১০ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

বিপিএলে অনিয়ম, নাটক শুরু

  • ১ ঘণ্টা দেরিতে শুরু সিলেট সুপার স্টারস-চিটাগাং ভাইকিংস ম্যাচ

মোঃ মামুন রশীদ ॥ ম্যাচ ফিক্সিং, খেলোয়াড়দের পাওনা পরিশোধ না করা, ফ্র্যাঞ্চাইজিদের টাকা পরিশোধ না করা ইত্যাদি কারণে এক বছর বন্ধ ছিল বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লীগ (বিপিএল) টি২০। তবে এই এক বছরে অনেক সংশোধনী এনে এবং নতুন করে মালিকানা পরিবর্তন করে এবার নতুন করে শুরু হয়েছে বিপিএল। তবে ক্রিকেটারদের পাওনা আসর শুরুর আগেই ৫০ ভাগ পরিশোধের কথা থাকলেও সেটা অনেক ক্রিকেটারই পায়নি বলে জানা গেছে। এছাড়া বিপিএলের উদ্বোধনী অনুষ্ঠান ও প্রথম ম্যাচের দিন নিরাপত্তা শিথিলতা ও অনিয়মটাও সবার দৃষ্টিতে ধরা পড়ে। এসব মাঠের বাইরের বিষয়। তবে দ্বিতীয় দিনেই নাটকীয়তা এবং বিতর্ক সৃষ্টি হলো মাঠে। সোমবার দিনের প্রথম ম্যাচে সিলেট সুপার স্টারস ও চিটাগাং ভাইকিংস ম্যাচ শুরু হয় এক ঘণ্টা বিলম্বে। এর কারণ একাদশে চার বিদেশীকে রাখা বাধ্যতামূলক হলেও সুপার স্টারস মাত্র দু’জন নিয়ে একাদশ সাজিয়েছিল। ২৫ মিনিট পর টস হলেও খেলা শুরু করতে গিয়ে আরেক বিতর্ক। একাদশে না থাকা দুই ইংলিশ ক্রিকেটার জশুয়া কব ও রবি বোপারাকে নিয়ে মাঠে নামে সুপার স্টারস, সে কারণে চিটাগাং ভাইকিংস অধিনায়ক তামিম ইকবাল খেলতে অস্বীকৃতি জানান। অবশেষে বিপিএল গবর্নিং কাউন্সিল বাধ্য হয়ে অনিয়ম করেই ম্যাচ শুরু করে। সুপার স্টারস দুই বিদেশীকে নিয়ে খেলে।

বিপিএলের প্রথম আসর থেকেই বিপত্তি শুরু হয়েছে দুর্বল ব্যবস্থাপনার গবর্নিং কাউন্সিল থাকায়। সেবার প্রাথমিক পর্ব থেকে সেমিফাইনালে কোন দল উঠবে (বরিশাল বার্নার্স নাকি চিটাগাং কিংস) সেটা নিয়ে এক নাটকীয়তার সৃষ্টি হয়। আর দ্বিতীয় বিপিএলে ক্রিকেটারদের পাওনা পরিশোধ এবং ফিক্সিংয়ের বিতর্ক টালমাটাল করে দেয় পুরো দেশের ক্রিকেটকেই। আর সেসব কারণে গত বছর আর বিপিএল অনুষ্ঠিত হয়নি। দেশের ক্রিকেটের উন্নয়নের স্বার্থে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি) যে বিপিএল টি২০ আয়োজন করার প্রয়াস চালিয়েছে সেটা বিশ্ব ক্রিকেটে নজর কাড়তে পারলেও কলঙ্কিত হয়েছে চরম অব্যবস্থাপনার কারণে। সেই কলঙ্কগুলো ঢেকেই এবার বিপিএল আয়োজনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল বিসিবি ও বিপিএল গবর্নিং কাউন্সিল। কিন্তু এবার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানেই নিরাপত্তার বিষয়টি সবাইকে হতবাক করে দেয়। গত অক্টোবরে নিরাপত্তা শঙ্কার কারণে বাংলাদেশ সফর বাতিল করেছিল অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল। সেই নিরাপত্তা ব্যবস্থার অবনতি দেখা গেল রবিবার প্রথম ম্যাচের দিন। এদিন স্টেডিয়ামের মূল গেট দিয়ে ঢাকা ডায়নামাইটসের সমর্থকদের টিকেট ছাড়াই, তল্লাশি ছাড়াই মাঠে ঢুকতে দেয়া হয়েছে। এছাড়া কয়েক ফ্র্যাঞ্চাইজির অনেক ক্রিকেটারই দাবি করেছেন টুর্নামেন্ট শুরুর আগে পারিশ্রমিকের প্রতিশ্রুত ৫০ ভাগ অর্থ এখনও পাননি তারা। তাই বিপিএল প্রশ্নবিদ্ধ হতে শুরু করেছে প্রথম থেকেই।

