২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কুড়িগ্রামে যুদ্ধ দিবস আজ ॥ শহীদ ৫৯ জন

স্টাফ রিপোর্টার, কুড়িগ্রাম ॥ আজ ২০ নবেম্বর। মহান মুক্তিযুদ্ধে পাক বাহিনীর সঙ্গে কুড়িগ্রামের মুক্তিযোদ্ধাদের সর্ববৃহৎ সম্মুখ সমরের দিন। এই যুদ্ধে শহীদ লেফটেন্যান্ট কর্নেল আবু মঈন মোহাম্মদ আসফাকুস সামাদ বীর উত্তম (মরণোত্তর)সহ শহীদ হয়েছেন ৫৯ বীর সেনা। শহীদ সামাদসহ অন্যদের নামে জেলায় নেই কোন উল্লেখযোগ্য ইতিহাস সংরক্ষণের ব্যবস্থা কিংবা ভাস্কর্য। শহীদ সামাদসহ অন্যদের খ--বিখ- দেহ ভূরুঙ্গামারী উপজেলার জয়মনিরহাট ইউনিয়নের নিভৃত পল্লীর ছায়াসুনিবিড় মসজিদের পাশে সমাহিত করা হয়।

রোজা শেষ রাত পোহালেই পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর। কিন্তু পাকবাহিনী ও তাদের দোসররা সেই পবিত্র দিনে ফুলকুমার নদীর স্রোত

ধারা রক্তে রঞ্জিত করে দিয়েছিল। ভূরুঙ্গামারী ও নাগেশ্বরী উপজেলার সংযোগ রায়গঞ্জ ব্রিজের কাছে সংঘটিত মুক্তিযুদ্ধ জেলার সবচেয়ে বড় সম্মুখযুদ্ধ ছিল এটি। এই সম্মুখযুদ্ধে ভারতীয় সেনাবাহিনীর ২২ রাজপুত ব্যাটালিয়নের মেজর আপেল ও ৬নং সেক্টরের লেফটেন্যান্ট সামাদসহ ৫৯ জন জওয়ান শহীদ হন। এ যুদ্ধে পাকবাহিনী তাদের প্রায় ৫ শতাধিক সৈন্যকে হারায়।

গোয়ালমারী জামালকান্দি

নিজস্ব সংবাদদাতা দাউদকান্দি থেকে জানান, ২০ নবেম্বর গায়ালমারী-জামালকান্দি যুদ্ধ দিবস। এ দিনে যুদ্ধে শহীদ হন ১১ মুক্তিযোদ্ধা। ১৯৭১ সালের ২০ নবেম্বর ছিল পবিত্র ঈদ-উল-ফিতর। ভোরে কেউ ঘুমে অচেতন আবার কেউবা তৈরি হচ্ছে ফজর নামাজ আদায়ে। এমন সময়ে দাউদকান্দি উপজেলার গোয়ালমারী-জামালকান্দি এলাকা হানাদার পাক বাহিনীর মর্টার সেলের শব্দে প্রকম্পিত হয়ে উঠে। গোয়ালমারীতে ছিল মুক্তিযোদ্ধাদের ক্যাম্প। সেই ক্যাম্পে হামলা করাই ছিল পাক হানাদারদের মূল উদ্দেশ্য। ঈদের দিনে অপ্রস্তুত অবস্থায় ফেলে সহজেই মুক্তিযোদ্ধাদের গায়েল করা যাবে ভেবে পাক সেনারা হামলা করেছিল গোয়ালমারীতে।

চট্টগ্রামে ১২ হাজার ইয়াবাসহ গ্রেফতার ৪

স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম অফিস ॥ নগরীতে পরিচালিত পৃথক অভিযানে ১২ হাজার ইয়াবা ট্যাবলেট এবং ৪ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার রাতে ও বৃহস্পতিবার ভোরে এ অভিযান পরিচালিত হয়। এ সময় আটক করা হয় একটি মাইক্রোবাস ও একটি কাভার্ডভ্যান।

এদিকে লোহাগাড়া থানার চুনতি এলাকায় বুধবার রাতে একটি মাইক্রোবাসে তল্লাশি চালিয়ে ২ হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেটসহ ৩ জনকে আটক করা হয়েছে। আটকরা হলো সরোয়ার, কামরুল ইসলাম ও রাজীব সিকদার।

নির্বাচিত সংবাদ