১৭ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বাংলা গান আমার প্রথম প্রেম ॥ অনুপম রায়

সঙ্গীতশিল্পী অনুপম রায়। ভারতের বাংলা ভাষার সমসাময়িক উদীয়মান তরুণ গায়ক, গীতিকার ও সুরকারদের মধ্যে অন্যতম। কলকাতায় ২০১০ সালে সৃজিত মুখার্জীর ‘অটোগ্রাফ’ চলচ্চিত্রে ‘আমাকে আমার মতো থাকতে দাও’ গানটি গেয়ে আলোচনায় আসেন। এরপর আর পেছনে তাকাতে হয়নি তাকে। নিজেই গান লেখা, সুর করা ও গাওয়া তার এখন সহজাত প্রবৃত্তি। বসুন্ধরা ইন্টারন্যাশনাল কনভেনশন সেন্টারের আইসিসি অডিটরিয়ামে আজ সন্ধ্যা ৭টায় ‘দুই বাংলার গান’ শীর্ষক অনুষ্ঠানে গাইবেন তরুণ প্রতিভাবান এই শিল্পী। অন্তর শোবিজ আয়োজিত ধারাবাহিক কনসার্টের প্রথম আয়োজনের শিরোনাম ‘ক্যাচ অনুপম রায় লাইভ ইন ঢাকা’। আয়োজনটি উপলক্ষে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে অনুপম রায়ের উপস্থিতিতে রবিবার এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। শিল্পীর সঙ্গে আজকের পরিবেশনা ও সঙ্গীত সম্পর্কে বিশেষ এক আলাপচারিতার অংশবিশেষ তুলে ধরা হলোÑ

আজকের পরিবেশনা সম্পর্কে বলুন...

অনুপম রায় : যদিও অনুষ্ঠানের নাম দুই বাংলার গান, আমি কিন্তু দুই বাংলা মনে করি না। যতবার এখানে এসেছি ততবার সবার ভালবাসায় মুগ্ধ হয়েছি। নতুন নতুন গান লেখার অনুপ্রেরণাও পেয়েছি এখান থেকেই। সেই অর্থে আমি মনেকরি আমার আত্মার জায়গা। আমি বাংলা গানই গাইব এবং আমার নতুন নতুন কিছু সংযোজনও থাকবে পরিবেশনায়। আমার সঙ্গে এখানের দুই শিল্পী পারভেজ ও ন্যান্সি গাইবেন। তারাও জনপ্রিয়। সব মিলিয়ে বাংলা গানের এক বিশেষ স্বাদ গ্রহণ করতে পারবে দর্শক-শ্রোতা। আপনাদের ভালবাসা ও ভাললাগা থেকে আরও উৎসাহিত হব নতুন নতুন গান সৃষ্টিতেÑ এটাই প্রত্যাশা।

বাংলা গানের ধারা পরিবর্তের পদ্ধতিগত দিক আয়ত্ত হলো কিভাবে?

অনুপম রায় : এগুলো এক দিনে হয় না। আমি ১২ বছর বয়স থেকে গান লিখি। তখনকার সময়ে আমার গান লেখার ভাষা, এখনকার মতো পরিমিত ছিল না। বিখ্যাত কবিদের বাংলা কবিতা পড়েছি, অনুসরণ করেছি। ধীরে ধীরে সেই শব্দগুলোর নির্যাস আমার গানের মধ্যে আনার চেষ্টা করেছি। গানের সুর করার সময়, কথা আর সুরের হৃদয়গ্রাহী মিলন ঘটানোর চেষ্টা রয়েছে সব সময়। এভাবেই এগিয়ে চলেছি।

আপনার প্রেমের গানের সঙ্গে ব্যক্তিগত জীবনের প্রভাব আছে কিনা...

অনুপম রায় : সব গানের জন্ম কিন্তু সত্যি ঘটনাকে কেন্দ্র করে। আমার ক্ষেত্রেও তার থেকে ব্যতিক্রম নয়। কোন এক সময়ে ব্যক্তিগত জীবনে কিছু ঘটনা ঘটেছিল, তার থেকেও কিছু গান হয়েছে। সেই ক্রাইসেজের জায়গা থেকে লিখেছি কিছু প্রেমের গান। যদিও আমার লেখা ছিল অতি সাধারণ প্রেমের গান হিসেবে, পরবর্তিতে শ্রোতার কাছে তা পরিণত হয়েছে অসাধারণ প্রেমে।

গানের প্রতি নিজেকে সঁপে দেয়ার পেছনের গল্প...

অনুপম রায় : কোন এক সময় চাকরি করতাম। ২০০৪ থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত একটি বেসরকারী সংস্থায় আমার কর্মজীবন কাটিয়েছি। ছোটবেলা থেকে গানের প্রতি ঝোঁক ছিল। প্রথমদিকে আমার গান নিয়ে নিজেই অনেক দ্বিধাদ্বন্দ্বে ভুগতাম, পরে শ্রোতাদের চাওয়া-পাওয়ার ক্ষেত্রে নিজেকে সম্পূর্ণভাবে গানের প্রতি সঁপে দিলাম।

গানের জনপ্রিয়তা সম্পর্কে আপনার অভিমত...

অনুপম রায় : আমি মনেকরি জনপ্রিয়তাই সার্থকতা নয়। ভাল কিছু মানুষকে উপহার দেয়ার মধ্যে অন্যরকম এক সার্থকতা নিহিত।

আপনার বলিউডে প্রবেশ করায় বাংলা গানের ক্ষেত্রে কোন প্রভাব পড়বে কিনা?

অনুপম রায় : বাংলা গান আমার প্রথম প্রেম। সুজিত সরকারের ‘পিকু’ ছবির মাধ্যমে বলিউডে সঙ্গীত পরিচালক হিসেবে প্রবেশ করেছি বটে, কিন্তু বাংলা গান আমার হৃদয়ের গান, এর কোন ঘাটতি ঘটবে না। আমার বাংলা গান কখনই থেমে থাকবে না। Ñগৌতম পা-ে

নির্বাচিত সংবাদ