২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ঈশ্বরদীতে সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থীদের প্রচার চলছে

স্টাফ রিপোর্টার, ঈশ্বরদী ॥ আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনকে সামনে রেখে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থী ও কাউন্সিলর প্রার্থীদের প্রচার চলছে। ইতোমধ্যে মেয়র প্রার্থী পৌর আ’লীগ সভাপতি আবুল কালাম আজাদ মিন্টুর প্রচার কাজ প্রায় শেষের দিকে।

অন্যদিকে বিএনপির পক্ষ থেকে এখনও পর্যন্ত প্রার্থীর নাম চূড়ান্ত করা না হলেও পৌর বিএনপির সাবেক সভাপতি বর্তমান পৌর মেয়র মকলেছুর রহমান বাবলু অনেকটা নীরবে চালিয়ে যাচ্ছেন নির্বাচনী প্রচার। তিনি চেষ্টা করছেন বিএনপির হাইকমান্ড থেকে প্রার্থী হওয়ার।

অপরদিকে বিএনপির বিভিন্ন আন্দোলন সংগ্রামে সামনের কাতারে থাকা ছাত্রনেতা পৌর ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক ইমরুল কায়েশ সুমন নিজের যোগ্যতা ও তারুণ্যের অগ্রাধিকার ভিত্তিতে আসন্ন পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে প্রার্থী হতে কর্মকা- চালিয়ে যাচ্ছেন। তার মতে, যারা পাকা ধান কেটে নৌকায় তুলে দিতে পারে তারা আর কিছু হলেও বিএনপির প্রার্থী হতে পারে না।

দল মনোনয়ন দিলে তিনি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবেন বলে জানান। ওদিকে পৌর এলাকার নয়টি ওয়ার্ডের নির্বাচিত কাউন্সিলরসহ প্রায় চল্লিশ সম্ভাব্য প্রার্থী নির্বাচনী প্রচার কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন। তাদের ধারণা প্রচারই প্রসার। সেই কারণে তারাও প্রায় এক মাস আগে থেকে নানা কায়দায় বিভিন্ন মাধ্যমে প্রচার চালাচ্ছেন।

প্যানেল মেয়র ও কাউন্সিলর আনোয়ার হেসেন জনি ইতোমধ্যে তার ওয়ার্ডে নিজ খরচে শতাধিক লাইট পোস্ট চালু করে আলোচনার শীর্ষে অবস্থান করছেন।

পুলিশের গালে থাপ্পড়

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী ॥ বাঘায় তুচ্ছ ঘটনায় থানা পুলিশের সহকারী উপ-পরিদর্শককে থাপ্পড় মারলেন এক যুবলীগ নেতা। সোমবার সকালে উপজেলার নারায়ণপুর বাজারে এ ঘটনা ঘটে। তবে পুলিশের দাবি থাপ্পড় নয়, সামান্য ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে মাত্র।

স্থানীয়রা জানান, সকালে বাঘা থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক ইউসুফ আলী মোটরসাইকেল নিয়ে নারায়ণপুর বাজারে যান। তিনি রাস্তার পাশে মোটরসাইকেল দাঁড় করিয়ে রেখে অন্যপাশে মোবাইল ফোনে কথা বলছিলেন। এ সময় শুভ নামের এক সাইকেল আরোহীর সঙ্গে তার ধাক্কা লাগে। এ সময় সহকারী উপ-পরিদর্শক ইউসুফ আলী ওই সাইকেল আরোহীকে মারপিট করে। ওই ঘটনার কিছুক্ষণ পর জেলা যুবলীগের সদস্য আবুল কালাম মিঠু মোটরসাইকেলযোগে তার সন্তান নিয়ে স্কুল থেকে বাড়ি ফিরছিলেন।

পথে একই স্থানে মিঠুর মোটরসাইকেলের লুকিং গ্লাসের সঙ্গে ধাক্কা লাগে ইউসুফ আলীর। এ ঘটনায় মিঠুকে মারতে চড়াও হয় ওই পুলিশ কর্মকর্তা। এ নিয়ে বাগ্বিত-ার একপর্যায়ে মিঠু সহকারী উপ-পরিদর্শক ইউসুফ আলীর দুই গালে থাপ্পড় মারেন। এ সময় ইউসুফ আলী যুবলীগ নেতা মিঠুকে আটক করার চেষ্টা করলে সে পালিয়ে যায়। তবে থাপ্পড় মারার মতো কোন ঘটনা ঘটেনি বলে জানান অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আলী মাহমুদ। তিনি জানান, তুচ্ছ একটি বিষয় নিয়ে ভুল বোঝাবুঝি। পরে তাদের দুইজনের মধ্যেই মীমাংসা হয়ে গেছে।