফরিদপুরেও হরতাল হয়নি

নিজস্ব সংবাদদাতা, ফরিদপুর, ১৯ নবেম্বর ॥ যে যুদ্ধাপরাধী মুজাহিদকে রক্ষার জন্য জামায়াত হরতাল ডেকেছিল সেই যুদ্ধাপরাধীর নিজ জেলা ফরিদপুরে জামায়াত ঘোষিত সকাল-সন্ধ্যা হরতাল জনজীবনে কোন প্রভাব পড়েনি। হরতাল চলাকালীন শহরে পথে জামায়াতের কোন নেতা-কর্মীকে দেখা যায়নি। শহরে হরতাল বিরোধী মিছিল করেছে আওয়ামী লীগ ও তার ভ্রাতৃপ্রতিম সংগঠনসমূহ। বৃহস্পতিবার ভোর থেকেই ঢাকাবাদে বিভিন্ন আন্তঃজেলা রুটে ও ফরিদপুরের আঞ্চলিক রুটে স্বাভাবিকভাবে যানবাহন চলাচল শুরু হয়। কুয়াশার কারণে দৌলতদিয়া-পাটুরিয়া রুটে ফেরি চলাচল বন্ধ থাকায় ঢাকার বাসগুলো ভোরে চলাচল করেনি। তবে বেলা ১০টা থেকে ঢাকা রুটেও যানবাহন চলাচল স্বাভাবিক হয়। সকাল থেকে শহরের দোকানগুলো চালু হতে শুরু করে। হরতাল চলাকালে জামায়াত-শিবিরের কোন নেতা-কর্মীকে পথে পিকেটিং বা মিছিল করতে দেখা যায়নি। হরতাল উপলক্ষে শহরে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়। শহরের গুরুত্বপূর্ণ মোড়ে পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

১১৩১ হেক্টর জমি সিলেটে আবাদের আওতায় আসছে

স্টাফ রিপোটার, সিলেট অফিস ॥ আগামী রবি মৌসুমে সিলেটের গোয়াইনঘাট উপজেলায় ১১৩১ হেক্টর অনাবাদী জমি চাষাবাদের আওতায় আসছে। পাইলট প্রকল্পের আওতায় গোয়াইনঘাট কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগ প্রাথমিকভাবে পাইলট প্রকল্পের স্থান হিসেবে উপজেলার লেঙ্গুড়া ইউনিয়নকে বাছাই করেছে। দেশব্যাপী অনাবাদী জমি চাষের আওতায় আনতে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। তার নির্দেশনা অনুসারে কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগ উপজেলায় একটি পাইলট প্রকল্প গ্রহণ করে। ওই প্রকল্প অনুযায়ী ১৮৭৫ জন কৃষককে নির্বাচন করে একটি ডাটাবেজ তৈরি করা হয়েছে। তাদের ৩৫টি দলভুক্ত করা হয়েছে। গোয়াইনঘাট উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়, প্রকল্পটি বাস্তবায়নে উপজেলার গোয়াইন নদী থেকে সেচের ব্যবস্থা করা হবে। এছাড়া বীজ, সারসহ যাবতীয় সহযোগিতা কৃষকদের দেয়া হবে।