২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

সিমটেক্সের লেনদেন শুরু আজ ॥ প্রথম প্রান্তিকের প্রতিবেদন প্রকাশ

অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ প্রথম প্রান্তিকের অনিরীক্ষিত আর্থিক প্রতিবেদন (জুলাই-সেপ্টেম্বর ২০১৫) প্রকাশ করেছে প্রাথমিক গণপ্রস্তাব (আইপিও) প্রক্রিয়া সম্পন্ন করা বস্ত্র খাতের কোম্পানি সিমটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড। এদিকে আজ সোমবার সকাল সাড়ে ১০টায় দেশের উভয় পুঁজিবাজারে আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু হবে এ কোম্পানির শেয়ার লেনদেন। সিএসই ও ডিএসই সূত্র এ তথ্য জানা গেছে।

এদিকে প্রথম প্রান্তিকে সিমটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজের কর পরিশোধের পর মুনাফা করেছে ২ কোটি ২২ লাখ ৩০ হাজার টাকা এবং শেয়ার প্রতি বেসিক আয় (ইপিএস) হয়েছে ০.৭৭ টাকা। আর ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৫ পর্যন্ত এ কোম্পানির শেয়ার প্রতি সম্পদ (এনএভিপিএস) হয়েছে ২৩.২৮ টাকা, যা আগের বছরে একই সময়ে কোম্পানিটির মুনাফা ছিল ৩ কোটি ৬৩ লাখ ২০ হাজার টাকা, বেসিক ইপিএস ছিল ১.২৬ টাকা। উল্লেখ্য, শেয়ার প্রতি আয় ওয়েটেড এভারেজ আইপিও-পূর্ববর্তী পরিশোধিত শেয়ারের ওপর ভিত্তি করে হিসাব করা হয়েছে যা ২০১৪ এবং ২০১৫ উভয় সালে ছিল ২ কোটি ৮৭ লাখ ৫০ হাজার সংখ্যক শেয়ার। আর ২০১৫ সালের ৩০ সেপ্টেম্বর তারিখে সমাপ্ত ৩ মাস সময়ের জন্য আইপিও-পরবর্তী ৫ কোটি ৮৭ লাখ ৫০০ হাজার সংখ্যক শেয়ারের ওপর ভিত্তি ধরে হিসাব করলে বেসিক ইপিএস হয় ০.৩৮ টাকা এবং এনএভিপিএস হবে ২১.৬০ টাকা।

জানা যায়, ‘এন’ ক্যাটাগরির আওতায় লেনদেন শুরু করা সিমটেক্সের ট্রেডিং-ঝওগঞঊঢ এবং ডিএসইতে কোম্পানি কোড-১৭৪৬৯। আর সিএসইতে কোম্পানি কোড-১২০৫৭।

সিমটেক্সের আইপিও লটারিতে বরাদ্দ পাওয়া শেয়ার সেন্ট্রাল ডিপোজিটরি বাংলাদেশ লিমিটেডের (সিডিবিএল) মাধ্যমে বিনিয়োগকারীদের নিজ নিজ বিও হিসাবে গত ১০ নবেম্বর মঙ্গলবার জমা হয়েছে।

এর আগে গত ৬ অক্টোবর আইপিও লটারির ড্র প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে কোম্পানিটি। সিমটেক্সের আইপিওতে সর্বমোট ৯৯০ কোটি ৭০ লাখ ২০ হাজার টাকার আবেদন জমা পড়েছিল, যা মোট আবেদনের ১৬.৫১ গুণ। এর মধ্যে সাধারণ বিনিয়োগকারীরা জমা দিয়েছিল ৬৩৫ কোটি ৫৬ লাখ ৬৮ হাজার টাকার আবেদন, ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীরা ৭৪ কোটি ২৩ লাখ ৪৪ হাজার টাকা, প্রবাসী বিনিয়োগকারীরা ২৩ কোটি ৭৫ লাখ ৬৪ হাজার টাকা এবং মিউচুয়াল ফান্ড খাতে জমা পড়েছিল ২৫৭ কোটি ১৪ লাখ ৪৪ হাজার টাকা।

১০ টাকা অভিহিত মূল্যের সঙ্গে ১০ টাকা প্রিমিয়ামসহ মোট ২০ টাকায় শেয়ার ইস্যু করে সিমটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ।

আর আইপিওর মাধ্যমে ৩ কোটি সাধারণ শেয়ার ছেড়ে পুঁজিবাজার থেকে মোট ৬০ কোটি টাকা উত্তোলন করে কোম্পানিটি।

এ কোম্পানিটির ইস্যু ব্যবস্থাপনার দায়িত্বে রয়েছে এএফসি ক্যাপিটাল লিমিটেড এবং ইমপেরিয়াল ক্যাপিটাল লিমিটেড