১০ ডিসেম্বর ২০১৮  ঢাকা, বাংলাদেশ  
শেষ আপডেট এই মাত্র    
ADS

পাকিস্তানকে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান ৩ পার্বত্য সংগঠনের

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বিএনপি নেতা সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরী ও জামায়াত নেতা আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদের ফাঁসির রায় কার্যকরের পর, পাকিস্তানের আনুষ্ঠানিক বিবৃতি ও সেদেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্যের নিন্দা-প্রতিবাদ জানিয়েছে পার্বত্য চট্টগ্রামভিত্তিক তিনটি ছাত্র-যুব সংগঠন। দেশের সাম্প্রতিক পরিস্থিতি ও পার্বত্য চট্টগ্রামের নানা ঘটনা-বাস্তবতা নিয়ে মঙ্গলবার (২৪ নভেম্বর) জাতীয় প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন থেকে তারা এ প্রতিবাদ জানান।

গণতান্ত্রিক যুব ফোরাম (ডিওয়াইএফ), পাহাড়ি ছাত্র পরিষদ (পিসিপি) ও হিল উইমেন্স ফেডারেশন (এইচডব্লিউএফ) এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে। লিখিত বক্তব্যে এ তিন সংগঠনের পক্ষ থেকে বলা হয়, একাত্তরে জাতিগত ও ধর্মীয় বিদ্বেষ ছড়িয়ে পাকিস্তানের সেনাবাহিনী ও তাদের এদেশীয় দোসররা যে মানবতাবিরোধী অপরাধ করেছে, এজন্য পাকিস্তান সরকারের ক্ষমা প্রার্থনা করা উচিত। ‘পাকিস্তান তা না করে উল্টো বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপ করার চেষ্টা করছে, যা কোনোভাবেই মেনে নেওয়া যায় না।’ সাম্প্রতিক সময়ে ঘটে যাওয়া ব্লগার-প্রকাশক হত্যা, বিভিন্ন পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস ও বিভিন্ন অসহিষ্ণুতা তুলে ধরে সরকারেরও কঠোর সমালোচনা করা হয় সংবাদ সম্মেলনে।

বলা হয়, সরকার ধর্ম নিরপেক্ষ কিংবা সংখ্যালঘু জনগণের সহানুভূতিশীল বলে দাবি করলেও, চট্টগ্রামে ‘অপারেশন উত্তরণ’ জারি রেখে সেনা খবরদারি বজায় রেখেছে। গণবিরোধী এ নির্দেশনা জারির পর থেকে পার্বত্য চট্টগ্রামে আদিবাসী পাহাড়িদের উপর দমন-পীড়ন আগের চেয়ে আরও বেড়েছে বলে দাবি করা হয়। পাহাড়ি ও সমতলের সংখ্যালঘু জাতিসত্ত্বার জন্য আলাদা ভূমি কমিশন গঠন ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জারি করা ১১ দফা বাতিলসহ বিভিন্ন দাবি তুলে ধরা হয় সংবাদ সম্মেলনে।

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- গণতান্ত্রিক যুব ফোরামের সভাপতি মাইকেল চাকমা, সাধারণ সম্পাদক অংগ্য মারমা, পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের সভাপতি সিমন চাকমা ও সাধারণ সম্পাদক বিপুল চাকমা, হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সভানেত্রী নিরূপা চাকমা ও পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের সাবেক সভাপতি থুই ক্য সিং।