২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

দলীয় মনোনয়ন পেতে বরিশালে আ’লীগ প্রার্থীদের লবিং

  • পৌর নির্বাচন

খোকন আহম্মেদ হীরা, বরিশাল ॥ জেলার ছয়টি পৌরসভার নির্বাচনকে ঘিরে আওয়ামী লীগের একাধিক প্রার্থী ও তাদের সমর্থকদের দীর্ঘদিন থেকে শোডাউন, গণসংযোগ, উঠান বৈঠকের মাধ্যমে নির্বাচনী মাঠ গরম করে রাখতে দেখা গেলেও গত তিন দিন থেকে আর তাদের দেখা মিলছে না। জানা গেছে, দলের মনোনয়ন পেতে সম্ভ্রাব্য মেয়র প্রার্থীরা বরিশালের আ’লীগের রাজনৈতিক অভিভাবক ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ আবুল হাসনাত আব্দুল্লাহ এমপির কাছে ঢাকায় লবিং করছেন। তবে নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক সম্ভ্রাব্য মেয়র প্রার্থী বলেন, ভাই (হাসনাত) প্রতিটি পৌরসভায় দলের একক প্রার্থী মনোনয়নের জন্য আমাদের ঢাকায় ডেকেছেন। এ নিয়ে একাধিকবার বৈঠক অনুষ্ঠিত হওয়া সত্ত্বেও এখনও কোন পৌরসভায় একক প্রার্থী ঘোষণা কিংবা সিলেকশন করা হয়নি। অপরদিকে নির্বাচন নিয়ে আ’লীগের নেতাকর্মীদের মধ্যে প্রাণচাঞ্চল্য ফিরে এলেও প্রতিটি পৌরসভায় নীরব ভূমিকায় রয়েছেন বিএনপির সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থী ও তাদের সমর্থক নেতাকর্মীরা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএনপির একাধিক মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থী বলেন, আওয়ামী লীগের অধীনে নির্বাচন নিয়ে তাদের তেমন কোন আগ্রহ নেই। তারা আরও বলেন, উপজেলা নির্বাচনের ন্যায় পৌর নির্বাচনেও কারচুপির মাধ্যমে একতরফাভাবে নির্বাচন উঠিয়ে নেবে আওয়ামী লীগ। যে কারণে সারাদেশে বিএনপির নেতাকর্মীদের গণগ্রেফতার করা হচ্ছে বলেও তারা উল্লেখ করেন।

সূত্রমতে, এবারের পৌর নির্বাচনে প্রার্থিতা নিয়ে ভাবছেন দলীয় ও সাধারণ ভোটাররা। বিগত সময়ের পৌরসেবা, বর্তমান সময়ের কর্মকা- বিচার বিবেচনা করেই ভোট প্রয়োগ করবেন বলে জানিয়েছেন দলীয় ও সাধারণ ভোটাররা। বিশেষ করে যারা বিগত সময়ে পৌর এলাকার সার্বিক উন্নয়নে কাজ করার বিভিন্ন প্রতিশ্রুতি দিয়ে নির্বাচিত হওয়ার পর তা বাস্তবায়িত করেননি কিংবা দলের নেতাকর্মীদের অবমূল্যায়ন করে সদ্য আ’লীগে যোগদানকারীদের যারা প্রাধান্য দিয়েছেন সেসব প্রার্থীদের প্রতিহতের ঘোষণা দিয়েছেন দলীয় নেতাকর্মীরা। সেক্ষেত্রে দলের হাইকমান্ড থেকে প্রার্থী মনোনয়নে ভুল হলে আগামী সংসদ নির্বাচনে তার চরম খেসারত দেয়ারও ইঙ্গিত দিয়েছেন দলের তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীরা। উজিরপুর পৌরসভায় মনোনয়ন দৌড়ে রয়েছেন- উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জামাল হোসেন, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মজিদ সিকদার বাচ্চু, সহসভাপতি অশোক কুমার হাওলাদার, উপজেলা যুবলীগের সভাপতি গিয়াসউদ্দিন, স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা আমেরিকা প্রবাসী ইকবাল হোসেন বালী, আওয়ামী লীগ নেতা শংকর মজুমদার, আব্দুল হাসেম সেরনিয়াবাত, উপজেলা বিএনপির সহসভাপতি আব্দুল হক বালী, উপজেলা যুবদলের সভাপতি শাহিন।

মুলাদী পৌরসভায় মেয়র পদে দলীয় প্রতীকে প্রার্থী হতে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন বর্তমান আ’লীগ সমর্থিত মেয়র তরিকুল ইসলাম মিঠু, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সালেহ উদ্দিন হাওলাদার, বিএনপি নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা হারুন-অর রশিদ খান, উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আসাদ মাহামুদ, জাপা নেতা শুক্কুর আহমেদ খান।

মেহেন্দীগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কামাল উদ্দিন খান, উপজেলা যুবলীগ নেতা পারভেজ খান, উপজেলা আ’লীগের যুগ্মআহ্বায়ক মোঃ ইদ্রিস আলী, আ’লীগ নেতা নিজামউদ্দিন আহমেদ, সাবেক মেয়র বিএনপি নেতা রফিকুল ইসলাম লাবু, পৌর বিএনপির সভাপতি সাহাবুদ্দিন হিমু ও উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন দীপেন।

বানারীপাড়ায় বর্তমান পৌর মেয়র গোলাম ছালেহ মঞ্জু মোল্লা, আ’লীগ নেতা এ্যাডভোকেট সুভাষ চন্দ্র শীল, ওয়াকার্স পার্টির নেতা মন্টু কুন্ডু, উপজেলা বিএনপির সহসভাপতি শাহে আলম, গোলাম মাহাবুব মাস্টার।

বাকেরগঞ্জ পৌরসভায় মেয়র পদে নির্বাচন করতে মরিয়া হয়ে উঠেছেন বর্তমান মেয়র লোকমান হোসেন ডাকুয়া, সাবেক পৌর চেয়ারম্যান মাহাবুব আলম, আ’লীগ নেতা মশিউর রহমান জমাদ্দার, সাইফুল ইসলাম ডাকুয়া, শিল্পপতি পিয়াল আহম্মেদ তালুকদার রাজীব, এ্যাডভোকেট নাসির মাঝি, পৌর বিএনপির আহ্বায়ক মতিউর রহমান মোল্লা ও নাসির জমাদ্দার।

গৌরনদী পৌরসভার সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থী হিসেবে দীর্ঘদিন থেকে দলের তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের প্রার্থী হিসেবে মাঠে রয়েছেন পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি মনির হোসেন মিয়া। বিএনপির প্রার্থী হিসেবে দলকে সংগঠিত করে যাচ্ছেন পৌর বিএনপির সভাপতি এসএম মনির-উজ জামান মনির। এছাড়া আ’লীগ দলীয় বর্তমান মেয়র হারিছুর রহমান, সাবেক মেয়র বিএনপি নেতা নুর আলম হাওলাদার এবং বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আ’লীগ নেতা আলাউদ্দিন ভূঁইয়া দলীয় মনোনয়ন পেতে জোর লবিং করে যাচ্ছেন।