২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাংলাদেশ ছেড়ে ভারতে যাত্রা শুরু করলো পঞ্চগড় ৪৮ ছিটমহলবাসী

স্টাফ রিপোর্টার, পঞ্চগড় ॥ নাড়ির টান ছিড়ে নতুন দেশ আর নব জীবনের খোঁজে প্রথম ধাপে চিরদিনের জন্য ভারতে চলে যাচ্ছেন পঞ্চগড়ের বিলুপ্ত ৫ টি ছিটমহলের ১৪ টি পরিবারের ৪৮ জন। তিন ধাপে যাবে আরও ৪৩৪ জন । এরমধ্যে নতুন বাংলাদেশে জন্ম নেয়া ২ নবজাতক রয়েছে। দীর্ঘ ৬৮ বছর ভারতে গমনেচ্ছু বিলুপ্ত ছিটমহলের নাগরিকদের জন্য আনন্দের হলেও দিনটি তাদের কাছে হয়ে যায় চাপা কান্না,বিষাদ আর বেদনার। একদিকে যেমন জন্মভুমির টান আর অন্যদিকে স্বজন,বন্ধু ও চির চেনা সাথীদের স্মৃতির পাতায় নাম লেখানো। সব মিলিয়ে বাংলাদেশ ছেড়ে ভারতে যাওয়ার দিনটিতে ভারি হয়ে ওঠে বোদা উপজেলার কাজলদিঘী কালিয়াগঞ্জ ইউনিয়ন পরিষদ চত্বর।

এই উপজেলার নাটকটোকা, কাজলদিঘী, বেলুয়াডাঙ্গা ও নাজিরগঞ্জ ছিটমহলের ৫৫ জন নতুন ভারতীয়ের মধ্যে ৪ জনের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করে বাংলাদেশে থেকে যাওয়ায় এবং ৩ জন পরে যাওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করায় এখন ৪৮ নিজ জন্মভুমির মায়া ত্যাগ করে আত্মীয়-স্বজনদের কাছ থেকে শেষবারের মতো বিদায় নেন। এসময় পুরো ইউনিয়ন পরিষদ চত্বর ও আশপাশের এলাকায় কান্নার রোল পড়ে যায়। নিজ আত্মীয় ছাড়াও প্রতিবেশী এবং তাদের দেখতে বাংলাদেশীরাও কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। যেন এক হৃদয় বিদারক দৃশ্যের অবতারনা হয়।

সকল ছিটবাসী অশ্রুসজল নয়নে একে একে দুটি বাসে উঠে সকাল সাড়ে ৯টায় চিলাহাটি-হলদিবাড়ি সীমান্তের পথে পথে যাত্রা শুরু করে।

আগের দিন শনিবার কাস্টমস আনুষ্ঠানিকতা শেষ করতে মাঝে এসব ভারতীয়দের একদিনের যাত্রা বিরতি দিতে হয় বোদা উপজেলার কাজল দিঘি কালিয়াগঞ্জ ইউনিয়ান পরিষদ চত্বরে। সেখানে ভারত সরকারের দেয়া ট্রাভেল পাস দেখিয়ে নতুন ভারতীয়দের বাংলাদেশের ইমিগ্রেশন ছাড়পত্র প্রদান এবং একইসংগে কাষ্টমস প্রক্রিয়ায়ও শুরু শেষ করা হয়।

বাংলাদেশের পক্ষে অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মোহাম্মদ গোলাম আযম, বোদা উপজেলার নির্বাহী অফিসার আবু আউয়াল আনুষ্ঠানিকভাবে নতুন ভারতীয়দের ফুল দিয়ে বিদায় জানান। এসময় ভারতের বাংলাদেশস্থ হাইকমিশনের প্রথম সচিব রামাকান্ত গুপ্তা উপস্থিত ছিলেন।

দুপুরের পর তারা চিলাহাটির ডাঙ্গাপাড়া সীমান্ত হয়ে হলদিবাড়ি সীমান্ত দিয়ে চিরদিনের জন্য ভারতের চলে যাবেন।

নির্বাচিত সংবাদ