২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

ভাষা সৈনিক ও মুক্তিযোদ্ধা গোলাম আকবর চৌধুরী আর নেই

ভাষা সৈনিক ও মুক্তিযোদ্ধা গোলাম আকবর চৌধুরী আর নেই

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা, ভাষা সৈনিক, কলামিস্ট এবং জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ঠ সহচর গোলাম আকবর চৌধুরী আর নেই। (ইন্নাল্লাহি... রজিউন) তিনি জাতীয় সংসদের উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরীর স্বামী।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে (বিএসএমএমইউ) চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। গোলাম আকবর চৌধুরীর বয়স হয়েছিল ৮৪ বছর। ভাষা আন্দোলনের সময় চট্টগ্রামে সর্বদলীয় ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি এবং মুজিবনগর সরকারের পরিকল্পনা সেলেরও সদস্য ছিলেন এই মহান মুক্তিযোদ্ধা।

তার মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, জাতীয় সংসদের স্পীকার শিরীন শারমিন চৌধুরী ও ডেপুটি স্পীকার ফজলে রাব্বী মিয়া শোক প্রকাশ করেছেন। গোলাম আকবর চৌধুরী বার্ধক্যজনিত নানা রোগে আক্রান্ত হয়ে দীর্ঘদিন বিএসএমএমইউতে চিকিৎসাধীন ছিলেন। গত ১ নবেম্বর তাকে ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে (আইসিইউ) স্থানান্তর করা হয়।

বিএসএমএমইউ পরিচালক (হাসপাতাল) মোঃ আবদুল মজিদ ভূঁইয়া জানান, আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে মারা যান গোলাম আকবর চৌধুরী।

তার মৃত্যুর সংবাদ শুনে দুপুরে সাজেদা চৌধুরীর গুলশানের বাসায় যান প্রধানমন্ত্রী । তিনি সেখানে কিছু সময় থাকেন এবং পবিবারের সদস্যদের সান্ত¡না দেন।

রাষ্ট্রপতি তার শোকবার্তায় বলেন, গোলাম আকবর চৌধুরীর মৃত্যুতে দেশ একজন বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধাকে হারাল।

তিনি গোলাম আকবর চৌধুরীর বিদেহী আত্মার শান্তি কামনা করেন এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানান।

প্রধানমন্ত্রীর প্রেস উইং থেকে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, গোলাম আকবর চৌধুরীর মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

বিবৃতিতে প্রধানমন্ত্রী বলেন, গোলাম আকবর চৌধুরী ছিলেন জাতির পিতার অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ। ভাষা আন্দোলনে তার সভাপতিত্বে চট্টগ্রামে সর্বদলীয় ছাত্র সংগ্রাম পরিষদ গঠিত হয়। তিনি মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন মুজিবনগর সরকারের পরিকল্পনা সেলের অবৈতনিক সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন।

তিনি বলেন, সপরিবারে বঙ্গবন্ধু হত্যা পরবর্তী দুঃসময়ে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের একজন প্রকৃত ভক্ত ও সুহৃদ হিসেবে সাহসী ভূমিকা পালন করেন। আওয়ামী লীগের সভানেত্রী নির্বাচিত হওয়ার পর আমার স্বদেশ প্রত্যাবর্তনকালীন সময়েও তিনি সক্রিয় ভূমিকা পালন করেন। তার মৃত্যুতে বাংলাদেশ একজন দেশপ্রেমিক নাগরিককে হারাল, ব্যক্তিগতভাবে আমি একজন সুহৃদকে হারালাম। গোলাম আকবর চৌধুরী স্ত্রী, তিন ছেলে ও এক মেয়ে রেখে গেছেন। এছাড়াও গোলাম আকবর চৌধুরীর মৃত্যুতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, বাংলাদেশ মহিলা পরিষদ, বাংলাদেশ মেডিক্যাল এ্যাসেসিয়েশন শোক জানিয়েছেন।