২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

রবিবার শুরু মাঠের লড়াই

রবিবার শুরু মাঠের লড়াই

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের (বিপিএল-টি২০) উদ্বোধন হয়ে গেছে। এখন মাঠের লড়াইয়ে নামার অপেক্ষা। রবিবার থেকেই সেই লড়াই শুরু হবে। দুপুর ২টায় রংপুর রাইডার্স ও চিটাগাং ভাইকিংসের মধ্যকার ম্যাচ দিয়েই বিপিএল তৃতীয় আসরের বল মাঠে গড়াবে। একইদিন সন্ধ্যা পৌনে সাতটায় ঢাকা ডায়নামাইটস ও কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের লড়াই অনুষ্ঠিত হবে।

প্রতিদিন ২টি করে ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। এ জন্য টুর্নামেন্টের প্রথমদিনে চারটি দল খেলতে পারবে। দ্বিতীয় দিন সিলেট সুপার স্টারস ও বরিশাল বুলস ভিন্ন ভিন্ন ম্যাচে বিপিএলে নিজেদের মিশন শুরু করবে।

রবিবার শুরু হয়ে একটানা ২৭ নবেম্বর পর্যন্ত ঢাকায় বিপিএলের প্রথম ধাপে খেলাগুলো হবে। এরপর ২৮ ও ২৯ নবেম্বর দু’দিন বিরতি থাকবে। ৩০ নবেম্বর থেকে ৩ ডিসেম্বর টানা চারদিন চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে খেলা হবে। ৪ ও ৫ ডিসেম্বর আবার দু’দিন টুর্নামেন্টে বিরতি থাকবে। ৬ ডিসেম্বর থেকে ১০ ডিসেম্বর পর্যন্ত মিরপুরে টুর্নামেন্টের তৃতীয় ধাপ অনুষ্ঠিত হবে। এ ধাপ শেষে কোয়ালিফায়ার ও এলিমিনেট পর্ব অনুষ্ঠিত হবে। ১১ ডিসেম্বর একদিন বিরতি থাকবে টুর্নামেন্টে।

আইপিএলের আদলে এবার বিপিএল অনুষ্ঠিত হবে। ৬টি দল বিপিএলে এবার অংশ নিচ্ছে। ৬টি দল পরস্পরের বিপক্ষে দুইবার করে মুখোমুখি হবে। পয়েন্ট তালিকায় থাকা শীর্ষ চার দল ফাইনালে ওঠার রাউন্ডে উঠবে। দু’টি দল বাদ যাবে।

আইপিএলে যেমনটি হয় পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে থাকা দু’টি দল যদি কোয়ালিফায়ার অর্থাৎ ফাইনালে ওঠার ম্যাচে হেরে যায় তাহলে আবারও ফাইনালে খেলার জন্য আরেকটি ম্যাচ খেলার সুযোগ পায়। বিপিএলেও তেমনটি হবে। এ পর্বে তিনটি ম্যাচ হবে। প্রথম কোয়ালিফায়ার, এলিমিনেটর ও দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার। প্রথম কোয়ালিফায়ারে পয়েন্ট তালিকার প্রথম ও দ্বিতীয় স্থানে থাকা দল, এলিমিনেটরে পয়েন্ট তালিকার তৃতীয় ও চতুর্থ স্থানে থাকা দল লড়াই করবে। দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে এলিমিনেটরের জয়ী ও প্রথম কোয়ালিফায়ারের হারা দল মুখোমুখি হবে। প্রতিদিন দুপুর ২টায় একটি ম্যাচ ও সন্ধ্যা পৌনে সাতটায় আরেকটি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে।