বিসিবি প্রতিবারই একটি পরিচ্ছন্ন, শৃঙ্খলাপূর্ণ আর বিতর্কহীন বিপিএল আয়োজনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। কিন্তু প্রথম দুই বিপিএলেই ঝামেলা হয়েছে। এবার শুরু থেকে বিসিবি অনেক তোড়জোড় এবং কড়া থাকার বিষয়ে নিজেদের শক্ত অবস্থানের কথা জানিয়েছে। কিন্তু নিরাপত্তা ইস্যু এবং ক্রিকেটারদের পারিশ্রমিকের বিষয়টি এখন প্রশ্ন তুলছে। আর সোমবার যা ঘটলো তা বিশ্বব্যাপী ক্রিকেটপ্রেমীরাই দেখেছেন। কারণ বিপিএলের সম্প্রচার স্বত্বাধিকারী প্রতিষ্ঠান বাংলাদেশের চ্যানেল নাইন। তবে তারা সারাবিশ্বের আরও ৯টি চ্যানেলের কাছে সম্প্রচারের স্বত্ব দিয়েছে। তাই সুপার স্টারস-ভাইকিংস ম্যাচের নাটকীয়তাও দেখেছে ক্রিকেটপ্রেমীরা। দিনের প্রথম এ ম্যাচটির টস অনুষ্ঠিত হয় ২৫ মিনিট বিলম্বে। কারণ নিয়ম অনুসারে একাদশে চার বিদেশী থাকার কথা কিন্তু সুপার স্টারসের ছিল দু’জন- অজন্থা মেন্ডিস ও দিলশান মুনাবিরা। এ বিষয়টি নিয়ে আপত্তি করে চিটাগাং। পরে কব ও বোপারার অনাপত্তি পত্র (এনওসি) পাওয়া নিয়ে ঝামেলার কারণে নামতে পারেনি সিলেট, সে কারণে টস করতে রাজি হয় ভাইকিংস। কিন্তু টসের পরই খেলার ছাড়পত্র পেয়ে যান এ দুই ইংলিশ ক্রিকেটার। ভাইকিংসের দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও তিলকরতেœ দিলশান ব্যাট করতে মাঠে নেমেও আবার ফিরে যান। কারণ সুপার স্টারস নতুন করে একাদশে নিয়েছে কব ও বোপারাকে। এ কারণে তামিম খেলতে অস্বীকৃতি জানালে ১ ঘণ্টা খেলা বন্ধ থাকে। মাঠজুড়ে চলে চরম নাটকীয়তা।

শেষ পর্যন্ত বিপিএল গবর্নিং কাউন্সিল নিয়ম ভেঙ্গেই খেলা শুরু করে ঘণ্টাখানেক পর। এ প্রসঙ্গে বিপিএলের টেকনিক্যাল কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস বলেন, ‘সিলেটের দু’জন বিদেশী ক্রিকেটারের ছাড়পত্র না থাকায় তারা একাদশে খেলতে পারবেন না। এ জটিলতার কারণে টসে যাচ্ছিলেন না মুশফিকুর রহীম। বিপিএল অফিসে এ নিয়ে সিলেট সুপার স্টারসের কর্মকর্তাদের আলোচনার জন্যই এই দেরি।’ কিন্তু শেষ পর্যন্ত নিজেদের নিয়ম নিজেরাই ভেঙ্গে অন্য ফ্র্যাঞ্চাইজিদের শৃঙ্খলা নষ্টের উৎসাহই দিল না তো বিপিএল গবর্নিং কাউন্সিল?