১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

অশ্রুসজল নয়নে ভারতে যাত্রা ৫৫ জনের

এ রহমান মুকুল, পঞ্চগড় থেকে ॥ নাড়ির টান ছিন্ন করে নতুন দেশে নব জীবনের খোঁজে প্রথম ধাপে আজ রবিবার ভারতে যাচ্ছেন পঞ্চগড়ের বিলুপ্ত ৩৬ ছিটমহলের ১৫ পরিবারের ৫৫ জন। তিন ধাপে যাবে আরও ৪৩৪ জন। এর মধ্যে বাংলাদেশে জন্ম নেয়া দুই নবজাতকও রয়েছে। দীর্ঘ ৬৮ বছর ভারতে গমনেচ্ছু বিলুপ্ত ছিটমহলের নাগরিকদের জন্য আনন্দের হলেও দিনটি তাদের কাছে হয়ে যায় চাপা কান্না, বিষাদ আর বেদনার। একদিকে জন্মভূমির টান অন্যদিকে স্বজন, বন্ধুবান্ধব ও চিরচেনা সাথীদের স্মৃতির পাতায় নাম লেখানো। সব মিলিয়ে বাংলাদেশ ছেড়ে ভারতে যাওয়ার আগের দিন শনিবার ভারি হয়ে ওঠে পঞ্চগড়ের বিলুপ্ত ছিটমহলের বাতাস। ভারতে চলে যেতে হবে তাই আগেভাগেই কেউ বিক্রি করেছেন ভিটেমাটি। আর কেউ রেখে যাচ্ছেন নিকটাত্মীয়ের দায়িত্বে।

শনিবার পঞ্চগড় সদরের বিলুপ্ত গারাতী এবং বোদা উপজেলার নাটকটোকা, কাজলদীঘি, বেলুয়াডাঙ্গা ও নাজিরগঞ্জ ছিটমহলের ৫৫ নতুন ভারতীয় নিজ জন্মভূমির মায়া ত্যাগ করে আত্মীয়স্বজনদের কাছ থেকে শেষবারের মতো বিদায় নেন। এসময় গ্রামগুলোতে কান্নার রোল পড়ে যায়। নিজ আত্মীয় ছাড়াও প্রতিবেশীরাও কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। হৃদয়বিদারক দৃশ্যের অবতারণা হয়।

সকালে বোদা উপজেলার নাজিরগঞ্জ, নাটকটোকা ও বেলুয়াডাঙ্গা ছিটমহলে সরেজমিন পরিদর্শনে গিয়ে দেখা যায়, অশ্রুসজল নয়নে একে একে ভারতের পথে যাত্রা শুরু হয়েছে। নাজিরগঞ্জের নৃপেন্দ্রনাথ স্ত্রী ও ছোট ছেলেকে নিয়ে ভারত যাচ্ছেন। বাংলাদেশে থেকে যাচ্ছে তার বড় ছেলে, বউ আর নাতনি। প্রিয়জনদের ছেড়ে যেতে মন না চাইলেও বুকভরা যন্ত্রণা নিয়ে তাকে চিরদিনের জন্য চলে যেতে হচ্ছে নতুন ঠিকানা ভারতে। কাস্টমস আনুষ্ঠানিকতা শেষ করতে মাঝে এসব ভারতীয়কে একদিনের যাত্রা বিরতি দিতে হবে বোদা উপজেলার কাজলদীঘি কালিয়াগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে। ভারত সরকারের দেয়া ট্রাভেল পাস দেখিয়ে দুপুরের পর থেকে নতুন ভারতীয়দের বাংলাদেশের ইমিগ্রেশন ছাড়পত্র প্রদান এবং একই সঙ্গে কাস্টমস প্রক্রিয়ায়ও শুরু করা হয়।

কেশবপুর আ’লীগের দুই গ্রুপে সংঘর্ষ ॥ আহত ২৫

নিজস্ব সংবাদদাতা, কেশবপুর, ২১ নবেম্বর ॥ শনিবার বিকেলে কেশবপুরে গৌরিঘোনা ইউনিয়নের ভেরচি বাজারে আওয়ামী লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে হয়েছে। এতে ২৫ জন আহত হয়েছে। পূর্বশত্রুতার জের ধরে শনিবার ভেরচি বাজারে পটকা ফুটানোকে কেন্দ্র করে এলিন ও হাবিব গ্রুপ সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। সংঘর্ষ চলাকালে পুলিশ ফাকা গুলি করে পরিস্থিতি সামাল দেয়। ভেরচি বাজারে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। আহতদের ৯ জনকে কেশবপুর ও খুলনা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদের মধ্যে শওকত সরদারের অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় তাকে খুলনা মেডিক্যালে রেফার করা হয়েছে।

পাবনায় অগ্নিকাণ্ড

নিজস্ব সংবাদদাতা, পাবনা, ২১ নবেম্বর ॥ সাঁথিয়া উপজেলার হাটবাড়িয়া গ্রামে ওমর আলীর ব্রয়লার মুরগির খামারে আগুন লেগে এক হাজার মুরগি পুড়ে ছাই হয়েছে। এতে খামারির প্রায় ৬ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে জানা গেছে। শুক্রবার রাতে এ ঘটনাটি ঘটেছে।