প্রথম কোয়ালিফায়ার ম্যাচ হবে ১২ ডিসেম্বর। যেটিকে প্রথম সেমিফাইনালও ধরা হচ্ছে। কারণ যে দল জিতবে তারা সরাসরি ফাইনালে খেলার টিকেট পেয়ে যাবে। হারা দলটি ফাইনালে ওঠার ক্ষেত্রে আরেকটি ম্যাচ খেলার সুযোগ পাবে। পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে থাকা ও দ্বিতীয় স্থানে থাকা দল দু’টি দুপুর ২টায় কোয়ালিফায়ার ম্যাচে অংশ নেবে। সন্ধ্যা পৌনে সাতটায় পয়েন্ট তালিকার তৃতীয় ও চতুর্থ স্থানে থাকা দলের মধ্যে লড়াই হবে। যে দল জিতবে ফাইনালে ওঠার জন্য টিকে থাকবে। হারা দল বিদায় নেবে। জেতা দল প্রথম কোয়ালিফায়ারের হারা দলের সঙ্গে লড়াই করবে। এ ম্যাচটিকে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার বা দ্বিতীয় সেমিফাইনাল ধরা হচ্ছে। এ ম্যাচটি ১৩ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে। তবে কোন সময়টিতে খেলা শুরু হবে তা এখনও নিশ্চিত হয়নি। যে দল জিতবে ফাইনালে উঠবে। হারা দল বিদায় নেবে। ১৪ ডিসেম্বর একদিন বিরতি দিয়ে ১৫ ডিসেম্বর হবে বিপিএলের তৃতীয় আসরের ফাইনাল। পর্দা নামবে বিপিএলের তৃতীয় আসরের।

শুক্রবার উদ্বোধনী অনুষ্ঠান দিয়েই বিপিএলের তৃতীয় আসরের যাত্রা শুরু হয়ে গেছে। এখন মাঠের লড়াই শুরুর অপেক্ষা মাত্র।

এ টুর্নামেন্টে অংশ নিতে এরই মধ্যে দলগুলো প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে। সবদলই মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামের একাডেমি ভবনের মাঠে অনুশীলন করছে। সবার চিন্তা একটাই, যেভাবে হোক বিপিএলের শিরোপা নিজেদের করে নিতে চায়।

২০১২ ও ২০১৩ সালে টানা দু’বার বিপিএল আয়োজন হয় এবং দু’বারই চ্যাম্পিয়ন হয় ঢাকা গ্ল্যাডিয়েটর্স। এই দলটি এখন আর নেই। ম্যাচ গড়াপেটায় জড়িত অভিযোগে ক্রিকেট থেকে এখন নিষিদ্ধ আছেন দলটির মালিকপক্ষ। এই ম্যাচ গড়াপেটার কোন সমাধান না হওয়া পর্যন্ত বিপিএলই মাঠে গড়াতে চায়নি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। অবশেষে তার সমাধান হয়েছে। দুই বছর বন্ধ থাকার পর আবার বিপিএলও মাঠে গড়াচ্ছে। প্রথম আসরে ৬টি (ঢাকা, চিটাগাং, বরিশাল, সিলেট, রাজশাহী, খুলনা) ও দ্বিতীয় আসরে ৭টি দল (আগের ৬ দলের সঙ্গে রংপুর যুক্ত হয়) বিপিএলে অংশ নেয়। তৃতীয় আসরে এসে আবার ৬টি দল অংশ নিচ্ছে।

এবার ঢাকা, চিটাগাং, বরিশাল, সিলেট, রংপুরের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে কুমিল্লা। আগের তিক্ত অভিজ্ঞতা থেকে শিক্ষা নিয়ে বিসিবি এবার কোন হিসেবেই নিলাম পদ্ধতি রাখেনি। দল নেয়ার ক্ষেত্রে যেমন সাড়ে পাঁচ কোটি টাকার শর্ত জুড়ে দিয়েছিল, তেমনি ক্রিকেটারদেরও নিলাম হয়নি। ‘প্লেয়ার্স বাই চয়েজে’ ক্রিকেটার দলে ভেড়ানো হয়েছে। অবশেষে সব ঠিকঠাক মতই হয়েছে। রবিবার বিপিএলের তৃতীয় আসরের বলও মাঠে গড়াতে যাচ্ছে।