২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

জিহ্বার আলসারের কারণ

জিহ্বায় আলসার বা ঘা একটি বিড়ম্বনাকর অনুভূতি। জিহ্বার আলসারের কারণে একদিকে যেমন খাদ্যদ্রব্য গ্রহণে সমস্যা হয়, অন্যদিকে রোগী মানসিকভাবে দুশ্চিন্তাগ্রস্ত হয়ে পড়ে। তাই জিহ্বার আলসারের উল্লেখযোগ্য কারণগুলো সবার জানা প্রয়োজন। যেসব কারণে জিহ্বায় আলসার বা ঘা দেখা দিতে পারে সেগুলো হলো;

* জিহ্বার আঘাত : জিহ্বায় আঘাতজনিত কারণে সাধারণত আলসার দেখা দিতে পারে। এছাড়া ধারণা করা হয় আঘাতজনিত কারণে জিহ্বার ইওসিনোফিলিক আলসার দেখা দিতে পারে। এ জাতীয় আলসার খুব দ্রুতগতিতে বিস্তার লাভ করে। এ সময় রোগী খুব অস্বস্তিতে ভুগে থাকে। রোগের লক্ষণ অনুযায়ী জিহ্বার এ জাতীয় আলসারের চিকিৎসা প্রদান করতে হবে। * হারপিস ভাইরাস সংক্রমণ * রক্তশূন্যতার কারণে আমাদের দেশে বিশেষ করে গর্ভবতী এবং মাতৃদুগ্ধদানকারী মায়েদের জিহ্বায় আলসার দেখা দেয় * ধারালো দাঁতের কারণে * জিহ্বার স্নায়ু কোন কারণে নষ্ট হয়ে গেলে যেমন ওরাল সার্জারির সময় অথবা ডেন্টাল ইনজেকশন দেয়ার সময় * ক্যানডিডা সংক্রমণের কারণে জিহ্বায় সাদা বা লাল ক্ষত হতে পারে * টুথপেস্ট, মাউথওয়াশ এবং চুইংগাম এলার্জির কারণে জিহ্বায় আলসার দেখা দিতে পারে * খাদ্যে বিদ্যমান এলার্জির কারণে জিহ্বায় আলসার দেখা দিতে পারে * অতিরিক্ত মসলাজাতীয় খাবার গ্রহণ করলে * এলকোহল সেবন এবং ধূমপান * যদি পাকস্থলীতে আলসার থাকে তবে সেক্ষেত্রে জিহ্বায় আলসার ধীরে ধীরে দেখা দিতে পারে * হজমের সমস্যার কারণে * এ্যান্টিবায়োটিক সেবনের কারণে * নিউরালজিয়া * কৃত্রিম ডেনচার ঠিকভাবে সংযোজন করা না হলে * লাইকেন প্ল্যানাস * ওরাল লাইকেনয়েড লিশন : ওরাল লাইকেনয়েড লিশন হলো লাইকেন প্ল্যানাসের মতো সংক্রমণ যা কোন কারণ ছাড়া হতে পারে এবং মুখ ও জিহ্বায় আলসার সৃষ্টি করতে পারে। দাঁতের প্রদত্ত অ্যামালগাম ফিলিংয়ের কারণে ওরাল লাইকেনয়েড সংক্রমণ হতে পারে। যাদের মারকারীর প্রতি সংবেদনশীলতা রয়েছে তাদের ক্ষেত্রে এ্যামালগাম ফিলিং না দিয়ে অন্য ধরনের ফিলিং দেয়া ভাল। জিহ্বায় আলসারের কারণ অনুযায়ী চিকিৎসা গ্রহণ করতে হবে। যেসব কারণে জিহ্বায় আলসার হতে পারে তা বর্জন করতে হবে। রোগ নির্ণয়ের জন্য পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার তেমন প্রয়োজন নেই। রোগীর রোগের উৎপত্তি এবং ইতিহাস অনুযায়ী চিকিৎসা প্রদান করলে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই রোগ ভাল হয়ে যায়।

ডাঃ মোঃ ফারুক হোসেন

মুখ ও দন্তরোগ বিশেষজ্ঞ

মোবাইল : ০১৮১৭৫২১৮৯৭

ই-মেইল : dr.faruqu@gmail.com