২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

কঠিন চীবর দানোৎসবে মুখরিত রাজবন বিহার

নিজস্ব সংবাদদাতা, রাঙ্গামাটি, ২০ নবেম্বর ॥ দায়ক-দায়িকাদের প্রস্তুত চীবর ভান্তের হাতে তুলে দেয়ার মধ্য দিয়ে শুক্রবার রাঙ্গামাটি রাজবন বৌদ্ধ বিহারে সমাপ্ত হয়েছে পার্বত্য জেলার বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের প্রধান ধর্মীয় উৎসব ৪২তম দানোত্তম কঠিন চীবর দান অনুষ্ঠান। চাকমা সার্কেল চীফ ব্যারিস্টার দেবাশীষ রায় দায়ক-দায়িকাদের পক্ষ থেকে বৌদ্ধ ধর্মীয় গুরু ভান্তের হাতে এ চীবর তুলে দেন। চীবর প্রদান অনুষ্ঠানের সমাপনী দিনে শুক্রবার রাঙ্গামাটির রাজবন বিহার পরিণত হয় জনসমুদ্রে। তিন পার্বত্য জেলাসহ দেশের অন্যান্য জেলা হতে বৌদ্ধ ধর্মালম্বী বিপুলসংখ্যক লোকজন এদিন জড়ো হয় রাজবন বিহারে। বৌদ্ধ ধর্মালম্বী লোকজনের পাশাপাশি অন্যান্য ধর্মালম্বী লোকজনের ও সমাগম ঘটে এদিন। ফলে কঠিন চীবর দানানুষ্ঠানের এই ধর্মীয় অনুষ্ঠান পরিণত হয় সার্বজনীন অনুষ্ঠানে। চীবর দানানুষ্ঠানের মূল আনুষ্ঠানিকতা চীবর প্রদান অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে ওইদিন সকাল থেকেই রাঙ্গামাটি রাজবন বিহারের বিশাল এলাকা জুড়ে লোকজনের সমাগম ঘটতে থাকে। সড়ক ও নৌ পথে শত শত যানবাহনযোগে ধর্মপ্রাণ লোকজন সমবেত হয় অনুষ্ঠানে। বিভিন্ন এলাকা হতে আগত লোকজন নানান আকারের কল্পতরুর শোভাযাত্রাসহকারে উপস্থিত হয় চীবর দানানুষ্ঠানের মূল মঞ্চে।

পরে রাজবন বিহার উপাসক-উপাসিকা পরিষদের সম্পাদক প্রতুল বিকাশ চাকমা, সিনিয়র সহ-সভাপতি গৌতম দেওয়ান, চাকমা সার্কেল চীফ ব্যারিস্টার দেবাশীষ রায় বক্তব্য প্রদান করেন। সংসদ সদস্য ঊষাতন তালুকদার, রাঙ্গামাটি জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা, সাবেক শিল্পমন্ত্রী দিলীপ বড়ুয়া, সাবেক পার্বত্য উপমন্ত্রী মনিস্বপন দেওয়ানসহ রাঙ্গামাটির জেলা প্রশাসন, পুলিশ সুপার, সামরিক বাহিনীর উর্ধতন অফিসারসহ বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।