২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

এডিবির সহায়তায় ৭ লাখ প্রি-মিটার

হামিদ-উজ-জামান মামুন ॥ বিদ্যুত চুরি ও সিস্টেম লসের নামে দুর্নীতি ঠেকাতে ঢাকা বিভাগে ৭ লাখ প্রি-মিটার বসানো হচ্ছে। এতে মোট ব্যয় হবে ৪৩৬ কোটি টাকা। এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের (এডিবি) সিংহভাগ অর্থ ঋণ সহায়তা হিসাবে দিচ্ছে। আজ মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক) সভায় চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করা হচ্ছে। রাজধানীর আগারগাঁওয়ে এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিতব্য এ সভায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সভাপতিত্ব করবেন।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ডের চেয়ারম্যান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোঃ মঈন বলেন, এ উদ্যোগের কারণে বিদ্যুত চুরি রোধ হবে। অন্যদিকে গ্রাহকদের অতিরিক্ত বিল দেয়ার অভিযোগ কমে আসবে। সূত্র জানায়, বর্তমানে বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড দুর্বল রাজস্ব আদায় ব্যবস্থা ও নন-টেকনিক্যাল সিস্টেম জনিত সমস্যা প্রকট। প্রচলিত এনালগ মিটার নন-টেকনিক্যাল সিস্টেম লসের প্রধান কারণ। অন্যদিকে পোস্ট পেইড বিলিং সিস্টেম গ্রাহকদের নিকট হতে বিল অনাদায়ী থাকার জন্য দায়ী। সূত্র জানায়, বর্তমান বিলিং সিস্টেম গ্রাহকরা বিদ্যুত ব্যবহারে ২ থেকে ৩ মাস পর পর বিল পরিশোধ করে থাকে। বিপুলসংখ্যক জনবল বিদ্যুতের মাসিক রিটিং নেয়া, বিল তৈরি, বিল বিতরণ, বিল অনাদায়ে লাইন কাটার সঙ্গে নিয়োজিত রয়েছে। যা পল্লী বিদ্যুতের ব্যয় বৃদ্ধি করছে। এছাড়[া প্রচলিত মিটারের মাধ্যমে অভার লোড ব্যবহার ও মিটার টেম্পারিং নিয়ন্ত্রণে না থাকায় প্রচুর চুরি হচ্ছে।

এ অবস্থায় ঢাকা বিভাগের ১০টি পল্লী বিদ্যুত সমিতি (পবিস) অঞ্চলে ৭ লাখ নতুন প্রি-মিটার স্থাপন করা হবে। এর মধ্যে ঢাকা পবিস-১,২ ও ৩ অঞ্চল, গাজীপুর, মানিকগঞ্জ, মুন্সীগঞ্জ, ময়মনসিংহ-২, নারায়ণগঞ্জ, নরসিংদী-১ ও ২ এলাকায় এসব মিটার বসানো হবে। প্রকল্পের মোট ব্যয়ের মধ্যে এডিবি সহজ শর্তের ঋণ হিসাবে দেবে ৩২৯ কোটি ৫১ লাখ টাকা, সরকারের নিজস্ব অর্থায়ন থেকে ১০৩ কোটি ৬৮ লাখ টাকা ও সংস্থার নিজস্ব অর্থায়ন থেকে ৩ কোটি ২৪ লাখ টাকা ব্যয় হবে।

পল্লী বিদ্যুত বিভাগ বলছে, সমস্যা নিরসনে প্রি-মিটার স্থাপন করার মাধ্যমে অগ্রীম রাজস্ব আদায় জরুরী হয়ে পড়েছে। এই মিটার স্থাপন করা হলে গ্রাহক সতর্কতা ও মিতব্যয়িতার সঙ্গে বিদ্যুত ব্যবহার করবে। এতে বিদ্যুত সাশ্রয় হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে রাজস্ব আদায়ের হার বাড়বে। জানা গেছে, সরকারের ৭ম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনায় পল্লী বিদ্যুতায়ন কার্যক্রমের আওতায় ৭৫ লাখ প্রি-মিটার স্থাপনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। এ বিপরীতে আলোচ্য প্রকল্পের মাধ্যমে ৭ লাখ প্রি-মিটার স্থাপন করা হচ্ছে।