২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

অভিজ্ঞতা কাজে লাগাতে চাই ॥ মিসবাহ

অভিজ্ঞতা কাজে লাগাতে চাই ॥ মিসবাহ

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ইতোমধ্যেই ওয়ানডে থেকে অবসর নিয়ে ফেলেছেন, টেস্ট ক্রিকেটকেও বিদায় জানানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়ে গেছে। হয় তো অচিরেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট পুরোপুরি ছেড়ে দেবেন ৪১ বছর বয়সী পাকিস্তানী ক্রিকেটার মিসবাহ-উল-হক। ধীরস্থির প্রকৃতির ব্যাটিংয়ের জন্যই ২০১২ সালের পর আর কোন আন্তর্জাতিক টি২০ খেলেননি তিনি। তবে ঘরোয়া আসরে এখনও টি২০ প্রতিযোগিতায় খেলেন। এবার বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগের (বিপিএল) তৃতীয় আসরে রংপুর রাইডার্সের হয়ে খেলবেন। মিসবাহ মনে করছেন তার অভিজ্ঞতা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। তিনি নিজেও আধুনিক ফরমেটের এ ক্রিকেটে তাল মিলিয়ে খেলতে চান। শনিবার মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় স্টেডিয়ামের একাডেমি মাঠে সকালে অনুশীলনের পর এসব কথা বলেন তিনি।

ওয়ানডে ক্রিকেট ছেড়ে দিলেও এখন পর্যন্ত পাকিস্তান টেস্ট দলের অধিনায়ক মিসবাহ। ১৪ বছর ধরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলা এ অভিজ্ঞ মিডলঅর্ডার ব্যাটসম্যান টেস্ট ক্রিকেট থেকেও অবসরের সিদ্ধান্ত নিলেও পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) আপাতত সেটা স্থগিত করার আহ্বান জানিয়েছে তাকে। আর ৩৯ টি২০ খেলা মিসবাহ সর্বশেষটি খেলেছেন ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ২০১২ সালের ২৭ ফেব্রুয়ারি। ক্যারিয়ারের শেষ সময়ে প্রথমবারের মতো বিপিএলে খেলবেন মিসবাহ। তাহলে টি২০ ক্রিকেটে কতটা কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারবেন তিনি? এ বিষয়ে মিসবাহ বলেন, ‘অভিজ্ঞতা সব সময়ই গুরুত্বপূর্ণ। যে কোন ফরমেটের ম্যাচেই অভিজ্ঞতা গুরুত্বপূর্ণ। ম্যাচ পরিস্থিতি বোঝা এবং সেই মোতাবেক কাজ করার জন্য অভিজ্ঞতা বড় একটি বিষয়। খেলোয়াড় হিসেবে আধুনিক ক্রিকেটের সঙ্গে তাল মিলিয়ে চলতে আমাকে প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ ক্রিকেট খেলতে হবে। আমাদের সঙ্গে যারা খেলবে তাদের জন্যেও এটা গুরুত্বপূর্ণ।’

এবার বিদেশী ক্রিকেটারদের মধ্যে সর্বাধিক ১৭ পাকিস্তানী ক্রিকেটার যোগ দিয়েছেন বিপিএলে। রংপুরে মিসবাহ সতীর্থ হিসেবে পাচ্ছেন নিজ দলের পেসার ওয়াহাব রিয়াজকে। যদিও এবার মোহাম্মদ হাফিজ বিপিএলের সংক্ষিপ্ত তালিকায় থাকলেও শেষ মুহূর্তে যোগ দেননি। এর কারণ ফিক্সিংয়ের কারণে নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে ফেরা তরুণ পেসার মোহাম্মদ আমিরের যোগ দেয়া। আমির এবার চিটাগাং ভাইকিংসের হয়ে খেলবেন। হাফিজের বিষয়ে মিসবাহ বলেন, ‘এটা তার ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত। যতটুকু আমি মনে করছি আমি আমার খেলা নিয়ে ভাবছি। কিভাবে অবদান রাখা যায় সেটা নিয়ে ভাবছি।’ তবে দীর্ঘদিন পর আবারও কোন বড় মাপের প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেটে ফিরছেন আমির সেটা বেশ ভাল ব্যাপার হিসেবেই দেখছেন তিনি। এ বিষয়ে মিসবাহ বলেন, ‘বিপিএল তার জন্যে গুরুত্বপূর্ণ। সে ঘরোয়া টুর্নামেন্ট খেলছে। এটা তার জন্যে বড় সুযোগ। সে এখানে এসে বেশ কিছু আন্তর্জাতিক ক্রিকেটারদের সঙ্গে তার অভিজ্ঞতা ভাগাভাগি করবে। সে তখন বুঝতে পারবে সে এই মুহূর্তে কোথায় অবস্থান করছে।’ মিসবাহ নিজ দলকে সার্বিকভাবে ভাল মনে করছেন। তিনি আশা করেন সবাই মিলে ভাল একটা সমন্বয় গড়ে দারুণ নৈপুণ্য দেখাবে এবার।