২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

দেশকে কলঙ্কমুক্ত করতে সরকার বদ্ধপরিকর ॥ আমু

স্টাফ রিপোর্টার, বরিশাল ॥ শিল্পমন্ত্রী আলহাজ আমির হোসেন আমু বলেছেন, দেশকে কলঙ্কমুক্ত করতে বর্তমান সরকার বদ্ধপরিকর। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে খুব শীঘ্রই একাত্তরের ঘাতক ও রাজাকার মুক্ত সোনার বাংলাদেশ একটি মধ্যম আয়ের দেশে রূপান্তরিত হবে। রবিবার দুপুরে বরিশাল মেডিক্যাল কলেজের অডিটরিয়ামে স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন মেডিসিন ক্লাবের ১৮তম সেন্ট্রাল কনফারেন্স অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী আরও বলেন, বর্তমান সরকারের সময়েই কেবল স্বাস্থ্য খাতের আমুল পরিবর্তন ঘটেছে। দেশে বর্তমানে কমেছে মাতৃ ও শিশু মৃত্যুর হার। বেড়েছে মানুষের গড় আয়ু। একটি দেশে সরকারের একার পক্ষে সবকিছু ঠিক করে দেয়া সম্ভব নয়। এজন্য ব্যক্তি উদ্যোগে সকলকে এগিয়ে আসতে হবে। একই অনুষ্ঠানের বিশেষ অতিথি স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক তার বক্তব্যে বলেন, জ্ঞানভিত্তিক আলোকিত সমাজ বির্নিমাণ আমাদের সরকারের রাজনৈতিক অঙ্গীকার। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সংসদ সদস্য জেবুন্নেছা আফরোজ। বক্তব্য রাখেন বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজের অধ্যক্ষ ডাঃ ভাস্কর সাহা, হাসপাতালের পরিচালক ডাঃ নিজামউদ্দিন ফারুক প্রমুখ।

কুড়িগ্রামে জামায়াতের গায়েবানা

জানাজা ॥ জনমনে ক্ষোভ

স্টাফ রিপোর্টার, কুড়িগ্রাম ॥ যুদ্ধাপরাধী আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদের ফাঁসি কার্যকর হওয়ায় কুড়িগ্রাম জেলা জামায়াতের উদ্যোগে এম এ ছাত্তার স্কুল মাঠে গায়েবানা জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। গোয়েন্দা বিভাগ ও পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে গায়েবানা জানাজা অনুষ্ঠিত হওয়ার ঘটনায় জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড, ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটি, গণজাগরণ মঞ্চ, সম্মিলত সাংস্কৃতিক জোট ও আওয়ামী লীগের মাঝে ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে। রবিবার দুপুর ২টায় এম এ সাত্তার উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে কুড়িগ্রাম জেলা জামায়াতের সাবেক আমির আ ন ম সোলায়মান জানাজায় ইমামতি করেন। এ সময় বক্তব্য রাখেনÑ জেলা জামায়াতের আমির অধ্যাপক আজিজুর রহমান সরকার স্বপন, জেলা সহকারী সেক্রেটারি আব্দুল জলিল, সদর উপজেলা আমির আব্দুস সবুর প্রমুখ। বক্তারা দাবি করেনÑ কুড়িগ্রাম সদরের হোলখানা ও পাটেশ্বরী, ফুলবাড়ী, নাগেশ্বরী, চিলমারী, উলিপুর, রৌমারী, ভূরুঙ্গামারী ও রাজীবপুর উপজেলায় মোট ৩৬টি স্থানে গায়েবানা জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

এ খবর ছড়িয়ে পড়লে আওয়ামী লীগসহ মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের বিভিন্ন সংগঠনের মাঝে ক্ষোভ ও উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

এ ব্যাপারে জেলা মুক্তিযোদ্ধা ইউনিট কমান্ডার সিরাজুল ইসলাম টুকু ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, এ রকম একজন জঘন্য যুদ্ধাপরাধীর গায়েবানা জানাজা অনুষ্ঠিত হওয়ার ঘটনায় আমি মর্মাহত। এ ব্যাপারে প্রশাসনের কঠোর ব্যবস্থা নেয়া উচিত। জেলা ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি জ্যোতি আহমদ বলেন, এ দায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে নিতে হবে। কারণ জামায়াতের একই দিনে ৩৬টি সমাবেশ ঘটনা অবিশ^াস্য। আর তা যদি হয় প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে। জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আমিনুল ইসলাম মঞ্জু ম-ল বলেন, জানাজার নামে ফাঁসির রায়ে দ-িত যুদ্ধাপরাধীর পক্ষে সমাবেশ হলো আর পুলিশ কিছুই জানবে নাÑ এটা হয় না। এ বিষয়ে পুলিশ প্রশাসনের পদক্ষেপ নেয়া উচিত।

চাঁদপুরে দুইজনের কারাদ-

নিজস্ব সংবাদদাতা, চাঁদপুর থেকে জানান, জেলার হাজীগঞ্জ উপজেলায় মুজাহিদ ও সাকা চৌধুরীর গায়েবানা জানাযার নামাজ আদায়ের অপরাধে শিক্ষক গোলাম ফারুক ইয়াহিয়া ও বলিয়া গ্রামের জামায়াত কর্মী জাকির হোসেনকে ছয় মাসের কারাদন্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমান আদালত। রবিবার দুপুর সাড়ে ১২টায় হাজীগঞ্জ উপজেলা চত্বরে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ মুর্শিদুল ইসলাম এ দন্ডাদেশ দেন। সাজাপ্রাপ্ত শিক্ষক গোলাম ফারুক ইয়াহিয়া হাজীগঞ্জ আল-কাউছার ক্যাডেট মাদ্রসার প্রধান। জামায়াত কর্মী জাকির হোসেন উপজেলার বলিয়া গ্রামের বাসিন্দা।