১০ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

খালেদা বাড়তি নিরাপত্তা চাইলে বিবেচনা করা হবে ॥ ও. কাদের

স্টাফ রিপোর্টার, সিলেট অফিস ॥ সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, খালেদা জিয়া দেশের অন্যতম রাজনৈতিক দল বিএনপির চেয়ারপার্সন ও তিনবারের প্রধানমন্ত্রী। তিনি যে নিরাপত্তা ডিজার্ভ করেন এর বাইরে তিনি থাকবেন না। বেগম জিয়া বাড়তি নিরাপত্তা চাইলে সেটা সরকার বিবেচনা করবে। শনিবার দুপুরে সিলেট সার্কিট হাউসে মতবিনিময় সভা শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। দেশে স্পর্শকাতর সময় চলছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘টেরোরিজম এখন কোন রিজিওনাল ফেনোমেনা নয়। এটা এখন গ্লোবাল ফেনোমেনা।’ চোরাগোপ্তা হামলা ও সন্ত্রাসী কর্মকা- রুখতে সরকার কঠোর অবস্থানে রয়েছে। এ জন্য সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে। আগামী জানুয়ারি মাস থেকেই বাংলাদেশ, ভারত, নেপাল ও ভুটানের সঙ্গে চার দেশীয় সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা চালু হবে বলে জানান ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, ‘সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা চালুর ক্ষেত্রে অবকাঠামো কিছু সমস্যা রয়েছে। সব রাস্তাঘাট গুডশেপে নেই। তবুও পূর্ণাঙ্গরূপে চালু করা না গেলেও কিছু কিছু রুটে প্রাথমিকভাবে শুরু করে দেব।’ দেশের চলমান পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক, হোয়াটস এ্যাপ, ভাইবার খুলে দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন সড়ক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। ওবায়দুল কাদের বলেন, বর্তমান সরকারের আমলে তথ্য প্রযুক্তিতে ব্যাপক উন্নয়ন সাধিত হয়েছে। তথ্য প্রযুক্তির এমন উন্নয়নকে আমরা গলা টিপে হত্যা করতে চাই না।

সিলেট-তামাবিল-ঢাকা মহাসড়ক চার লেন হবে ॥ সিলেট-তামাবিল-ঢাকা মহাসড়ক চার লেনে উন্নীত করা হবে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই মহাসড়ক চার লেনে উন্নীত করার ব্যাপারে আন্তরিক। এছাড়া সিলেট-ভোলাগঞ্জ ৩৩ কিলোমিটার সড়ক উন্নয়নে সাড়ে চারশত কোটি টাকার প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে। আগামী বছরের ১ ফেব্রুয়ারি থেকে ওই সড়কের কাজ শুরু হবে।

শনিবার বেলা ১১টায় সিলেট সার্কিট হাউসে সিলেটের সড়ক উন্নয়ন নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময়কালে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। মন্ত্রী জানান, সিলেট ও হবিগঞ্জ এলাকার ঝুঁকিপূর্ণ সড়ক সংস্কারে আগামী ১০ দিনের মধ্যে দরপত্র আহ্বানের নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, সিলেট নগরীকে যানজটমুক্ত করতে ফ্লাইওভার নয়, টার্নিংয়ের ব্যবস্থা করতে হবে। ফ্লাইওভার করলে অনেক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও বাসাবাড়ি ক্ষতিগ্রস্থ হবে। আমরা চাই না কাউকে ক্ষতিগ্রস্ত করতে। প্রয়োজনে আন্ডারপাস করা হবে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা প্রশাসক মোঃ জয়নাল আবেদীন, পুলিশ কমিশনার কামরুল আহসান, সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক মেয়র বদর উদ্দিন আহমদ কামরান, সাবেক সাংসদ ও জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শফিকুর রহমান চৌধুরী প্রমুখ।