২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

লক্ষ্মীপুরে চোর সন্দেহে প্রতিবন্ধী যুবককে নির্যাতন

নিজস্ব সংবাদাদাতা, লক্ষ্মীপুর, ২৩ নবেম্বর ॥ চোর সন্দেহে প্রতিবন্ধী সালাহউদ্দিনকে আগুনের ছ্যাকা ও পিটিয়ে নির্যাতন করা হয়েছে। বাস টার্মিনালের উত্তর পাশে বাঞ্ছানগর গ্রামের জবেদ আলী মুন্সির বাড়ির সামনে রাতভর সুপারী গাছের সাথে বেঁধে তার ওপর বর্বর এ নির্যাতন চালানো হয়।

সোমবার বিকেলে ওই যুবককে গুরুতর অবস্থায় লক্ষ্মীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। নির্যাতনের শিকার যুবক সদর উপজেলার চররুহিতা ইউনিয়নের নবীগঞ্জ গ্রামের বাক প্রতিবন্ধী সফিক উল্লাহর ছেলে । সে নিজেও মানসিক ভারসাম্যহীন বলে জানা গেছে। জানা গেছে, সালাহউদ্দিনকে স্থানীয় জবেদ আলী মুন্সির বাড়ি এলাকায় আলমগীর হোসেনসহ কয়েকজন মিলে চোর সন্দেহে আটক করে। পরে তাকে সুপারী গাছের সাথে বেঁধে আগুনে প্লাস্টিক পুড়িয়ে তার দেহের বিভিন্ন স্থানে ছ্যাকা এবং বেদম মারধর করে। এ ব্যাপারে জানতে অভিযুক্ত আলমগীরকে বাড়িতে পাওয়া যায়নি। তবে তার স্ত্রী নিপু বেগম জানান, চোর ধরে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে মারধর করা হয়েছে। যে যেভাবে পেরেছে সেভাবেই মেরেছে বলে জানান তিনি।

খুলনায় মঞ্জুর জামিন নামঞ্জুর

স্টাফ রিপোর্টার, খুলনা অফিস ॥ পুলিশের ওপর হামলা-মামলায় বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক ও খুলনা মহানগর বিএনপির সভাপতি নজরুল ইসলাম মঞ্জুকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। সোমবার বেলা ১১টার দিকে তিনি খুলনা মহানগর হাকিমের আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিনের আবেদন জানালে আদালত জামিন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে প্রেরণের নির্দেশ দেন। এর আগে নজরুল ইসলাম মঞ্জু বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মী নিয়ে আদালত চত্বরে উপস্থিত হন। এ সময় পুলিশ আদালত এলাকায় কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করে। আদালত সূত্র জানায়, ২০১৩ সালের ২৬ নবেম্বর খুলনা মহানগরীর পাওয়ার হাউজ মোড়ে বিএনপির কর্মসূচী চলাকালে পুলিশের ওপর হামলার ঘটনা ঘটে।

সাদুল্যাপুর উপজেলা চেয়ারম্যান সাসপেন্ড

নিজস্ব সংবাদদাতা, গাইবান্ধা, ২৩ নবেম্বর ॥ জেলার সাদুল্যাপুর উপজেলা পরিষদের নির্বাচিত চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান মুন্সিকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়েছে। তাকে বরখাস্তের আদেশ সোমবার সকালে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে এসে পৌঁছায়। পলাশবাড়ী থানায় দায়ের নাশকতার মামলায় সম্প্রতি উপজেলা চেয়ারম্যান সাইদুর রহমান মুন্সি কারাভোগ করেন। এছাড়া তার বিরুদ্ধ আরও একটি মামলার অভিযোগপত্র (চার্জশীট) আদালতে গৃহীত হয়েছে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের এক পরিপত্রে তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

ছিটবাসীর গাড়ির বহরে দাদি-নাতনি নিহত

স্টাফ রিপোর্টার, নীলফামারী ॥ বিলুপ্ত ছিটমহলের পরিচিত অনেকেই নাগরিকত্ব গ্রহণ করে ভারতে চলে যাচ্ছিলেন সোমবার। তাদের একনজর দেখার জন্য আট বছরের শিশু নাতনি সুরাইয়া আক্তারকে নিয়ে সীমান্তে ছুটে আসেন দাদি কহিনুর বেগম (৫৫)। কিন্তু সেই পরিচিত মুখ আর দেখা হলো না তাদের। ভারতগামীদের গাড়ি বহরের ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে নিহত হন তারা। ঘটনাটি সোমবার বেলা সোয়া দুইটার দিকে ঘটে ডোমার উপজেলার চিলাহাটি সীমান্তের ডাঙ্গাপাড়া বিজিবি ক্যাম্পের অদূরে। নিহত কহিনুর বেগম ওই উপজেলার ভোগডাবুড়ি ইউনিয়নের বিওপি বাজার প্রামাণিকপাড়ার ভ্যানচালক বুধারু মামুদের স্ত্রী ও তাদের ছেলে শাহাদাত হোসেনের মেয়ে সুরাইয়া আক্তার।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সোমবার দুপুরে পঞ্চগড় জেলার দেবীগঞ্জ উপজেলার বিলুপ্ত ছিটমহলের কোটভাজনী ও বালাপাড়া খাগড়াবাড়ির ভারতীয় নাগরিকত্ব গ্রহণকারী ২৮ পরিবারের ১৪৭ সদস্য চিলাহাটি সাীমান্ত হয়ে গাড়িবহরে ভারতে যাচ্ছিল। এসময় একটি ব্যাটারিচালিত রিক্সাভ্যানে নাতনিকে নিয়ে তাদের দেখতে যাচ্ছিলেন কহিনুর বেগম। পথে ভ্যান থেকে ছিটকে পড়ে ওই গাড়িবহরের একটি ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারায় দাদি কহিনুর বেগম।