১৪ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার ঘিরে কড়া নিরাপত্তা বলয়

  • অলিখিত ১৪৪ ধারা

স্টাফ রিপোর্টার ॥ যুদ্ধাপরাধ মামলায় বদর প্রধান মুজাহিদ ও সাকা চৌধুরীর ফাঁসির রায় কার্যকর করতে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারসহ আশপাশের এলাকায় কড়া নিরাপত্তা বলয় গড়ে তোলা হয়েছে। যে কোন ধরনের নাশকতা এড়াতে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারসহ আশপাশে অলিখিত ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার দুপুর থেকেই বন্ধ করে দেয়া হয় কারাগারের আশপাশের সব পথ। কারাগারের চারদিকে অন্তত আধা কিলোমিটার এলাকাজুড়ে গড়ে তোলা হয়েছে বিশেষ নিরাপত্তা বলয়। কারাগারের আশপাশের উঁচু ভবনের ছাদে বসানো হয়েছে ওয়াচ টাওয়ার। জ্বলছে শক্তিশালী সার্চ লাইট। আশপাশে বসানো হয়েছে অসংখ্য ছোট ছোট সিসি ক্যামেরা। যা সহজেই চোখে পড়বে না। আশপাশে যৌথ তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ ও র‌্যাব।

বৃহস্পতিবার ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার ও আশপাশের এলাকা ঘুরে এমন চিত্রই চোখে পড়েছে। কারাগারে যাওয়ার পথে চানখাঁরপুল মোড়ে বসানো হয়েছে কাঁটাতারের ব্যারিকেড। সেখানে বিপুল সংখ্যক পুলিশ সতর্ক অবস্থায় পাহারায় রয়েছে। ওই রাস্তায় সব ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। সাইকেল, মোটরসাইকেল থেকে শুরু করে রিক্সা পর্যন্ত চলতে দেয়া হচ্ছে না। এমনকি হেঁটে জনসাধারণের চলাচলের ক্ষেত্রেও বিধি নিষেধ আরোপ করা হয়েছে। চানখাঁরপুল থেকে পশ্চিম দিকে হোসেনী দালানের রাস্তায়ও একই অবস্থা। এ রাস্তায় শুধু রিক্সা, মোটরসাইকেল, পথচারী চলাচল করতে পারছে। মোটরসাইকেলে একাধিক আরোহী থাকলেই তাদের পড়তে হচ্ছে নিরাপত্তা চৌকির তল্লাশির মুখে। তাদের দেহ তল্লাশি করা হচ্ছে। এসব এলাকায় অবস্থিত বহুতল বাড়ির ছাদে অবস্থান নিয়েছে পুলিশ ও র‌্যাব।

ওদিকে বকশীবাজার মোড়েও একই অবস্থা। সেখানে চৌরাস্তায় বসানো হয়েছে অতিরিক্ত পুলিশের তল্লাশি চৌকি। বসানো হয়েছে কাঁটাতারের বেড়া। এছাড়া ঢাকা কারা অধিদফতরের দিকে যাওয়ার রাস্তায় বসানো হয়েছে আরেকটি বেরিকেড। সেখানে কাঁটাতারের লোহার বেরিকেড বসিয়ে সব ধরনের যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। সেই সঙ্গে বন্ধ রাখা হয়েছে কারা অধিদফতর ও কারাগার চত্বরের প্রবেশের গেট। গেটে সর্তক অবস্থায় পাহারায় রয়েছে পুলিশ, র‌্যাব ও কারারক্ষীরা। এমন অবস্থা ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের চারদিকেই। কারাগারের সামনে চারটি রাস্তায় চারটি বেরিকেড বসানো হয়েছে। বন্ধ করে দেয়া হয়েছে জনসাধারণের চলাচল ও যানবাহন। চারদিকে প্রায় আধা কিলোমিটার এলাকাজুড়ে অলিখিত ১৪৪ ধারা জারি করা হয়েছে। সুনির্দিষ্ট পরিচিত ব্যতীত ৩-৪ জনকে একত্রে চলাফেরা করতে দেয়া হচ্ছে না। তাদের যাতায়াতও নিষিদ্ধ করা হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার ও তার আশপাশের এলাকায় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অস্ত্র গোলাবারুদ ব্যতীত যে কোন ধরনের আগ্নেয়াস্ত্র ও গোলাবারুদ বহন নিষিদ্ধ করা হয়েছে। কারাগারের চারদিকে উঁচু ভবনগুলোর ছাদে অবস্থান নিয়েছে পুলিশ ও র‌্যাব। কারাগারের আশপাশের সব রাস্তার অলিতে গলিতে মোতায়েন করা হয়েছে অতিরিক্ত পুলিশ, র‌্যাব ও গোয়েন্দাদের। আশপাশের বাসা বাড়িতে পুলিশ ও র‌্যাবের যৌথ তল্লাশি অভিযান চালানো হচ্ছে।